Web bengali.cri.cn   
আজকের টপিক: চীনে বিভিন্ন খাতে উন্নয়নের সর্বশেষ পরিস্থিতি
  2019-09-30 13:38:37  cri

কৃষি

গণপ্রজাতন্ত্রী চীন প্রতিষ্ঠার পর বিগত ৭০ বছরে চীনের কৃষি ও গ্রামের উন্নয়ন-কার্যক্রমে বিরাট সাফল্য অর্জিত হয়েছে। চীনের খাদ্য উত্পাদনের সামর্থ্য, চীনের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার সামর্থ্যের সার্বিক উন্নতি ঘটে।

১৯৪৯ সালে চীনের খাদ্য-উত্পাদানের সামর্থ্য ছিল মাত্র ১১,৩২০ কোটি কেজি। ৭০ বছরের উন্নয়নের পর এখন চীনের খাদ্য-উত্পাদন সামর্থ্য বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭০,০০০ কোটি কেজির ওপর। এ ছাড়া চীনের শাক-সবজি এবং ফলের সরবরাহও অনেক বেড়েছে। চীনারা বিশ্বের ৯ শতাংশ জমি ব্যবহার করে বিশ্বের প্রায় ২০ শতাংশ মানুষের খাদ্যসমস্যার সমাধান করেছে, যা বিশ্বের ইতিহাসে একটি অভূতপূর্ব ঘটনা। বস্তুত, বিগত ৭০ বছরে চীনের কৃষি উত্পাদনের পদ্ধতির বিরাট পরিবর্তন ঘটেছে। এই ক্ষেত্রে বিজ্ঞানের অবদানের হার ৫৮.৩ শতাংশ।

দারিদ্র্যবিমোচন

৭০ বছরে চীনের কমিউনিস্ট পার্টি চীনের বিভিন্ন জাতির জনগণকে নেতৃত্ব দিয়ে চীনের বৈশিষ্ট্যময় দারিদ্র্যবিমোচনের পথে হেঁটেছে এবং অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে।

সংস্কার ও উন্মুক্তকরণ নীতি চালু হওয়ার পর চীনে গ্রামের নিরঙ্কুশ দরিদ্র মানুষের সংখ্যা মোট ৮০ কোটি কমেছে। বিশেষ করে চীনের অষ্টাদশ কংগ্রেসের পর চীনে মোট ৮.২ কোটি দরিদ্র মানুষ দারিদ্র্যমুক্ত হয়। এর মানে তখন গড়ে প্রতিবছর ১.২ কোটি করে মানুষ দারিদ্র্যমুক্ত হয়, যা পৃথিবীর ইতিহাসে একটি রেকর্ড।

এক পরিসংখ্যান থেকে আমরা চীনের গ্রামের দরিদ্র মানুষের জীবনের উন্নয়ন উপলব্ধি করতে পারি। ২০১৮ সাল নাগাদ, চীনে গ্রামে নিরঙ্কুশ দরিদ্র মানুষের সংখ্যা শুধুই ১.৬ কোটি এবং দরিদ্র অঞ্চলে গ্রামের জনগণের বার্ষিক মাথাপিছু আয় ১০,৩৭১ ইউয়ানে দাঁড়িয়েছে। নতুন ধরনের গ্রামীণ চিকিত্সাবীমা চালু হয়েছে, গ্রামে শিক্ষাব্যবস্থা উন্নত হয়েছে, গ্রামাঞ্চলের জনগণের জীবনমান উন্নত হয়েছে।

বিশ্বের দারিদ্র্যবিমোচনে চীনের অবদান

৭০ বছরে চীন নিজ দেশের দারিদ্র্যবিমোচন ছাড়া বিশ্বের অন্যান্য দেশের দারিদ্র্যবিমোচনেও অনেক সাহায্য করেছে। চীন মোট ১৭০টিরও বেশি দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থাকে ৪০,০০০ কোটি ইউয়ান সাহায্য দিয়েছে দারিদ্র্যবিমোচন খাতে। এ ছাড়া, চীন বিভিন্ন সাহায্যমূলক প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে ৫ সহস্রাধিক। পাশাপাশি, বিদেশে ৬ লাখ সাহায্য-কর্মী পাঠিয়েছে এবং উন্নয়নশীল দেশের ১ কোটি ২০ লাখেরও বেশি মানুষকে প্রশিক্ষণ দিয়েছে।

রেলপথ

২০১৮ সাল নাগাদ, চীনের রেলপথের মোট দৈর্ঘ ১ লাখ ৩১ হাজার কিলোমিটার। এর মধ্যে দ্রুতগতির রেলপথের দৈর্ঘ্য ২৯ হাজার কিলোমিটার, যা বিশ্বের মোট দ্রুতগতির রেলপথের মোট দৈর্ঘের ৬০ শতাংশেরও বেশি। চীন প্রতি ঘন্টায় ৪০০ কিলোমিটার গতির ট্রেন এবং ঘন্টায় ৬০০ কিলোমিটার গতির 'ম্যাগলেভ ট্রেন' (maglev train) নিয়ে গবেষণা করছে ।

বেসরকারি বিমান চলাচল খাত

২০১৮ সালে, চীনের বেসরকারি বিমান-ব্যবস্থা ৬১ কোটি যাত্রীকে সেবা দিয়েছে। চীনে বেসরকারি বিমান চালু আছে ৬০৫৩টি। বেসরকারি খাতে ফ্লাইট-রুট আছে ৪৯৪৫টি। এর মধ্যে 'এক অঞ্চল, এক পথ' উদ্যোগসংশ্লিষ্ট দেশগুলোর সঙ্গে ফ্লাইট-রুট ১০৫টি। (ফেই/আলিম)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040