Web bengali.cri.cn   
মুজিববর্ষের ক্ষণগণনা শুরু : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিকনির্দেশনামূলক ভাষণ
  2020-01-12 19:14:15  cri

১০ জানুয়ারি বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষের বর্ষব্যাপী বরণানুষ্ঠান-তথা মুজিববর্ষের ক্ষণগণনা। বছরধরে জাতির এ মহানায়ককে নানা অনুষ্ঠান-আয়োজনে স্মরণ করবে জাতি। আর মুজিববর্ষকে সমানে রেখে গত ৭ জানুয়ারি বর্তমান সরকার গঠনের প্রথম বর্ষপূর্তিতে জাতির উদ্দেশ্যে দিকনির্দেশনামূলক ভাষণ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজকের সংবাদ পর্যালোচনায় আমরা নজর দেব বিষয়গুলো দিকে।

১০ জানুয়ারি বিকালে রাজধানীর জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে অবতরণ করে ১৯৭২ সালের একই দিন বঙ্গবন্ধুকে বহনকারী প্রতীকী বিমান। লেজারে ফুটিয়ে তোলা হয় ঐতিহাসিক সেই মুহূর্তটিকে। ২১ বার তোপধ্বনি আর সশস্ত্রবাহিনীর চৌকস দলের গার্ড অব অনার। মনে হয় যেন ১৯৭২ সালের সেই মাহেন্দ্রক্ষণটি ফিরে এলো আবার। বাটন চেপে মুজিববর্ষের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সঙ্গে ছিলেন বঙ্গবন্ধুর আরেক কন্যা শেখ রেহানা ও নাতি সজীব ওয়াজেদ জয়। ছিলেন বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের সঙ্গী ড. কামাল হোসেন, একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, ড. রেহমান সোবহানসহ বিশিষ্টজনেরা।

মুজিব শতবর্ষের স্মারক হয়ে আকাশে উড়লো শত পায়রা। মুজিববর্ষের লোগোও উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। চলতি বছরের ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মের প্রথম প্রহর পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন স্থানে একযোগে চলছে এই ক্ষণগণনা।

অনুষ্ঠানে আবেগঘন বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বলেন, বিজয়ের যে আলোকবর্তিকা জাতির পিতা তুলে দিয়েছেন, সে মশাল হাতেই আগামীর পথে চলবে বাংলাদেশ। প্রধানমন্ত্রী বলেন, পরবর্তীতে ইতিহাসের যে কালো অধ্যায় রচিত হয়েছিল তাকে পিছনে ফেলে আবার আলোন পথে চলতে শুরু করেছে দেশ। বাংলাদেশ বিশ্বে মাথা ঊঁচু করে চলবে, গড়ে উঠনে জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ-এমন দৃঢ় প্রত্যয় উচ্চারিত হয় প্রধানমন্ত্রীর কণ্ঠে।

এদিকে, টানা তৃতীয় মেয়াদে সরকার গঠনের বর্ষপূর্তিতে গত ৭ জানুয়ারি জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অর্থনৈতিক মুক্তি ও জীবনমানের উন্নয়নসহ জনগণের সকল মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে তার সরকার কাজ করে যাচ্ছে বলে জানান সরকার প্রধান। তার ওপর ভরসা রাখতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। বলেন মানুষের মুখে হাসি ফোটানোই তার লক্ষ্য।

আওয়ামী লীগ সরকার টানা কয়েকটি মেয়াদে ক্ষমতায় থাকায় সামাজিক সূচকে বাংলাদেশ অভাবনীয় অগ্রগতি লাভ করেছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী। দুর্নীতির বিরুদ্ধ যে শুদ্ধি অভিযান শুরু হয়েছে তা অব্যাহত থাকবে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী। বলেন, দুর্নীতিবাজ যে-ই হোক কাউকে রেহাই দেওয়া হবে।

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতির কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অর্থনীতি আজ মজবুত ভিতের ওপর প্রতিষ্ঠিত। অর্থনৈতিক অগ্রগতির সূচকে বাংলাদেশ আজ বিশ্বের ৫টি দেশের অন্যতম বলে জানান তিনি।

প্রতিবেশি দেশসহ বহিঃবিশ্বের সঙ্গে বাংলাদেশ সবসময় সুসম্পর্ক বজায় রেখে চলার নীতিতে অবিচল বলে জানান শেখ হাসিনা। বলেন, আলোচনার মাধ্যমে রোহিঙ্গাসহ সকল সমস্যা সমাধান করা হবে। জাতির পিতার জন্মশতবর্ষে দলমত নির্বিশেষে সকলে মিলে ক্ষুধা, দারিদ্র্য ও নিরক্ষরতামুক্ত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ঢাকা থেকে মাহমুদ হাশিম।

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040