Web bengali.cri.cn   
সুর ও বাণী: 'বিগ ফিশ অ্যান্ড বিগোনিয়া'
  2016-07-19 21:04:47  cri


প্রিয় শ্রোতাবন্ধুরা, আপনারা চীন আন্তর্জাতিক বেতারের বাংলা অনুষ্ঠান শুনছেন। আমি আনন্দি বেইজিং থেকে আপনাদের আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি 'সুর ও বাণী' আসর। আজ আপনাদের কাছে চীনের দু'টি জনপ্রিয় কার্টুন ছবির পরিচয় তুলে ধরবো।

৮ জুলাই চীনের নতুন কার্টুন ছবি 'বিগ ফিশ অ্যান্ড বিগোনিয়া' মুক্তি পেয়েছে। ছবিতে বলা হয়েছে, সকল মানবজাতির আত্মা সমুদ্রের বিশাল মাছ ছিল। জন্মগ্রহণের সময় সমুদ্রের এক পার থেকে যাত্রা শুরু করে, মৃত্যুর সময় আরেক পারে ডুবে যায়। তারপর এক ঘুমন্ত ছোট মাছে পরিণত হয়। বহু বছর পর আবার যাত্রা শুরু করে, এ যাত্রা কখনো শেষ হয় না। চলতে থাকে অবিরাম। লিয়াং শুয়েন এবং চাং ছুন যৌথভাবে এ কার্টুন ছবিটি নির্মাণ করেন।

বন্ধুরা, এখন শুনুন 'বিগ ফিশ অ্যান্ড বিগোনিয়া' কার্টুন ছবির গান 'বিগ ফিশ'। গেয়েছেন চৌ শেন। তিনি গেয়েছেন, 'সমুদ্র তরঙ্গ আকাশের সীমানায় ডাক দিয়েছে। বড় মাছ স্বপ্নের ফাঁকে উড়ে বেড়ায়। তোমার ঘুমন্ত মুখ একদৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকে। দেখো, সমুদ্র ও আকাশের রং একই। বাতাস বইছে, বৃষ্টি পড়ছে। তোমার হাত ধরে এ বিশ্বে থাকতে চাই। আমি ভয় পাই, তুমি চলে যাবে, আমার কাছ থেকে বিদায় নেবে। প্রতিটি অশ্রু তোমার জন্য পড়তে থাকে। আমাদের প্রথম মিলিত হবার মুহূর্তে ফিরে যেতে চাই।'

'বিগ ফিশ ও বিগোনিয়া' ছবির প্রধান চরিত্র হলো 'ছুন' নামে এক পরী। সে তার ১৬তম জন্মদিনে একটি ডলফিনের রূপ নিয়ে পৃথিবীতে আসে। সমুদ্রে মাছ ধরা জালে আটকে পড়ে। মানবজাতির এক ছেলে ছুনকে উদ্ধার করার জন্য গভীর সমুদ্রে পড়ে মারা যায়। এ ছেলের নাম খুন। খুনকে পুনরুজ্জীবিত করার জন্য ছুন নিজের বিশ্বের নানা কঠিন অবস্থা ও বাধা বিঘ্ন অতিক্রম করে।

ছিউ হচ্ছে প্রধান চরিত্র ছুনের বন্ধু। দু'জন ছোটবেলা থেকে একসাথে বড় হয়েছে। ছিউ'র বাবা-মা নেই। দাদির কাছে বড় হয়েছে সে। ছিউ ছুনের বন্ধুত্বকে খুব গুরুত্ব দিতো। যখন ছুন বড় মাছ খুনকে পুনরুজ্জীবিত করার চেষ্টা করেছে তখন ছিউ ঝুঁকি নিয়ে তাকে সাহায্য করেছে। যদিও ছিউ ছুনকে ভালোবাসে, কিন্তু ছুন কেবল খুনকে পুনরুজ্জীবন দিতে চায়। ছিউয়ের প্রেম বুঝতে পারে না। অবশেষে ছিউ নিজের প্রাণ দিয়ে ছুনকে বিশ্বে পাঠায়। তার শেষ কথা ছিল, 'আমি বিশ্বের বাতাস ও বৃষ্টি হয়ে সবসময় তোমার পাশে থাকবো।'

বন্ধুরা, এ বার শুনুন 'বিগ ফিশ ও বিগোনিয়া' কার্টুন ছবির সমাপনী গান। গানের কথা লিখেছেন এ ছবির পরিচালক লিয়াং শুয়েন (梁旋)। গেয়েছেন শুয়ে চিয়া ইং। গানটিতে ছবির অন্যতম চরিত্র ছিউ'র নিয়তি ব্যাখ্যা করা হয়েছে। এ গানে আমরা ছিউ'র মনের হাজার বছরের নিঃসঙ্গতা অনুভব করি।

২০০৪ সালে পরিচালক লিয়াং শুয়েন একটি স্বপ্ন দেখেন। পরের বছর তিনি চাং ছুনের সঙ্গে পিআনথিয়ান নামে এক চলচ্চিত্র কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করেন। তারা চেয়েছেন, এ সুন্দর স্বপ্ন চলচ্চিত্রে রূপান্তর করবেন। এ কার্টুন ছবির চিত্রনাট্য লিখতে দু'তিন বছর সময় লেগেছে। কিন্তু ২০১০ সালে অর্থ ঘাটতির কারণে এ ছবি তৈরির কাজ বন্ধ হয়ে যায়। ২০১৩ সালে তারা বরাদ্দ পেয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এ কার্টুন ছবি নির্মাণের প্রক্রিয়া শুরু করেন।

বন্ধুরা, এখন আপনারা শুনছেন এ কার্টুন ছবির থিম সং 'এ পৃথিবীতে মিলিত হই'। গানের কথা লিখেছেন থিয়েন সিয়াও ফাং, সুর করেছেন তো ফাং, গেয়েছেন চেন ঈ শুন।

গানে বলা হয়েছে, "তুমি বাতাস ও বৃষ্টির রূপ নিয়ে সময় পার হয়ে আমাদের মিলিত হওয়ার জায়গায় ফিরে এসেছো? তোমাকে স্বপ্ন থেকে ঘুম ভেঙ্গে জাগাতে চাই না। প্রতিটি মানুষ আবার মিলিত হতে পারে। জীবনের যাত্রা অবিরাম চলতে থাকে। আমার প্রতিটি স্বপ্নে আছো তুমি।'

1 2
© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040