Web bengali.cri.cn   
যুদ্ধাপরাধ তদন্তে শ্রীলংকায় জানুয়ারিতে বিশেষ আদালত
  2015-12-11 19:40:09  cri

প্রিয় শ্রোতাবন্ধুরা, পেইচিং থেকে প্রচারিত চীন আন্তর্জাতিক বেতারের বাংলা অনুষ্ঠানে আপনাদের স্বাগতম। সবাইকে আন্তরিক প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি আজকের 'চলতি প্রসঙ্গ' অনুষ্ঠান।

বন্ধুরা, এ অনুষ্ঠানে আপনাদের জন্য তুলে আনা হয়েছে পৃথিবীর নানা প্রান্তে ঘটে যাওয়া কিছু ঘটনা। আর এ আয়োজনে আপনাদের সঙ্গে আছি আমি প্রকাশ এবং আমি আইরীন নিয়াজী মান্না।

প্রকাশ : তাহলে মান্না আপা আজ আমরা কি কি খবর নিয়ে আলোচনা করবো।

মান্না : ধন্যবাদ প্রকাশ। বাছাই করা কয়েকটি সংবাদ দিয়েই আজ আলোচনা করা যাক। আপনিই শুরু করুন।

প্রকাশ : প্রথম খবর : চীনে খুলে দেওয়া হল সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে সবচেয়ে উঁচুতে নির্মিত সুরঙ্গপথ

সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে সবচেয়ে উঁচুতে নির্মিত একটি সুরঙ্গপথ সম্প্রতি খুলে দেওয়া হয়েছে চীনের ছিং হাই প্রদেশের ইউয়ু সু তিব্বত জাতি স্বায়ত্বশাসিত অঞ্চলে। সুরঙ্গটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে গড়ে ৪৪৯৯.৯৮ মিটার উঁচুতে অবস্থিত। পৃথিবীর আর কোনো সুরঙ্গপথ সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে এতো উঁচুতে অবস্থিত নয়।

ছাং লা সান নামক এই সুরঙ্গপথটির দৈর্ঘ্য ২৪০০ মিটার। সুরঙ্গটি খুলে দেওয়ায় ১৫৯.৮ কিলোমিটার দীর্ঘ তুও লা মা কো-চিয়া তো মহাসড়ক পরিপূর্ণভাবে চালু হলো।

মান্না : দ্বিতীয় খবর : যুদ্ধাপরাধ তদন্তে শ্রীলংকায় জানুয়ারিতে বিশেষ আদালত

০১ ডিসেম্বর,২০১৫

শ্রীলংকায় এক দশক ধরে চলা জাতিগত যুদ্ধের চূড়ান্ত পর্যায়ে সংঘটিত বড় ধরনের নৃশংসতার ঘটনা তদন্তে আগামী বছরের শুরুতে একটি বিশেষ যুদ্ধাপরাধ আদালত কাজ শুরু করতে যাচ্ছে। মঙ্গলবার দেশটির জাতীয় ঐক্য ও মীমাংসা দফতরের প্রধান এবং সাবেক প্রেসিডেন্ট চন্দ্রিকা কুমারাতুঙ্গা এ কথা বলেন। খবর রয়টার্সের

তিনি বলেন,'২০০৯ সালের মে মাসে শেষ হওয়া ৩৭ বছর ধরে চলা সংঘাতের শিকারদের জন্য ন্যায় বিচার নিশ্চিত করা ছাড়া তার কাজ শেষ হতে পারে না। প্রায় সাত বছর আগে আমরা যুদ্ধটি শেষ করেছি। কিন্তু আমরা শান্তি জয় করতে পারিনি। অতীতের ভুল স্বীকার করা ছাড়া কোনো মীমাংসা সম্ভব নয়'।

তিনি বলেন,'যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের সম্মুখীন করা না হলে তামিল বিচ্ছিন্নতাবাদী সংঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত হাজার হাজার মানুষ মীমাংসা মেনে নেবে না। ফলে জানুয়ারির মধ্যেই একটি বিশেষ আদালত কাজ শুরু করতে যাচ্ছে'।

গত সেপ্টেম্বরে যুদ্ধাপরাধের বিচারের আহ্বান জানিয়ে জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদ গত সেপ্টেম্বরে একটি প্রস্তাব পাস করে। দু'মাস পর জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদ সে প্রস্তাব বাস্তবায়নে শ্রীলংকার অগ্রগতি পর্যালোচনা করার কথা রয়েছে।

কুমারাতুঙ্গা বলেন, 'বিশাল পরিমান কাজ সম্পাদন করা হয়েছে এবং বিশেষ আদালত এ মাসের শেষ বা জানুয়ারির গোড়ার দিকে কাজ শুরু করবে। আদালত প্রতিটি সৈন্যের বিষয়ে তদন্ত করবে না, কিন্তু প্রধান 'লাইন অব কমান্ড'-এর ব্যাপারে তদন্ত হবে। বেঁচে থাকা তামিল বিদ্রোহী নেতাদেরও 'ভয়ংকর অপরাধ'-এর অভিযোগ প্রশ্নে জবাবদিহি করা হবে'।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনগুলো এবং তামিলরা শ্রীলংকার যুদ্ধাপরাধ তদন্তে আন্তর্জাতিক বিচারক ও আইনজীবীদের সংশ্লিষ্ট করার দাবি জানিয়ে আসছে। কিন্তু দেশটির সরকার দৃঢ়তার সাথে সেটি প্রত্যাখ্যান করছে।

কুমারাতুঙ্গা বলেন,তিনি ব্যক্তিগতভাবে বিশ্বাস করেন যে,স্বাধীন বিদেশী বিচারকদের সম্পৃক্ত করা শ্রেয়,যেমনটি গত অক্টোবরে জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদের গৃহীত প্রস্তাবে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

শ্রীলংকার রক্তক্ষয়ী গৃহযুদ্ধের সময় সরকার ও বিদ্রোহী উভয় পক্ষই বেসরকারি নাগরিকদের টার্গেট করেছে বলে অভিযোগ করে থাকে স্থানীয় আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলো। ১৯৭২ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত চলা এ সংঘাতে অন্তত ১ লাখ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে।

২০০৯ সালে যুদ্ধ শেষে হওয়ার দুই মাস আগে সরকারি বাহিনী যখন বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে এক সর্বাত্মক অভিযান শুরু করে তখন বেশ কয়েকটি মারাত্মক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ সংঘটিত হয়। মানবাধিকার সংগঠনগুলোর মতে এ সময় হাজার হাজার মানুষ নিহত হয়েছে।

১৯৯৪ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত শ্রীলংকার শাসন ক্ষমতায় থাকা কুমারাতুঙ্গা বলেন, 'তার দফতর কয়েক দশকব্যাপী চলা গৃহযুদ্ধ অবসানের পর জাতিগত শান্তি নিশ্চিত করতে দেশের সংখ্যাগুরু সিংহলী ও সংখ্যালঘু তামিলদের মধ্যে সেতুবন্ধ রচনা করতে কাজ করছে। কেনন�� মীমাংসা ও জবাবদিহিতা অঙ্গাঅঙ্গি জড়িত। দুটোর একটা ছাড়া অন্যটা হয় না।

প্রকাশ : তৃতীয় খবর : চীনা মুদ্রা আন্তর্জাতিক বাজারে ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা পাবে: ইন্দোনেশীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক

আন্তর্জাতিক বাজারে চীনের মুদ্রা ইউয়ান বা রেনমিনপি ব্যাপক স্বীকৃতি ও গ্রহণযোগ্যতা পাবে। সম্প্রতি এ মন্তব্য করেছেন ইন্দোনেশিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন উপ-গভর্নর মির্জা আদিতিয়াসোয়ারা।

স্থানীয় গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক মুদ্রা হবার সব ধরনের গুণ আছে আরএমবি'র। কারণ, চীন বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতি। আরএমবি ইন্দোনেশিয়ার অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।


সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদন
মন্তব্য
Play
Stop
ওয়েবরেডিও
বিশেষ আয়োজন
অনলাইন জরিপ
লিঙ্ক
© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040