Web bengali.cri.cn   
চীন-বেলারুশ উচ্চশিক্ষার সহযোগিতা এবং সিনচিয়াং উইগুর স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলের এক অধ্যাপকের গল্প
  2019-06-03 14:22:17  cri

 


বন্ধুরা, আজকের অনুষ্ঠানে চীন ও বেলারুশের মধ্যে উচ্চশিক্ষার সহযোগিতা এবং চীনের সিনচিয়াং উইগুর স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলের শিহোজি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি একাডেমির একজন অধ্যাপকের গল্প তুলে ধরবো।

চীন-বেলারুশ উচ্চশিক্ষার সহযোগিতা

বেলারুশের জনসংখ্যা মাত্র ৯০ লাখের একটু বেশি, তবে দেশটির শিক্ষা সম্পদ ও ভিত্তি অনেক সমৃদ্ধ। দেশটির ৫১টি বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে দক্ষ ব্যক্তিদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। এর মধ্যে রয়েছে মেডিকেল ডিভাইস, তথ্য টেলিযোগাযোগ, পরমাণু জ্বালানি সম্পদ, রোবট ইত্যাদি, যা বিভিন্ন দেশের শিক্ষার্থীদের আকৃষ্ট করে থাকে।

চীন ও বেলারুশ সরকারের যৌথ প্রয়াসে ২০১৯ সালকে চীনে 'বেলারুশের শিক্ষা বর্ষ' হিসেবে নির্ধারণ করা হয়। 'এক অঞ্চল, এক পথ' উদ্যোগের গুরুত্বপূর্ণ বিনিময় অনুষ্ঠান হিসেবে দেশ দু'টি এক বছরের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক শিক্ষা বিনিময় ও সহযোগিতার জোরদার করবে এবং শিক্ষা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ও দক্ষ ব্যক্তিদের প্রশিক্ষণে পারস্পরিক সহযোগিতা বাস্তবায়ন করবে।

সম্প্রতি বেলারুশের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপ-মন্ত্রী ইরিনা স্টারোভোয়তোভা চীনা সাংবাদিকদের কাছে সাক্ষাত্কার দেওয়ার সময় বলেন, ২০১৮ সাল হলো বেলারুশ ও চীনের কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের ২৫তম বার্ষিকী। গত ২৫ বছরে দু'দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নয়ন দ্রুত ও স্থিতিশীল, যা কৌশলগত অংশীদারি সম্পর্ক পর্যায়ে উন্নীত হয়েছে। শিক্ষা বর্ষের মাধ্যমে দ্বিপাক্ষিক শিক্ষা বিনিময় জোরদার করা হবে বলে তিনি আশা করেন। ইরিনা বলেন,

'আমি আশা করি চীনা জনগণ আমাদের দেশ সম্পর্কে আরো বেশি জানতে পারবে। তারা বেলারুশের মানুষের অতিথিপরায়ণতা, সুদীর্ঘকালের ইতিহাস ও সংস্কৃতি জানতে পারবে, জানতে পারবে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা সম্পর্কেও।'

বর্তমানে দু'দেশের মধ্যে ৩৫০টিরও বেশি উচ্চবিদ্যালয় পর্যায়ের বিনিময় চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে, গড়ে উঠেছে কার্যকর সহযোগিতামূলক ব্যবস্থা। এসব কাঠামোতে দু'পক্ষের উচ্চবিদ্যালয়গুলোতে যৌথভাবে বিজ্ঞান গবেষণা প্রকল্প চালু করা, শিক্ষার্থীদের বিনিময় এবং শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান ও পরীক্ষাগার স্থাপন করা হয়েছে। এ সম্পর্কে উপ-মন্ত্রী ইরিনা বলেন, সম্প্রতি দু'দেশের বিজ্ঞানীরা বেলারুশের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এক পেশাগত সেমিনার আয়োজন করেন, এতে তারা বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। ইরিনা বলেন,

'সেমিনারে দু'দেশের বিজ্ঞান উন্নয়ন পরিকল্পনার বাস্তবায়ন, নতুন ধরনের প্রক্রিয়াকরণ কারখানা নির্মাণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির গবেষণায় দু'পক্ষের সহযোগিতামূলক ভূমিকা নিয়েও আমরা আলোচনা করেছি।'

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির গবেষণায় সুষ্ঠু বিনিময় ও সহযোগিতা চালিয়ে যাচ্ছে চীন ও বেলারুশ, সেই সঙ্গে দু'দেশের শিক্ষার সহযোগিতায় অনেক সাফল্য অর্জিত হয়েছে। ২০১৭ সালের মার্চ মাসে চীনের তালিয়ান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং বেলারুশ রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌথ উদ্যোগে একটি একাডেমি প্রতিষ্ঠিত হয়। এই প্রক্রিয়ায় দু'টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শ্রেষ্ঠ শিক্ষা সম্পদ ও আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি গবেষণা দলের মাধ্যমে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ের শ্রেষ্ঠ দক্ষ ব্যক্তিদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। এ সম্পর্কে ইরিনা বলেন,

'এ একাডেমির মূল দায়িত্ব হলো পরমাণু, পদার্থবিদ, গণিত ও তথ্য প্রযুক্তি, যন্ত্র বিজ্ঞান ও স্বয়ংক্রিয় নিয়ন্ত্রণসহ বিভিন্ন খাতের দক্ষ ব্যক্তিদের প্রশিক্ষণ দেওয়া। শিক্ষার্থীরা দু'দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি পেতে সক্ষম।'

গত বছরের অগাস্ট মাসে দু'দেশের সরকারি পর্যায়ের সহযোগিতা কমিটির শিক্ষা শাখা কমিটির চতুর্থ সম্মেলন বেইজিংয়ে আয়োজিত হয়। ওই সম্মেলনে দ্বিপাক্ষিক শিক্ষা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি গবেষণা ও যুবকদের সহযোগিতার দিক নির্ধারিত হয়। এছাড়া, দু'দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে বিনিময় নিয়েও আলোচনা করা হয়। ২০১৯ সালে পঞ্চম সম্মেলন বেলারুশে আয়োজিত হবে। এ সম্পর্কে ইরিনা আরো বলেন,

'এ সম্মেলন চলাকালে দু'দেশের শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান ডিগ্রির সার্টিফিকেটের পারস্পরিক স্বীকৃতি চুক্তি স্বাক্ষর করবে বলে আশা করা হয়। বর্তমানে সম্মেলনের প্রস্তুতি কাজ চলছে। এ চুক্তি সফল হলে সার্বিকভাবে দু'দেশের শিক্ষা সহযোগিতার সম্ভাবনা আরো উন্নত হয়ে উঠবে এবং দু'দেশের জনগণের মৈত্রীও গভীরতর হবে।'


1  2  
© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040