Web bengali.cri.cn   
২২তম শাংহাই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্সব
  2019-07-04 14:44:37  cri

১৫ জুন রাতে চীনের জাতীয় চলচ্চিত্র ব্যুরোর সাহায্যে চায়না মিডিয়া গ্রুপ (সিএমজি) এবং শাংহাই পৌর গণ-সরকারের যৌথ উদ্যোগে ২২তম শাংহাই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্সব শাংহাই থিয়েটারে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হয়। বিশ্বের ১১২টি দেশ ও অঞ্চলের ৩৯৬৪টি চলচ্চিত্র এবারের উত্সবে অংশ নিতে নাম তালিকাভুক্ত করে। পাঁচ শতাধিক দেশি-বিদেশি চলচ্চিত্র শাংহাই শহরের ১৬টি জেলার ৪৭টি সিনেমা হলে প্রদর্শিত হয়।

শাংহাই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্সব বহু বছর ধরে চলচ্চিত্র শিল্প চেইনের সঙ্গে সম্পর্কিত প্ল্যাটফর্ম সৃষ্টি করে আসছে এবং চীনের চলচ্চিত্রের উন্নয়নে নতুন চালিকাশক্তি প্রদান করছে। চীনকে চলচ্চিত্রের ক্ষেত্রে বড় রাষ্ট্র থেকে শক্তিশালী রাষ্ট্রে রূপান্তর করতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করছে শাংহাই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্সব।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে শাংহাই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্সব 'এশিয়ায় দাঁড়িয়ে চীনা ভাষার চলচ্চিত্রের ওপর দৃষ্টি রাখা এবং নতুন লোককে সমর্থন করা'র নীতিতে অবিচল থেকে আসছে। এর আন্তর্জাতিক প্রভাব ও সাংস্কৃতিক প্রচার ক্ষমতাও দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। চীনের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিসি)-র প্রচার মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী ও সিএমজি'র মহাপরিচালক শেন হাই সিয়োং উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তাঁর ভাষণে বলেন,

'এবারের চলচ্চিত্র উত্সবে দৃঢ়ভাবে এশিয়ার ওপর দৃষ্টি রাখা হয়। যুগের পরিবর্তন তুলে ধরার সঙ্গে সঙ্গে এশিয়ার চলচ্চিত্রের আরো আকর্ষণীয় ফলাফল ফুটিয়ে তোলা হয়। আমরা অব্যাহতভাবে 'এক অঞ্চল, এক পথ' সংলগ্ন বন্ধুদের সংখ্যা বাড়াবো, এশিয়ার বিভিন্ন দেশের চলচ্চিত্র ব্যক্তিদের ও চলচ্চিত্র সংস্কৃতির আন্তঃযোগাযোগ এবং পারস্পরিক শিক্ষা বেগবান করবো, পারস্পরিক সংস্কৃতির সমঝোতা গভীরতর করবো, সংস্কৃতির সৌন্দর্য তুলে ধরবো এবং এশিয়ার অভিন্ন লক্ষ্যের সমাজ বা মানবজাতির অভিন্ন লক্ষ্যের সমাজের সাংস্কৃতিক ভিত্তি সুসংহত করবো।'

শাংহাই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্সবের আন্তর্জাতিক প্রভাব এবং ছড়িয়ে পড়ার ক্ষমতা বেড়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে 'গোল্ডেন গোবলেট অ্যাওয়ার্ড'র আকর্ষণীয় শক্তিও গভীরতর হচ্ছে। চলতি বছর ১৫টি দেশি-বিদেশি চলচ্চিত্র গোল্ডেন গোবলেট অ্যাওয়ার্ডের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বিতার ইউনিটে অন্তর্ভুক্ত হয়। সেগুলোর মধ্যে ৩টি হলো চীনের চলচ্চিত্র। এবারের গোল্ডেন গোবলেট অ্যাওয়ার্ডের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বিতার ইউনিটের জুরি বোর্ডের চেয়ারম্যান, তুরস্কের বিখ্যাত পরিচালক নুরি বিল্গে সেলান উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বলেন, চলচ্চিত্র উত্সবের আকর্ষণী শক্তি হলো প্রত্যেকের কাছে সত্যিকার চলচ্চিত্র ব্যক্তিদের চিন্তাধারা পৌঁছে দেওয়া। তিনি জুরি বোর্ডের সদস্যদের সঙ্গে সমানভাবে বিনিময় করেন এবং শ্রেষ্ঠ শিল্পকর্ম নির্বাচন করেন।

তিনি বলেন, 'আমি জুরি বোর্ডের সদস্যদেরকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। শ্রেষ্ঠ শিল্পকর্ম নির্বাচনের প্রক্রিয়ায় আমরা সমতার ভিত্তিতে চলচ্চিত্র নিয়ে আমাদের মতামত আন্তরিকভাবে বিনিময় করেছি। চূড়ান্ত পুরস্কারের ব্যাপারে আমরা মতৈক্যে পৌঁছেছি। আমাদের সকল মতভেদ চলচ্চিত্র শিল্পের প্রতি সম্মান রেখেই তৈরি হয়। আসলে মতভেদ সমাধান করার প্রক্রিয়াও উপভোগযোগ্য।'

চীনের বিখ্যাত অভিনেত্রী চাং চি ই এবং উ চিং তাদের নতুন চলচ্চিত্র 'দ্যা ক্লাইম্বার্স' নিয়ে শাংহাই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্সবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত হন। এ চলচ্চিত্রটিতে ১৯৬০ সালে চীনের পর্বতারোহী দলের সদস্যদের প্রথমবারের মতো ছুমোলোংমা শৃঙ্গে আরোহণের গল্প তুলে ধরা হয়। চলচ্চিত্রের সঙ্গে জড়িত সকল কর্মীরা মনে করেন, ক্লাইম্বার-এর চেতনা থাকলে চীনা চলচ্চিত্রের ভালো দিকে যাওয়া সম্ভব হবে।

অভিনেত্রী চাং চি ই বলেন, 'আমি ২০ বছর ধরে চীনা চলচ্চিত্রের সঙ্গে যুক্ত। এ ২০ বছরের মধ্যে আমি চীনা চলচ্চিত্রের প্রাণবন্ত উন্নয়ন অভিজ্ঞতা করেছি এবং চীনা চলচ্চিত্রের সঙ্গে বড় হয়েছি। 'দ্যা ক্লাইম্বার্স' নামে এ চলচ্চিত্র অবশ্যই চীনের চলচ্চিত্রের আরেকবার সর্বশেষ আরোহণ হবে বলে আমি বিশ্বাস করি।'

চলতি বছর গণপ্রজাতন্ত্রী চীন প্রতিষ্ঠার ৭০তম বার্ষিকী। 'নয়া চীনের প্রশংসা এবং নতুন যুগে পরিশ্রম করা' এই থিম গোটা চলচ্চিত্র উত্সবে লক্ষ্য করা যায়। চলচ্চিত্র-সংক্রান্ত নানা শীর্ষ ফোরাম আয়োজনের পাশাপাশি 'আলোছায়ার স্মৃতি' শিরোনামে বিশেষ প্রদর্শনী ইউনিটও স্থাপন করা হয়। ফলে দর্শকেরা ৭০ বছরের মধ্যে চীনের উন্নয়ন এবং শক্তিশালী হওয়ার অসাধারণ প্রক্রিয়া দেখতে পারেন।

উল্লেখ্য যে, গোল্ডেন গোবলেট অ্যাওয়ার্ড হলো শাংহাই চলচ্চিত্র উত্সবের শ্রেষ্ঠ পুরস্কার। আসলে এশিয়ার 'নিউকামার' পুরস্কারসহ বিভিন্ন পুরস্কারও সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করে।

এখন আমরা ২২তম শাংহাই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্সবের এশিয়ার নিউকামার পুরস্কারের জুরি বোর্ডের কাছে চলে যাবো।

এশিয়ার 'নিউকামার' পুরস্কারের জুরি বোর্ডের সদস্যরা ১৭ জুন সকালে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এবারের নিউকামার পুরস্কার নির্বাচনের মানদণ্ডসহ বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। চীনা চলচ্চিত্র পরিচালক নিং হাও এবার জুরি বোর্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন ।

শাংহাই চলচ্চিত্র উত্সবের এশিয়ার নিউকামার পুরস্কার ২০০৪ সালে স্থাপন করা হয়। ১৫ বছর ধরে এই পুরস্কারের মাধ্যমে ব্যাপক এশীয় চলচ্চিত্রের নতুন শক্তিকে সমর্থন করা হয়। এ চলচ্চিত্র থেকে ব্যাপক তরুণ চলচ্চিত্র-ব্যক্তিরা চলচ্চিত্র মঞ্চের কেন্দ্রে অবস্থান করছেন।

পরিচালক নিং হাওয়ের পরিচালিত 'মঙ্গোলিয়ান পিং প' চলচ্চিত্রটি ২০০৫ সালে অষ্টম শাংহাই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্সবের এশিয়ার নিউকামার পুরস্কার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়। ১৪ বছর পর নিং হাও নিউকামার থেকে এই পুরস্কারের জুরি বোর্ডের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

এ বিষয়ে নিজের অনুভূতি সম্পর্কে নিং হাও জানান, 'ব্যক্তিগতভাবে বলা যায়, চলতি বছরের চলচ্চিত্রের বিষয় আরো বিকশিত এবং গভীর। পরিচাকের চিন্তাধারাও অনেক পরিপক্ক।'

নির্বাচনের মানদণ্ড প্রসঙ্গে নিং হাও বলেন, 'এই বিষয় নিয়ে আলোচনার পর জুরি বোর্ডের সদস্যরা একমত হন যে, তরুণ পরিচালক হিসেবে আমরা তাদের বিশেষ সৃজনশীল ক্ষমতা, বৈশিষ্ট্য এবং নান্দনিক অভিযোজন দেখতে আগ্রহী।'

জুরি বোর্ডের সদস্যরা স্বীকার করেন, নিউকামার হিসেবে তারা প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হতেন। সু ইউ পোং বলেন, নতুন পরিচালক হিসেবে সবচেয়ে কষ্টকর ব্যাপার হলো স্বীকৃতি পাওয়া বা উত্সাহ পাওয়া।

তিনি বলেন, 'অন্যদের সঙ্গে মতভেদ সৃষ্টি হলে প্রবীণ পরিচালক বা অভিনেতা অভিনেত্রীদের পরামর্শ, মতামত, উত্সাহ ও অনুপ্রেরণা খুব দরকার।'

এবারের উত্সবে এশিয়ার নিউকামার পুরস্কারের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয় ইরান, জাপান, ভারত ও শ্রীলংকাসহ বিভিন্ন দেশ ও অঞ্চলের ১৪টি শিল্পকর্ম। চলচ্চিত্র উত্সবের এই প্ল্যাটফর্মে এশিয়ার সভ্যতার বৈচিত্র্যতা ফুটে ওঠে। সিঙ্গাপুরের চলচ্চিত্র প্রদর্শনীর উদ্যোক্তা সিয়ে ফু লোং বলেন, এশিয়ার বিভিন্ন দেশের সাংস্কৃতিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের পর্যায় ভিন্ন। যেখানে চলচ্চিত্র বাজার তেমন উন্নত নয়, সেখানে দৃষ্টি রাখছেন তিনি। সেসব জায়গায় অনেক শ্রেষ্ঠ পরিচালক সৃষ্টি হবে বলে তিনি বিশ্বাস করেন।

তিনি বলেন, 'এশিয়া হলো খুব বিশাল অঞ্চল। আমার কাছে খুব মজার বিষয় হলো, কোনো কোনো অঞ্চলে অতি উন্নত সিনেমা হল না থাকলেও চলচ্চিত্র নিয়ে চিন্তা করার অনেক তরুণ সেখানে জন্মগ্রহণ করেন।'

আসলে প্রত্যেক চলচ্চিত্র পরিচালক সংস্কৃতি বা ইতিহাস, বা নানা বিষয় নিয়ে তাদের বিশেষ চিন্তাধারা শিল্পকর্মের মাধ্যমে প্রকাশ করেন। চলচ্চিত্রের শক্তি হলো সংস্কৃতির নানা পার্থক্যে পারস্পরিক সমঝোতা ও সহনশীলতার ভূমিকা পালন করা।

(লিলি/টুটুল)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040