Web bengali.cri.cn   
ফেই ইয়ু ছিং
  2019-10-25 19:03:41  cri

ফেই ইয়ু ছিংয়ের আসল নাম চাং ইয়ান থিং। ১৯৫৫ সালের ১৭ জুলাই চীনের তাইওয়ান প্রদেশের তাইপেই শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি হলেন চীনের তাইওয়ান প্রদেশের খুব বিখ্যাত একজন কন্ঠশিল্পী ও উপস্থাপক।

১৯৭৩ সালে ফেই ইয়ু ছিং তাইওয়ানের 'তারকা থেকে তারকা' নামের সঙ্গীত প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে চতুর্থ পুরস্কার লাভ করেন এবং এভাবে তাঁর সঙ্গীতজীবন শুরু হয়।

১৯৭৭ সালে ফেই ইয়ু ছিং 'বেইজিং শহরের সূর্যাস্ত' এবং 'শরত্কাল' নামের দুটি গান প্রকাশ করেন। একই বছর তাঁর প্রথম অ্যালবাম 'আমার হৃদয়ের ভালোবাসা' রিলিজ হয়।

১৯৭৭ সালে তিনি টিভি অনুষ্ঠানের উপস্থাপক হিসেবে কাজ শুরু করেন। সেই বছরের ১০ নভেম্বর থেকে ১৯৮৪ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত তিনি বড় বোন ফেই চেন লিং ও বড় ভাই চাং ফেই-এর সঙ্গে 'সুন্দরীর যাত্রা' নামের টিভি অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন।

১৯৭৮ সালে ফেই ইয়ু ছিং 'আকাশের মেঘ' নামক চলচ্চিত্রের থিম সং-এর কণ্ঠ দেন। একই বছর 'আকাশের মেঘ' নামের তাঁর আরেকটি ব্যক্তিগত অ্যালবাম রিলিজ হয়।

১৯৭৯ সালে ফেই ইয়ু ছিং-এর আরেকটি অ্যালবাম 'জানালার বাইরে, পুরোনো অনুভূতি' রিলিজ হয়।

১৯৮০ সালে ফেই ইয়ু ছিং সিঙ্গাপুরে এবং মালয়েশিয়ায় যথাক্রমে 'অন্তরঙ্গ বন্ধু' এবং 'জেলের গান' নামের দু'টি অ্যালবাম প্রকাশ করেন।

১৯৮১ সালে ফেই ইয়ু ছিং তুংনি রেকর্ডসে অংশ নেন। একই বছর তিনি সিঙ্গাপুর এবং মালয়েশিয়ায় আরও দু'টি অ্যালবাম প্রকাশ করেন। ১৯৮১ সালের জুলাই মাসে তিনি 'নিজের সময়ে পার হয়ে যাই' নামের অ্যালবাম প্রকাশ করেন। একই বছরের অক্টোবর মাসে তাঁর আরেকটি অ্যালবাম 'তোমাকে কাঁদাবো' প্রকাশিত হয়। একই বছরের ডিসেম্বর মাসে তার অ্যালবাম 'ফেই ইয়ু ছিং-এর শ্রেষ্ঠ গান' বাজারে আসে। তিনি তাইওয়ানের দশ জন সবচেয়ে জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পীর একজন হিসেবেও মর্যাদা পেয়েছেন। সেই বছর থেকে ১৯৮৬ সাল পর্যন্ত তিনি প্রতিবছরই এই পুরস্কার জিতে নেন।

১৯৯৫ ও ১৯৯৭ সালে তিনি তাইওয়ানের শ্রেষ্ঠ বিনোদন অনুষ্ঠানের উপস্থাপক হিসেবে পুরস্কার লাভ করেন। ১৯৯৬ সালে ফেই ইয়ু ছিংয়ের 'রাতের গান' তাইওয়ানের সপ্তম শ্রেষ্ঠ গানের পুরস্কার পায়।

২০০৬ সালে তিনি চীনের বিখ্যাত কন্ঠশিল্পী চৌ চিয়ে লুনের সঙ্গে দ্বৈতকণ্ঠে 'হাজার মাইল দূরে' নামের গান পরিবেশন করেন। ২০০৫ সালে তাঁর উপস্থাপনায় 'ফেই ইয়ু ছিং'র সঙ্গীত সময়' তাইওয়ানের শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত অনুষ্ঠানের পুরস্কার এবং শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত উপস্থাপনার পুরস্কার পায়।

সঙ্গীতের জগতে প্রবেশ থেকে এই পর্যন্ত ফেই ইয়ু ছিং ৪০টিরও বেশি অ্যালবাম প্রকাশ করেছেন। ২০০৯ সালে তিনি 'লাইফটাইম অ্যাচিভমেন্ট পুরস্কার' লাভ করেন।

২০১৯ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি ফেই ইয়ু ছিং সঙ্গীত-জগতকে বিদায় জানান। এ উপলক্ষ্যে তাইপেই শহরে একটি বিদায়ী সঙ্গীতানুষ্ঠান আয়োজন করা হয়।

প্রিয় শ্রোতাবন্ধুরা, আজকের অনুষ্ঠানে আপনাদেরকে চীনের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ফেই ইয়ু ছিং-এর সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিলাম এবং তার কণ্ঠে কয়েকটি সুন্দর গান শোনালাম। আশা করি, গানগুলো আপনাদের ভালো লেগেছে। আজকের অনুষ্ঠান এখানেই শেষ হলো। সবাই ভালো থাকুন, সুন্দর থাকুন। পরের আসরে আবারও কথা হবে। (শুয়েই/আলিম/সুবর্ণা)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040