Web bengali.cri.cn   
চীনের সিনচিয়াং উইগুর স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলের দক্ষিণাঞ্চলে বাচ্চাদের বাধ্যতামূলক শিক্ষা গ্রহণ ও চীনে কর্মরত বাংলাদেশি ড. কিশোর বিশ্বাসের জীবনযাপন
  2019-10-14 13:55:58  cri

 


আজকের অনুষ্ঠানে চীনেরা সিনচিয়াং উইগুর স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলের বাচ্চাদের বাধ্যতামূলক শিক্ষা গ্রহণ ও চীনে কর্মরত বাংলাদেশি ড. কিশোর বিশ্বাসের জীবনযাপন সম্পর্কে কিছু তথ্য তুলে ধরবো।

ঘোড়া চড়া থেকে স্কুলে লেখাপড়া করা—দক্ষিণ সিনচিয়াংয়ের সংখ্যালঘু জাতির বাচ্চাদের বাধ্যতামূলক শিক্ষা গ্রহণ

৫ বছর আগে ৭ বছর বয়সী মেয়ে আশার জুমা এবং তার বাবা ১০ ঘন্টারও বেশি সময় পাহাড়ি রাস্তায় চলার পর অকটো জেলায় পৌঁছায়। এ সময় রাস্তার গাছপালা দেখে অবাক হয় মেয়েটি। সে এই প্রথমবারের মতো দূরবর্তী পাহাড় থেকে বাইরে আসে এবং তখন থেকে নতুন জীবনযাপন শুরু হয়।

কিজিল সুকির্ক অঙ্গরাজ্যের অকটো জেলা চীনের রাষ্ট্রীয় পর্যায়ের দরিদ্র জেলার অন্যতম, যা পামির মালভূমিতে অবস্থিত। কির্গিজ জাতির লোকজন বুলুনখৌ উপজেলাসহ স্থানীয় চারটি পাহাড়াঞ্চলের জেলায় বসবাস করে থাকেন। সেখানে স্থানীয় প্রাকৃতিক দুর্যোগ অনেক বেশি আর অবকাঠামো অবস্থাও দুর্বল, তাই শিক্ষা গ্রহণের মানও অনেক কম।

কুলিআশারের বাসা মুজি উপজেলার পাহাড়াঞ্চলে অবস্থিত, সেখানে গাছপালা বেশিদিন বেঁচে থাকতে পারে না, তাই স্থানীয় কৃষকরা পশু পালন করে জীবনযাপন কাটান। দীর্ঘকাল ধরে দরিদ্রতা ও শিক্ষার দুর্বলতার কারণে পামির মালভূমির দূরবর্তী এলাকার বাচ্চাদের শিক্ষা গ্রহণ অনেক কঠিন ব্যাপার।

তবে মেয়ে কুলিআশারের ভাগ্য খুব ভালো, পরিবারের বড় ভাই বোনের তুলনায় ছোটবেলা থেকে সে শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ পায়। প্রথম শ্রেণী থেকে জেলার স্কুলে পড়াশোনা করে এবং বর্তমানে ষষ্ঠ শ্রেণীর মেয়ে চীনের অন্য শহরের মাধ্যমিক স্কুল পড়তে চেষ্টা করে। তার স্বপ্ন হল শ্রেষ্ঠ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া, বড় শহরে চাকরি করা এবং বিমানে বিশ্ব ভ্রমণ করা।

চীনের রাষ্ট্রীয় বরাদ্দ ও সহায়ক নীতির সমর্থনে ২০১৪ সালে অকটো জেলা ধাপে ধাপে পামির মালভূমির ৪টি দূরবর্তী উপজেলার ৬৩টি আলাদা শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান বাতিল করে বড় এক প্রাথমিক স্কুল গড়ে তোলে। এখানে কুলিআশারের মতো ৩১৮১ জন কৃষক পশুপালক পরিবারের ছেলে-মেয়েরা বোর্ডিং স্কুলে পড়াশোনা করতে সক্ষম। স্কুলে বহুমুখী মিডিয়া ব্যবস্থা, কিবোর্ড রুম আর প্লাস্টিক ট্র্যাক খেলার মাঠ সবই নির্মিত হয়েছে। বাচ্চাদের পিতামাতারা ৭০ শতাংশেরও বেশি স্থানীয় বনের রক্ষক হিসেবে পাহাড়াঞ্চলে পশুপালন ও পর্যবেক্ষণের কাজ করেন।

৩৭ বছর বয়সী ইয়েশানআলি উবুলিহাসেনমু ২০১৪ সালে পাহাড়ে স্থানীয় প্রাথমিক স্কুলের একজন শিক্ষক হন। বুলুনখৌ উপজেলার ছিয়াকলাক গ্রামের শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক সংকটের কারণে কয়েক শ্রেণীর ছাত্রছাত্রী একসাথে এক ক্লাসরুমে ক্লাস করে। অনেক ছাত্রছাত্রী প্রতিদিন কয়েক ঘন্টা হাঁটাহাঁটি করে স্কুলে এসে পড়াশোনা করে। শীত্কালের তুষার এবং গ্রীষ্মকালের বন্যা তাদের ক্লাসের পড়াশোনায় নেতিবাচক প্রভাব ফেলে।

বর্তমানে ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনা পরিস্থিতির উন্নতি দেখে অনেক খুশি শিক্ষক ইয়েশানআলি উবুলিহাসেনমু। 'অতীতকালে অনেক বাচ্চা লেখাপড়া থেকে বঞ্চিত হয়ে পশু পালন করে বা বিয়ে করে এবং দরিদ্র জীবন দূর করতে সক্ষম নয়। বর্তমানে বাচ্চাদের শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ রয়েছে এবং গুণগতমানসম্পন্ন শিক্ষা গ্রহণের মাধ্যমে নিজ ও পরিবারের ভাগ্য পরিবর্তন করা সম্ভব।' শিক্ষক উবুলিহাসেনমু এমন কথা বলেন।

সিয়াওবাইইয়াং প্রাথমিক স্কুল দক্ষিণ সিনচিয়াংয়ের শিক্ষা উন্নয়নের একটি সংক্ষিপ্তসার। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে দক্ষিণ সিনচিয়াংয়ের সিতি অঙ্গরাজ্যকে ভিত্তি করে দূরবর্তী ও দরিদ্র এলাকায় সহায়তা নীতি চালু করেছে চীন সরকার এবং গ্রামাঞ্চলে বোর্ডিং স্কুল ব্যবস্থা চালু করে গ্রামের ছাত্রছাত্রীদের পুষ্টিকর খাবার পরিকল্পনা প্রণয়ন করা হয়েছে। ধারাবাহিক ব্যবস্থার মাধ্যমে দক্ষিণ সিনচিয়াংয়ের লক্ষ লক্ষ সংখ্যালঘু জাতির শিক্ষার্থীদের ভাগ্য পরিবর্তন করা হয়েছে।

সিনচিয়াং উইগুর স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলের শিক্ষা বিভাগের সর্বশেষ পরিসংখ্যান থেকে জানা গেছে, গত বছর স্থানীয় সরকার ৪৮৭ কোটি ইউয়ান বরাদ্দ দিয়ে সার্বিকভাবে দরিদ্র এলাকার বাধ্যতামূলক শিক্ষাদানে দুর্বল স্কুলের অবকাঠামো নির্মাণ কাজ পরিবর্তন করেছে এবং সিতি অঙ্গরাজ্যে পুঁজির পরিমাণ ৩৩৫ কোটি ইউয়ান, যা সার্বিকভাবে স্থানীয় গ্রামাঞ্চলের বাধ্যতামূলক শিক্ষার অবস্থা উন্নত করেছে।

চীন সরকারের সহায়তায় দক্ষিণ সিনচিয়াংয়ের বাধ্যতামূলক শিক্ষা গ্রহণের পরিমাণ দ্রুতভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। গত বছরের শেষ নাগাদ প্রাথমিক স্কুলের ভর্তি হার ৯৯.৮৯ শতাংশ, মাধ্যমিক স্কুলের শিক্ষার্থীদের ভর্তি হার ৯৯.৬ শতাংশ আর মাধ্যমিক স্কুল থেকে উচ্চ বিদ্যালয় পর্যায়ে ভর্তির হার ৯৮.৬ শতাংশে দাঁড়িয়েছে।

শিক্ষাদানের সমতা বাস্তবায়ন এবং দরিদ্রতা দূর করার জন্য ফাইল রেখে নিম্ন আয়, চরম দরিদ্র পরিবার ও প্রতিবন্ধী ছাত্রছাত্রীদের জন্য নির্দিষ্ট আর্থিক সহায়তা দেয়া হয় সিনচিয়াংয়ে, যাতে দরিদ্র শিক্ষার্থীদের শিক্ষা গ্রহণ নিশ্চিত করা যায়।


1  2  
© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040