Web bengali.cri.cn   
চীনের প্রি-স্কুল শিক্ষাদান সম্পর্কে এনপিসি ও সিপিপিসিসি'র সদস্যদের প্রস্তাব
  2018-04-23 15:45:29  cri

 


সুপ্রিয় শ্রোতাবন্ধুরা, সবাই ভালো আছেন? সুদূর বেইজিং থেকে আপনাদের আন্তরিক প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি চীন আন্তর্জাতিক বেতার (সিআরআই) বাংলা বিভাগের নিয়মিত সাপ্তাহিক আয়োজন 'বিদ্যাবার্তা' অনুষ্ঠান। আর এ আয়োজনে আপনাদের সঙ্গে রয়েছি সুবর্ণা ও টুটুল।

বন্ধুরা, মার্চ মাসে বেইজিংয়ে চীনের ত্রয়োদশ জাতীয় গণকংগ্রেস (এনপিসি) ও গণরাজনৈতিক পরামর্শ সম্মেলন (সিপিপিসিসি)-র অধিবেশন আয়োজিত হয়। এতে চীনের প্রি-স্কুল শিক্ষাদান সম্পর্কে সদস্য ও প্রতিনিধিরা ব্যাপক মতামত ও পরামর্শ দেন।

আজকের অনুষ্ঠানের শুরুতে আপনারা চীনের প্রি-স্কুল শিক্ষাসংক্রান্ত কিছু তথ্য শুনবেন। এরপর শুনবেন ঐতিহ্যবাহী চীনা সংস্কৃতি প্রসারে গৃহীত কিছু উদ্যোগ

১. ২০২০ সালে চীনে কল্যাণমূলক কিন্ডারগার্টেনের পরিমাণ দাঁড়াবে ৮০ শতাংশেরও বেশি

চীনের শিক্ষামন্ত্রী ছেন বাও শেং ত্রয়োদশ এনপিসি'র প্রথম অধিবেশনের সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, অব্যাহতভাবে প্রি-স্কুলের শিক্ষাদান সমস্যা সমাধান করতে হবে এবং ২০২০ সালে দেশের ব্যাপক কল্যাণমূলক কিন্ডারগার্টেন মোট সংখ্যার ৮০ শতাংশে দাঁড়াবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী ছেন বলেন, গত ৫ বছরে চীনের প্রি-স্কুল শিক্ষাদানের সেবাদক্ষতা অনেক উন্নত হয়েছে, কিন্ডারগার্টেনের সংখ্যা ২ লাখ ৫৫ হাজারটিতে এবং শিশুদের ভর্তির হার ৭৯.৬ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। প্রি-স্কুলের শিক্ষাদানে চীন সরকারের বরাদ্দও ব্যাপক বেড়েছে। তবে প্রি-স্কুল শিক্ষাদানে অনেক চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হচ্ছে। তিনি বলেন,

'আমাদের বহু কিন্ডারগার্টেনের মধ্যে ব্যাপক কল্যাণকর প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা যথেষ্ট নয়, এই সমস্যা সমাধান করতে হবে। আর্থিক নিশ্চয়তা ও খরচ ভাগাভাগি ব্যবস্থা নির্মিত হয়নি এবং এ সমস্যা সমাধান করতে হবে। কিন্ডারগার্টেনের নার্সিং কর্মীদের সংখ্যা যথেষ্ট নয় এবং তাদের শিক্ষার মানও উন্নত করা প্রয়োজন। নার্সিং প্রক্রিয়ায় প্রশাসন ও নিরাপত্তা ইস্যুতে অনেক দুর্বলতা রয়েছে, তা সমাধান করতে হবে। আরো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল বাচ্চাদের শিক্ষাদানের চিন্তাধারা ও দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন করতে হবে'।

এর সঙ্গে সঙ্গে কিন্ডারগার্টেনের তত্ত্বাবধান, বিভিন্ন কিন্ডারগার্টেনের গুণগতমান ও প্রশাসন জোরদার করতে হবে বলে উল্লেখ করেন শিক্ষামন্ত্রী ছেন। কিছু কিছু কিন্ডারগার্টেনের লেখাপড়ার বিষয়ে তিনি বলেন, কিন্ডারগার্টেনের মূল বিষয় খেলাধুলা, বই পড়ানো নয়। বাচ্চাদের জন্য সুশৃঙ্খল আরামদায়ক পরিবেশ গড়ে তোলা প্রয়োজন এবং কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষকদের সংশ্লিষ্ট বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিতে হবে ও তাদের বেতন বাড়াতে হবে।

২. প্রি-স্কুল শিক্ষকদের যোগ্যতা ও অবস্থান উন্নত করা সম্পর্কে সিপিপিসিসি'র সদস্যদের প্রস্তাব

শিশুরা একটি দেশের ভবিষ্যত, স্বপ্ন। তাদের যত্নের ব্যাপারে চলতি বছরের 'দুই অধিবেশনে' ব্যাপক মনোযোগ দেওয়া হয়েছে। প্রি-স্কুলের শিক্ষাদান সম্পর্কে ধারাবাহিক উদ্যোগ পেশ করেছেন সিপিপিসিসি'র সদস্যরা।

বেইজিং নর্ম্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক লিউ ইয়ান ২০০৮ সালে সিপিপিসিসি'র সদস্যে পরিণত হন। গত ১০ বছরের মধ্যে প্রি-স্কুল শিক্ষাদান একটি অপরিচিত বিষয় থেকে বিভিন্ন সদস্য ও প্রতিনিধিদের ব্যাপক মনোযোগী বিষয়ে পরিণত হয়েছে। এ সম্পর্কে লিউ বলেন, চলতি বছরের সরকারি কার্যবিবরণীতে 'প্রযুক্তিগত পদ্ধতিতে তত্ত্বাবধান জোরদার করা' এমন কথা উল্লেখ করা হয়েছে। এটি শুধু বাচ্চাদের অধিকার রক্ষার এক ধরনের সহায়ক পদ্ধতি, তবে মূল সমস্যা সমাধান করতে সক্ষম নয়। তিনি বলেন,

'বর্তমানে চীনের কিন্ডারগার্টেনে শিক্ষক-সম্পর্কিত তিনটি সমস্যা রয়েছে। যেমন- কিন্ডারগার্টেনগুলোতে শিক্ষক শিক্ষিকার সংখ্যা কম, তাদের গুণগতমান দুর্বল এবং বেতনও কম। এ তিনটি সমস্যার যৌথ প্রভাবে কিছু নেতিবাচক সমস্যা দেখা দেয়। তাই বর্তমানে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো এ সমস্যা সমাধান করা। শিক্ষকদের মান উন্নত করা জরুরি। এ সমস্যার মূল কারণ কি? আমার ধারণায় দীর্ঘকাল ধরে কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষাদান আর শিক্ষকদের পেশাগত যোগ্যতার যে গুরুত্ব বা স্বীকৃতি তা যথেষ্ট নয়। প্রি-স্কুলের সুষ্ঠু পরিবেশ গড়ে তুলতে গোটা সমাজের সমর্থন ও মনোযোগ প্রয়োজন, অবশ্যই সরকারের গুরুত্বও অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।'

প্রি-স্কুলের শিক্ষকদের পেশাগত যোগ্যতা সম্পর্কে সদস্য লিউ তাঁর ধারণা ব্যাখ্যা করেন। কিন্ডারগার্টেনের একজন শিক্ষক হিসেবে শুধু বাচ্চাদের সাথে ভালোভাবে খেলাধুলা করা, তাদের যত্ন নেওয়া বা তাদের সাথে গান গাওয়াই যথেষ্ট নয়, বাচ্চাদের আচরণ ও কথা থেকে তাদের চাহিদা, শখ ও চিন্তাভাবনা বুঝতে হবে। বাচ্চাদের ব্যক্তিগত বৈশিষ্ট্য অনুসারে শিক্ষা দেওয়া উচিত। তিনি বলেন,

'কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষকদের কাজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকদের কাজের তুলনায় সহজ নয়। প্রি-স্কুলের শিক্ষাদান সম্পর্কে সবার প্রত্যাশা থেকে বোঝা যায়, বাচ্চাদের যত্ন নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তাদেরকে প্রি-স্কুলের শিক্ষা দিতে হবে। এ পেশাগত যোগ্যতা কিভাবে অর্জন করা যায়? যেমন সাধারণ জীবনে কিন্ডারগার্টেনে বাচ্চাদের থাকা, খাওয়া ও খেলাধুলাসহ বিভিন্ন আচরণ পর্যবেক্ষণ করে ভিন্ন ভিন্ন বাচ্চার ভিন্ন ভিন্ন চাহিদা খুঁজে বের করা, যথাযথভাবে সাড়া দেওয়া ও তাদের যুক্তিযুক্তভাবে শিক্ষা দেওয়া। খেলনা বা বইসহ বিভিন্ন পদ্ধতিতে বাচ্চাদের জীবনযাপনের বস্তু বা ঘটনা পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণের দক্ষতা তৈরি করতে প্রশিক্ষণ দেওয়া উচিত। বাচ্চাদের বই পড়া, কল্পনা, চিন্তাশক্তি ও আবিষ্কারসহ বিভিন্ন দক্ষতার প্রতি উত্সাহ দেওয়া, তাদের সৃজনশীলতাবিষয়ক প্রশিক্ষণ দেওয়া এবং বাচ্চাদের সাথে খেলার সময় অন্যদের সাথে মিলেমিশে থাকা ও একে অপরকে সাহায্য করা এমন সামাজিক মূল্যবোধের ওপর গুরুত্ব দেওয়া উচিত। সাধারণ জীবনযাপনে বাচ্চাদের গুরুত্বপূর্ণ কিছু অভ্যাস যেমন স্বাস্থ্যের যত্ন, লেখাপড়া, অনুসন্ধান ও চিন্তার অভ্যাস তৈরি করা, এসব বিষয় কোনো একজন নার্স কর্মী সম্পন্ন করতে সক্ষম নয়।'

বর্তমানে কিন্ডারগার্টেনগুলো অস্থায়ী নিয়োগের ভিত্তিতে শিক্ষকদের ঘাটতি পূরণ করে থাকে। এর ফলে একটি বৈষম্য তেরি হয়। প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত হয়েও স্থায়ী শিক্ষকদের বেতন অস্থায়ী শিক্ষকদের চেয়ে অনেক বেশি। অর্থাত্ একই কাজ করলেও তাদের বেতন সমান নয়। ফলে শিক্ষকদের মধ্যে ব্যাপক অসন্তোষ দেখা দেয়। এ সম্পর্কে সদস্য লিউ বলেন, কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষকদের বেতন কম হওয়ার কারণে তারা পেশাদার ব্যক্তিদের আকর্ষণ করতে সক্ষম নয়। একইসঙ্গে অস্থায়ী শিক্ষকদের চাকরিতে অস্থিতিশীলতা থাকার কারণে তারা বেশ উদ্বিগ্ন থাকেন, যা বাচ্চাদের মানসিক ও শারীরিক উন্নয়নে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। তিনি বলেন,


1  2  
© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040