Web bengali.cri.cn   
রোববারের আলাপন-191103
  2019-11-03 14:16:35  cri

আকাশ: সুপ্রিয় শ্রোতা, সবাইকে স্বাগত জানাচ্ছি চীন আন্তর্জাতিক বেতারের বাংলা অনুষ্ঠানে। আপনাদের আন্তরিক প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি আমাদের সাপ্তাহিক আয়োজন 'রোববারের আলাপন'। আপনাদের সঙ্গে আছি এনামুল হক টুটুল এবং শিয়েনান আকাশ।

বন্ধুরা, সপ্তম বিশ্ব মিলিটারি গেমস ১৮ থেকে ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত চীনের উ হান শহরে আয়োজিত হয়। এ উপলক্ষে আমি উ হানে গিয়ে আপনাদের জন্য সংশ্লিষ্ট খবর ও প্রতিবেদন লিখেছি। আমরা আমাদের অনুষ্ঠানে অব্যাহতভাবে তা আপনাদের সাথে শেয়ার করবো, কেমন?

টুটুল:

সপ্তম বিশ্ব মিলিটারি গেমসের পুরুষ ফুটবলে বাহরাইনের স্বর্ণপদক জয়

২৭ অক্টোবর বিকালে উ হান হান খও সাংস্কৃতিক ও খেলাধুলা কেন্দ্রে, ২০১৯ সালের সপ্তম বিশ্ব মিলিটারি গেমসে পুরুষ ফুটবলে কাতারকে ৩-১ গোলে পরাজিত করে স্বর্ণপদক লাভ করে বাহরাইন। তা হচ্ছে ইতিহাসে বাহরাইনের প্রথম বিশ্ব মিলিটারি গেমসের পুরুষ ফুটবলের স্বর্ণ পদক।

খেলা শেষে সাংবাদিক সম্মেলনে বাহরাইনের কোচ আলামরেই আহমেদ আয়োজক দেশ চীনকে ধন্যবাদ জানান এবং এবারের বিশ্ব মিলিটারি গেমসের সাংগঠনিক কাজের ইতিবাচক মূল্যায়ন করেন। তিনি বলেন, "ধন্যবাদ, চীন, ধন্যবাদ উ হান। এবারের বিশ্ব মিলিটারি গেমসের সাংগঠনিক কাজ অনেক ভালো, সবাই অনেক চমত্কার বোধ করেছে। খেলোয়াড়দের ক্যান্টিনসহ সব ধরনের সুযোগ সুবিধা অনেক ভালো। এ স্বর্ণ হচ্ছে বাহরাইনের প্রথম বিশ্ব মিলিটারি গেমসের পুরুষ ফুটবলের স্বর্ণ পদক। আমার মনে হয়, চীন হচ্ছে আমার সৌভাগ্যের জায়গা।

বিশ্ব মিলিটারি গেমসের চীনা ক্রীড়াবিদদের অভিনন্দন জানালেন সি চিন পিং

সপ্তম বিশ্ব মিলিটারি গেমসে অংশগ্রহণকারী চীনা গণমুক্তি ফৌজের ক্রীড়াবিদ ও কোচদের অভিনন্দন জানিয়েছেন চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং।

২৮ অক্টোবর এক অভিনন্দন-বার্তায় প্রেসিডেন্ট সি বলেন, সপ্তম বিশ্ব মিলিটারি গেমসে অংশগ্রহণকারী চীনের ক্রীড়াবিদ ও কোচরা চীনা গণমুক্তি ফৌজ ও সশস্ত্র পুলিশের প্রতিনিধি হিসেবে দেশ ও জনগণের জন্য গৌরব বয়ে এনেছেন। তাদের এ অর্জন চীনা সৈন্যদের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে।

উল্লেখ্য, উহানে সদ্যসমাপ্ত সপ্তম বিশ্ব মিলিটারি গেমসে শতাধিক স্বর্ণপদক পেয়ে শীর্ষ স্থান অর্জন করে চীন।

প্রতিবেদন: সপ্তম বিশ্ব মিলিটারি গেমস উহানে সমাপ্ত

সপ্তম বিশ্ব মিলিটারি গেমসের সমাপনী অনুষ্ঠান ২৭ অক্টোবর চীনের উ হান ক্রীড়া কেন্দ্রের স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্য দিয়ে দশ দিনব্যাপী এ গেমস শেষ হয়। বিশ্বের ১০৯টি দেশের ৯৩০০জন সামরিক ক্রীড়াবিদ এবারের গেমসে অংশ নেয়।

এবারের বিশ্ব মিলিটারি গেমস ইতোমধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সেনাদের শান্তি ও বন্ধুত্ব প্রদর্শনের গুরুত্বপূর্ণ প্ল্যাটফর্মে পরিণত হয়েছে এবং বিশ্ব মিলিটারি গেমসের ইতিহাসে একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় উন্মোচন করেছে। 'মৈত্রীর বন্ধন' নামে সমাপনী অনুষ্ঠান দু'টি পর্বে অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম পর্বের নাম 'আমরা মিলিত হই'। এতে গত ৬ বারের মিলিটারি গেমস আয়োজক শহরের দৃশ্য প্রদর্শন করা হয় এবং মিলিটারি গেমসের উন্নয়নের ইতিহাস নিয়ে পর্যালোচনা করা হয়। দ্বিতীয় পর্বের নাম 'সুন্দর উ হানে আপনাদেরকে স্বাগত'। এতে এবার বিশ্ব মিলিটারি গেমসের মাস্কট 'পিং পিং' নানা দেশ থেকে আসা অতিথিদের সঙ্গে চীনের ঐতিহ্যিক সংস্কৃতি উপভোগ করে, উ হান শহর ভ্রমণ করে এবং নতুন যুগে চীনের সৌন্দর্য ও স্পিরিট উপলব্ধি করে।

এবার মিলিটারি গেমসে ১০৯টি দেশের ৯৩০০জন সৈনিক ক্রীড়াবিদ ২৭টি ইভেন্টে প্রতিযোগিতা করে ৩২৯টি পদক লাভ করেন। চীন, রাশিয়া ও ব্রাজিল যথাক্রমে পদক তালিকার প্রথম তিন স্থান অর্জন করে। তাছাড়া, ৬০টিরও বেশি দেশের প্রতিনিধি দল পদক পায়। চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি দল ১৩৩টি স্বর্ণপদক, ৬৪টি রৌপ্যপদক ও ৪২টি ব্রোঞ্জপদক লাভ করে এবং বিশ্ব মিলিটারি গেমসে চীনা দলের সবচেয়ে ভাল রেকর্ড সৃষ্টি করে। এবার বিশ্ব মিলিটারি গেমসে ট্র্যাক ও ফিল্ড এবং আর্চারিতে প্রতিবন্ধী ক্রীড়াবিদদের জন্য বিশেষ প্রতিযোগিতা আয়োজন করা হয়।

সপ্তম বিশ্ব মিলিটারি গেমসে ৭টি নতুন বিশ্ব রেকর্ড এবং ৮৫টি নতুন বিশ্ব মিলিটারি গেমসের রেকর্ড সৃষ্টি হয়। আন্তর্জাতিক মিলিটারি ক্রীড়া পরিষদের মহাসচিব ডোরাহ মাম্বে কোইটা বলেন,

আকাশ: "সার্বিক দিক থেকে আমাদের ক্রীড়াবিদরা খুব ভাল করেছেন এবং অনেক গেমসে নতুন রেকর্ড সৃষ্টি করেছেন। বিশেষ করে সাঁতার, বিশেষ করে শুটিং, ট্র্যাক এবং ফিল্ড এ ক্ষেত্রে এ রেকর্ডগুলো খুব গুরুত্বপূর্ণ। তা বিভিন্ন দেশের বাহিনীর ঐতিহ্যিক সামরিক ইভেন্টের উপর গুরুত্ব দেয়ার প্রতিফলন"।

রুশ দল ৫১টি স্বর্ণপদক, ৫৩টি রৌপ্যপদক ও ৫৭টি ব্রোঞ্জপদক নিয়ে পদক তালিকার দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে। বিশেষ করে সামরিক প্যারাশুটিং ইভেন্টে তারা ১৫টি পদক জয় করে। রুশ দলের প্রধান আলেকজান্ডার ইভানভ চীনা ক্রীড়াবিদদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, চীনা ক্রীড়াবিদ শক্তিশালী এবং খুব প্রবল প্রতিপক্ষ। উ হান বিশ্ব মিলিটারি গেমস সম্পর্কে তিনি মনে করেন যে 'উ হান বিশ্ব মিলিটারি গেমস ইতিহাসে সবচেয়ে ভাল একটি গেমস'। তিনি বলেন,

আকাশ: "বিস্তারিত প্রস্তুতি, চমত্কার প্রতিযোগিতা, অ্যাথলেটস ভিলেজ, সুস্বাদু খাবার- এ সব কিছু আমাদের ভাল লেগেছে। আমরা উহানের কাছে কৃতজ্ঞ। এটা সবচেয়ে ভাল একটি মিলিটারি গেমস। এটা শুধু একটি ক্রীড়া প্রতিযোগিতা তা নয় বরং ক্রীড়া ও মৈত্রীর মহাসম্মিলনী"।

বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা প্রতিনিধি দলের প্রধান এমির ক্লিকো মনে করেন, এবার মিলিটারি গেমসের আয়োজনকাজ চীনের উন্নয়নের গতির মতোই বিস্ময়কর। তিন বলেন,

আকাশ: "এবার মিলিটারি গেমসের অভিজ্ঞতা আমার মনে খুব গভীর ছাপ ফেলে বিশেষ করে উষ্ণ এবং অতিথিপরায়ণ চীনা মানুষ। এ গেমসের আয়োজন একটি যথার্থ মেশিনের মতো সুষ্ঠুভাবে চলে"।

বিভিন্ন দেশের সেনারা গেমসের মাধ্যমে যেমন প্রতিযোগিতা করেন তেমন বন্ধুত্ব স্থাপন করেন। সপ্তম মিলিটারি গেমস বিভিন্ন দেশের সৈনিকদের ন্যায্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা এবং সামরিক সংস্কৃতি বিনিময়ের একটি শান্তিপূর্ণ সম্মিলনীতে পরিণত হয়। আন্তর্জাতিক সামরিক ক্রীড়া পরিষদের চেয়ারম্যান হার্ভ পিচিরিলো বলেন,

আকাশ: এখন "খেলাধুলার মাধ্যমে বন্ধুত্ব উন্নয়ন" আর শুধুমাত্র একটি স্লোগান-ই নয়, তা সামরিক খেলাধুলার অভিন্ন লক্ষ্য। শতাধিক দেশের বাহিনীর সদস্য এ লক্ষ্যের জন্য এখানে মিলিত হয়। খেলাধুলা উপলক্ষে তারা পরস্পরের জাতি, ধর্ম, বর্ণ ও মতামতকে সম্মান করে।

ক্রীড়াবিদদের বিভিন্ন পার্থক্য ও অমিল পাশে রেখে মিল অন্বেষণের মনোভাব খেলওয়াড়দের ভবিষ্যত ও বিভিন্ন দেশের বাহিনীর ভবিষ্যতের জন্য দারুণ অর্থপূর্ণ। বিশ্বের বিভিন্ন জায়গার সেনারা হাতে হাত ধরে আনন্দের সময় কাটান, আর কোনো সংঘর্ষ নেই, সহিংসতাও নেই।

আগামীকাল তারা আমাদের মশাল রিলে করবেন। তারা লোকজনের কাছে এই সম্মিলনীকে স্মরণীয় করে রাখবেন।

সপ্তম বিশ্ব মিলিটারি গেমসের আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান, চীনের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিসি)-র কেন্দ্রীয় কমিটির রাজনৈতিক ব্যুরোর সদস্য, চীনের উপ-প্রধানমন্ত্রী ম্যাডাম সুন ছুন লান গেমসের সমাপনী অনুষ্ঠানে ভাষণে জানান, এবারের মিলিটারি গেমস হচ্ছে একসাথে বন্ধুত্ব শেয়ার করা এবং শান্তি নির্মাণের একটি মহাসম্মিলনী। এবারের গেমস একটি সম্মান ও স্পিরিট প্রদর্শনের সম্মিলনী। সবাই হাতে হাত ধরে খেলাধুলার মাধ্যমে যোগাযোগের সেতু নির্মাণ করবে, বিনিময়ের মাধ্যমে জনগণের যোগাযোগ এগিয়ে নেবে, একসাথে বিশ্বের শান্তি রক্ষার জন্য ও মানবজাতির অভিন্ন লক্ষ্যের কমিউনিটি নির্মাণকে এগিয়ে নিতে আরো নতুন বড় অবদান রাখবে বলে প্রত্যাশা করেন তিনি।

এবারের বিশ্ব মিলিটারি গেমস আগের চেয়ে এবারই প্রথমবার মিলিটারি ক্যাম্পের বাইরে আয়োজিত হয়; প্রথমবার একই শহরে সব ইভেন্ট আয়োজন করা হয়। সিপিসি'র উহান মিউনিসিপ্যাল কমিটির সম্পাদক মা কুও ছিয়াং জানান,

আকাশ: "এবারের বিশ্ব মিলিটারি গেমস বন্ধুত্বপূর্ণ সেতু নির্মাণ করেছে। আমরা বিশ্বাস করি, এবারের এ গেমসের সফল আয়োজন খেলাধুলার সূর্যালোক যুদ্ধের কুয়াশাকে দূর করবে, বন্ধুত্বপূর্ণ সেতুর মাধ্যমে সভ্যতার বিনিময় ও পারস্পরিক শিক্ষণকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। মিলিটারি গেমসের স্পিরিট চিরকাল উ হানে থাকবে, শান্তির আলো চিরকাল উহানে জ্বলবে"।

সপ্তম বিশ্ব মিলিটারি গেমসের আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান, চীনের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিসি)-র কেন্দ্রীয় কমিটির রাজনৈতিক ব্যুরোর সদস্য, কেন্দ্রীয় সামরিক কমিশনের ভাইস চেয়ারম্যান সু ছি লিয়াং এবারের বিশ্ব মিলিটারি গেমসের সমাপনী ঘোষণা করেন। এরপর আন্তর্জাতিক ক্রীড়া পরিষদের সঙ্গীত শুরু হয়।

আন্তর্জাতিক ক্রীড়া পরিষদের চেয়ারম্যান হার্ভ পিচিরিলো উ হানের মেয়র চৌ শিয়ান ওয়াংয়ের হাত থেকে আন্তর্জাতিক ক্রীড়া পরিষদের পদক গ্রহণ করেন।

এরপর উ হান ক্রীড়া কেন্দ্রের স্টেডিয়ামের প্রধান আলোর টাওয়ারের আগুন ধীরে ধীরে নিভে যেতে থাকে। এভাবে দশ দিন ব্যাপী সপ্তম বিশ্ব মিলিটারি গেমস সাফল্যের সাথে সমাপ্ত হয়। কিন্তু শান্তি ও বন্ধুত্বের যে বীজ প্রত্যেকের মনে সৃষ্টি হয়েছে তা ফুল হয়ে সারা বিশ্বে ফুটবে।

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040