Web bengali.cri.cn   
শানদং প্রদেশ অবৈষয়িক সাংস্কৃতিক উত্তরাধিকার সুরক্ষা করতে থাকে
  2019-08-19 09:21:22  cri

১৬ জুলাই চীনা রাষ্ট্রীয় পরিষদের তথ্য-কার্যালয় 'নতুন যুগ, নতুন চালিকাশক্তি, নতুন শানতুং' শীর্ষক সাংবাদিক সম্মেলন আয়োজন করে। সাংবাদিক সম্মেলনে শানতুং প্রদেশের অবৈষয়িক সাংস্কৃতিক উত্তরাধিকার পরিদর্শন করা হয়।

ওয়েইফাংয়ের ইয়াংচিয়াফু কাঠের বসন্ত উত্সব ছবি মিং রাজবংশ আমলের প্রায় ৬০০ বছর আগে এবং ছিং রাজবংশ আমলের প্রায় ৩০০ বছর আগে সারা চীনে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। ইয়াংচিয়াফু কাঠের বসন্ত উত্সব ছবি থিয়ানচিনের ইয়াংলিউছিং ও সুচৌ'র থাওহুয়াউ চীনের তিনটি সবচেয়ে বিখ্যাত কাঠের বসন্ত উত্সব ছবি বলে পরিচিত। ২০০৬ সালে চীনা রাষ্ট্রীয় পরিষদ ইয়াংচিয়াফু কাঠের ছবি প্রথম দফা জাতীয় অবৈষয়িক সাংস্কৃতিক উত্তরাধিকারের নাম-তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে। ইয়াং নাই দং হলেন ইয়াংচিয়াফুতে অবস্থিত 'হ্যেসিংইয়ং' ছবি দোকানের ত্রয়োদশ প্রজন্ম বংশধর। তিনি সাংবাদিকদের কাছে কাঠের ছবি তৈরীর প্রক্রিয়া ও প্রযুক্তি ব্যাখ্যা করেন। তিনি বলেন, "আমাদের ইয়াংচিয়াফু কাঠের ছবিতে সাধারণত পাঁচটি রঙ ব্যবহার করা হয়: লাল, হলুদ, সবুজ, নীল ও বেগুনি। এ পাঁচটি রঙ দিয়ে একটি সম্পূর্ণ কাঠের ছবি আঁকা হয়। ছবিতে যত রঙ থাকে, তত কাঠ প্রয়োজন হয়।"

ইয়াং নাই দং আরো বলেন, ইয়াংচিয়াফু কাঠের ছবি বিষয়ভিত্তিক। বর্তমান ইয়াংচিয়াফু প্রতিবছরে ২ হাজারেরও বেশি কাঠের ছবি তৈরী করে এবং সারা চীন ও বিশ্বের একশো'রও বেশি দেশ ও অঞ্চলে বিক্রয় হয়।

প্রাচীন কাল থেকে শানতুং প্রদেশের ঐতিহ্যগত লোকসম্পদ বেশি। ওয়েইফাং ছাড়াও ইমেং এলাকার ফেই জেলার হাতের সূচিকর্ম শিল্প আকর্ষণীয়। ফেই জেলার হাতের সূচিকর্ম শিল্পে ঐতিহ্যগত সূচিকর্মের ভিত্তিতে আধুনিক বৈশিষ্ট্য দেয়া হয়। রঙে ঐতিহ্যগত লাল, সবুজ, গোলাপি ও কালো ছাড়াও চকচকে বিপরীত রং ব্যবহৃত হয়। প্রদর্শনীতে ফেই জেলার হাতের সূচিকর্মের অধিকারী বিয়ান ছেং ফেই সাংবাদিকদেরকে গণপ্রজাতন্ত্রী চীন প্রতিষ্ঠার ৭০ বার্ষিকী উপলক্ষে তাঁর দলের তৈরী একটি শিল্প হ্যেবাও দেখান। হ্যেবাও হলো একটি ছোট ব্যাগ। প্রাচীনকালের চীনা মানুষের টাকা রাখার ব্যাগ। তিনি বলেন, "এ শিল্প হলো একটি 'মূল লক্ষ্য মনে রাখা' শীর্ষক হ্যেবাও। আমাদের প্রবীন শিল্পীরা ডিজাইন ও তৈরী করেছেন। আগে আমরা পাহাড়ি এলাকায় থাকতাম। কিন্তু এখন সরকারের সরবরাহ করা ভবনে থাকি। আমরা রাষ্ট্রকে ধন্যবাদ জানাই। কিন্তু নিজের হৃদয় কখনও পরিবর্তন হবে না। এর খুবই গুরুত্বপূর্ণ তাত্পর্য রয়েছে।"

প্রদর্শনীতে শানতুং প্রদেশের ২০ ধরণের ঐতিহ্যগত খাবার ছিল। শানতুং হোটেলের প্রধান শেফ হু জং ছিয়াং সাংবাদিককে বলেন, শানতুংয়ের খাবার চীনের চারটি প্রধান খাদ্যশৈলীর একটি। এতে প্রতিনিয়ত নতুনত্ব আনা হচ্ছে। তিনি বলেন, "ঐতিহ্যগত শানতুং খাবার খেতে ভাল, কিন্তু দেখতে সুন্দর না। কিন্তু এখন আমরা কম লবন, কম চিনি ও কম তেল দিয়ে আরো সুন্দর ও সুস্বাদু খাবার রান্না করছি।"

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040