Web bengali.cri.cn   
সুরের ধারায়----ফেই ইয়ু ছিং
  2019-11-14 14:11:25  cri


বন্ধুরা, আজকের অনুষ্ঠানে চীনের তাইওয়ানের একজন জনপ্রিয় গায়ক ও উপস্থাপক ফেই ইয়ু ছিংয়ের সঙ্গে আপনাদের পরিচয় করিয়ে দেবো। তাওয়ানের প্রতিনিধিত্বকারী গায়কের মধ্যে অন্যতম। অনেক বছর ধরে তার গান ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে আছে। তবে সম্প্রতি তিনি নিজের শেষ কনসার্টের আয়োজন করেন এবং অবসর গ্রহণের ঘোষণা দেন। বন্ধুরা, আজকের অনুষ্ঠানে আমরা একসঙ্গে তার সংগীত জীবনের কিছু ক্লাসিক গান শুনবো।

ফেই ইয়ু ছিং ১৯৫৫ সালে চীনের তাইওয়ানের তাইপেই শহরের একটি সাধারণ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। বাবা-মা'র বিবাহবিচ্ছেদের পর তার জীবনে দারিদ্র্য নেমে আসে। টাকা উপার্জন করার জন্য মাধ্যমিক স্কুল থেকেই বারসহ বিভিন্ন জায়গায় গান গাওয়া শুরু করেন তিনি। ১৮ বছর বয়সে ফেই ইয়ু ছিং তাইওয়ানের একটি সংগীত প্রতিযোগিতায়ে অংশ নেন এবং চতুর্থ পুরস্কার জয় করেন। এরপর অনেকে তাকে জানা শুরু হয়। ১৯৭৭ সালে এক বিখ্যাত সুরকারের সুপারিশে ফেই ইয়ু ছিং হাই শান সংগীত কোম্পানিতে যোগ দেন।

১৯৭৭ সালে ফেই ইয়ু ছিং তার প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ করেন। বন্ধুরা, এখন শুনুন অ্যালবামের একটি সুন্দর গান 'আমার মনে ভালোবাসার বীজ অঙ্কুরিত হয়'। গান ১

ফেই ইয়ু ছিংয়ের প্রথম অ্যালবাম শুধু চীনে নয়, বিদেশেও অনেক জনপ্রিয় হয়েছে। এরপর তিনি সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ায় দু'টি অ্যালবাম প্রকাশ করেন এবং তা সফল হয়। তার গানে আছে ক্লাসিক সংগীতের নরম সুর এবং পপ সংগীতের উষ্ণ আবেগ, আর এ দুটি বৈশিষ্ট্য তার সুন্দর কণ্ঠের সঙ্গে মিলে অনেক আকর্ষণীয় হয়েছে। এ কারণে তার গান চীনে ব্যাপক জনপ্রিয়। ১৯৮১ সালে ফেই ইয়ু ছি তাইওয়ানের সবচেয়ে জনপ্রিয় গায়কের মর্যাদা পান।

বন্ধুরা, এখন শুনুন ১৯৮১ সালে প্রকাশিত তার একটি সুন্দর গান 'আমি'। গান ২

১৯৮৪ সালে ফেই ইয়ু ছিং অ্যালবাম 'মেং থৌ লিং' বা 'স্বপ্নের ক্যামেল বেলস' প্রকাশ করেন। তিনি এ গানটির জন্য সে বছর তাইওয়ানের গোল্ডেন বেল অ্যাওয়ার্ডসের শ্রেষ্ঠ গায়কের পুরস্কার পান। গানটি চীনের থাং রাজবংশের বিখ্যাত কবি ওয়াং ছাং নিংয়ের একটি কবিতা অনুসারে এটি রচিত হয়।

বন্ধুরা, এখন এই সুন্দর গান শুনবো। গান ৩

১৯৮৬ সালে ফেই ইয়ু ছিং টিভি নাটক 'ই চিয়ান মেই' বা 'একটি পাম ফুলের' জন্য গানটি প্রকাশ করেন। টিভি নাটকসহ গানটি বেশ জনপ্রিয় হয়েছে। গানে তুষারে ফোটা পাম ফুল দিয়ে মানুষের দৃঢ় মন ও অবিচল ভালোবাসার প্রশংসা করা হয়। ফেই ইয়ু ছিংয়ের পরিষ্কার ও নরম কণ্ঠে গানটি অনেক সুন্দর হয়েছে। এই গানের জন্য সবাই ফেই ইয়ু ছিংকে চিনেছেন। আর এই গান তার সবচেয়ে জনপ্রিয় ও প্রতিনিধিত্বকারী গানে পরিণত হয়েছে। বন্ধুরা, এখন ফাই ইয়ু ছিংয়ের গান 'ই চিয়ান মেই' শুনবো। গান ৪

ই চিয়ান মেই জনপ্রিয় হওয়ার পর ফেই ইয়ু আরও অনেক জনপ্রিয় গান গেয়েছেন। সুন্দর কণ্ঠের পাশাপাশি তার অমায়িক পারফরমেন্স শৈলীও লোকদের মনে গভীর ছাপ ফেলেছে। গত শতাব্দীর ৯০ দশকে তাইওয়ানের রাস্তা-ঘাটে তার গান শোনা যেত। ফেই ইয়ু ছিংও 'তাইওয়ানের গোল্ডেন কণ্ঠের' খেতাব পান।

বন্ধুরা, এখন শুনুন ফেই ইয়ু ছিংয়ের গাওয়া সুন্দর একটি গান 'সিন ইয়ুান ইয়াং হু তিয়ে মেং'। গান ৫

পপ সংগীত জনপ্রিয় হলে ফেই ইয়ু ছিংয়ের ক্লাসিক ও চীনা বৈশিষ্ট্যময় গান আগের মতো এত লোক শোনে না। পরিবর্তন ঘটেছে ২০০৬ সালে। সে বছর তিনি চীনের সবচেয়ে জনপ্রিয় পপ গায়ক চৌ চিয়ে লুনের সঙ্গে 'হাজার মাইল দূরে' গানটি গেয়েছেন। গানে চীনা বৈশিষ্ট্যময় সংগীত ও পপ মিউজিক এবং দুই গায়কের কণ্ঠ সুন্দরভাবে সমন্বিত হয়ে সবাইকে মুগ্ধ করেছে। গানটির মাধ্যমে ফেই ইয়ু ছিংয়ের কণ্ঠের সৌন্দর্য আবার সবার সামনে ফুটে উঠেছে।

বন্ধুরা, এখন এই সুন্দর গান 'হাজার মাইল দূরে' বা ' ছিয়ান লি চি ওয়াই' শুনবো। গান ৬

ফেই ইয়ু ছিংয়ের অবসর নেওয়ার খবর জানতে পেরে অনেকে খুব দুঃখ পেয়েছেন। চীনা সংগীতজগত একটি 'গোল্ডেন কণ্ঠ' হারাবে, তার সুন্দর গান শুনতে পাবে না! কিন্তু তার 'আপনি কখন আবার আসবেন' গানটি সব দুঃখ ঘুচিয়ে দিয়েছে। সুন্দর ফুল সবসময় ফোটে না, মিলনের পর বিরহ আসে। আপনি কখন আবার আসবেন জানি না, তাই বর্তমানের আনন্দ মূল্যায়ন করুন!

বন্ধুরা, অনুষ্ঠানের শেষে ফেই ইয়ু ছিংয়ের গান 'আপনি কখন আবার আসবেন' শুনুন, আশা করি তার সুন্দর কণ্ঠ আপনাদের ভালো লাগবে। গান ৭

(তুহিনা/তৌহিদ/ওয়াং হাইমান)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040