Web bengali.cri.cn   
'বায়ু'
  2019-10-21 14:50:44  cri


বন্ধুরা, আজকের অনুষ্ঠানের শুরুতে আমি প্রথমে আপনাদেরকে নারী কন্ঠশিল্পী জিন শা'র সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেবো। তিনি ১৯৮৩ সালের ১৪ মার্চ শাংহাইতে জন্মগ্রহণ করেন। ২০০২ সালে তিনি এক টিভি সিরিজে পরিবেশনার মাধ্যমে বিনোদনজগতে প্রবেশ করেন। আজকের অনুষ্ঠানে প্রথমে শোনাবো তাঁর কন্ঠে 'গরমকালে যখন বাতাস বয়' শীর্ষক গান শোনাবো। গানটি ২০০৫ সালে রিলিজ হয়। তিনি সিঙ্গাপুরের কন্ঠশিল্পী লিন জুন জিয়ে'র সঙ্গে গানটি গেয়েছেন। আশা করি, বন্ধুরা গানটি পছন্দ করবেন।

বন্ধুরা, শুনছিলেন জিন শা'র কন্ঠে 'গরমকালে যখন বাতাস বয়' শীর্ষক গান। ২০১৩ সালে তিনি চলচ্চিত্রের সঙ্গে যুক্ত হন। ২০০৫ সালে তিনি প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ করেন। তিনি এ অ্যালবামের কারণে সেবছরে সবচেয়ে জনপ্রিয় নারী কণ্ঠশিল্পীর পুরস্কার লাভ করেন। এখন শোনাবো তাঁর কন্ঠে 'তারকা ও চাঁদের কল্পকাহিনী' শীর্ষক গান। জিন শা গানটির কথা লিখেছেন এবং সুর রচণা করেছেন। গানটি ২০০৫ সালে রিলিজ হয়। আশা করি, বন্ধুরা গানটি পছন্দ করবেন।

বন্ধুরা, শুনছিলেন জিন শা'র কন্ঠে 'তারকা ও চাঁদের কল্পকাহিনী' শীর্ষক গান। এখন আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে আরেকটি গান শোনাবো। গানের শিরোনাম 'বায়ু'। 'বায়ু' গানের কথাগুলো অনুবাদ করলে অনেকটা এমন দাঁড়াবে: 'আমরা দু'জন একই বায়ুতে বাঁচি। কিন্তু কখনো কখনো শ্বাস নিতে চাই না। আমরা ত্যাগ করে চলে যেতে চাই না। আমি ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছি। আমি তোমাকে কোনো কথা বলতে চাই না। আমি তোমাকে যা দিয়েছি, তা তোমার আশার চেয়ে আরো বেশি। কিন্তু আমি জানি না যে, তুমি আমাকে পছন্দ করো না। তোমাকে ভালোবাসতে অনেক সাহস প্রয়োজন। আমি জানি, আমি কী করতে পারি। আমরা দু'জন একই বায়ুতে থাকতে চাই'।

আচ্ছা, বন্ধুরা, এখন আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

বন্ধুরা, শুনছিলেন জিন শা'র কন্ঠে কয়েকটি গান। এখন আমি আপনাদেরকে নারী কন্ঠশিল্পী স্যু ফেই'র সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেবো। তিনি ১৯৮৫ সালের ২১ অক্টোবর চীনের চিলিন প্রদেশের সিফিং শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছোটবেলা থেকেই সংগীত শেখা শুরু করেন। প্রথমে শোনাবো তাঁর কন্ঠে 'সে বছরের গ্রীষ্মকাল' শীর্ষক গান। গানটি ২০০৬ সালে রিলিজ হয়। সে বছরের গ্রীষ্মকালে একটি মেয়ে শান্তিতে গান করছিল। সে বছরের গ্রীষ্মকালে একটি মেয়ে মন দিয়ে গান করছিল। সে বছরের গ্রীষ্মকালে সে মেয়ে'র গান ও হাসি আমাদের সবাইকে মুগ্ধ করেছে।

চলুন, আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

বন্ধুরা, শুনছিলেন স্যু ফেই'র কন্ঠে 'সে বছরের গ্রীষ্মকাল' শীর্ষক গান। ১৯৯৭ সাল থেকে তিনি বেইজিংয়ে সংগীত শেখা শুরু করেন। এরপর তিনি চীনা গণমুক্তি ফৌজের শিল্প একাডেমিতে ভর্তি হন। ২০০৬ সালে তিনি হুনান প্রদেশের টিভিকেন্দ্রের এক সংগীত প্রতিযোগিতায় ষষ্ঠ স্থান অধিকার করেন। এখন শোনাবো তাঁর কন্ঠে 'সময়ের দিবাস্বপ্ন' শীর্ষক গান। গানটি একটি টিভি সিরিজের থিম সং। গানটির কথা এমন: আলোর মধ্য দিয়ে দিন ও রাতের পরিবর্তন দেখেছি। তোমার মধ্য দিয়ে যৌবনের অনিশ্চয়তা দেখেছি। চোখ বন্ধ করে ইচ্ছামত দিবাস্বপ্ন দেখি। চলুন, আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

বন্ধুরা, শুনছিলেন স্যু ফেই'র কন্ঠে 'সময়ের দিবাস্বপ্ন' শীর্ষক গান। ২০০৮ সালে তিনি প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ করেন। ২০১৫ সাল থেকে তিনি নাটকে পরিবেশনা শুরু করেন। এখন শোনাবো তাঁর কন্ঠে 'আমি সবচেয়ে উচ্চস্বর' শীর্ষক গান। গানটি হুনান প্রদেশের টিভি কেন্দ্রের উদ্যোগে একটি সংগীত প্রতিযোগিতার থিম সং, ২০০৭ সালে রিলিজ হয়। গানটির কথায় বলা হয়: আমি যখন চাই, তখন গান করি। আমার কন্ঠ সবচেয়ে উচ্চস্বর। এ বছরের গ্রীষ্মকালে সবচেয়ে উষ্ণ চোখ আমাকে দেখেছিলো। স্মৃতির দূরতায় আমি মর্যাদা লাভ করেছি। জানালার মধ্য দিয়ে স্বপ্ন দেখেছি। আমি সবচেয়ে উচ্চস্বর।

চলুন, আমরা একসঙ্গে এ সুন্দর গান শুনবো।

প্রিয় শ্রোতা, এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের সবাইকে জানাই অসংখ্য ধন্যবাদ। যদি আমাদের অনুষ্ঠানে আপনারা কোনো পছন্দের গান শুনতে চান, তাহলে জানাবেন। আমাদের ই-মেইল ঠিকানা ben@cri.com.cn। আর আমার নিজস্ব ইমেইল ঠিকানা caiyue@cri.com.cn। 'গানের অনুরোধ' আমার নিজস্ব ই-মেইল ঠিকানায় পাঠালে ভালো হয়।

আজ তাহলে এ পর্যন্তই। আশা করি, আগামী সপ্তাহের একই দিন, একই সময়ে আবারো আপনাদের সঙ্গে কথা হবে। সে পর্যন্ত সবাই ভালো থাকুন, আনন্দে থাকুন। চাই চিয়ান। (ছাই/আলিম/ফেই)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040