Web bengali.cri.cn   
হাঁটাপথ
  2019-06-17 16:06:27  cri


বন্ধুরা, আজকের অনুষ্ঠানের শুরুতে আমি আপনাদেরকে একজন নারী কন্ঠশিল্পীর গান শোনাবো। তিনি হলেন স্যু সিয়াও ওয়েই। তিনি ১৯৯১ সালের ২৪ অক্টোবরে চীনের শাংহাইতে জন্মগ্রহণ করেন। ২০১৪ সালের এপ্রিল মাসে তিনি চলচ্চিত্রের থিম সং গেয়েছেন। ২০১৭ সালের জুন মাসে তিনি ইন্টারনেট গেমসের থিম সং গেয়েছেন। ২০১৮ সালে তিনি চলচ্চিত্রের থিম সং গেয়েছেন। তিনি অন্য কন্ঠশিল্পীর গান ভালভাবে পুনরায় গাওয়ার জন্য চীনে বিখ্যাত হয়ে ওঠেন। এখন আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে 'হাঁটাপথ' নামের গান। গানটি চীনের তাইওয়ানের কন্ঠশিল্পী চৌ চিয়ে লুন'র কন্ঠের গান। আশা করি, আপনারা স্যু স্যিয়াও ওয়েই'র কন্ঠে গানটি পছন্দ করবেন।

বন্ধুরা, শুনছিলেন সিয়াও ওয়েই'র কন্ঠে 'হাঁটাপথ' শীর্ষক গান। এখন আমি আপনাদেরকে স্যু ইউ থেংয়ের কন্ঠে 'আমি বসন্তকালে তোমার অপেক্ষায় আছি' নামের গান। তিনি ১৯৮১ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি চিয়াংসু প্রদেশের স্যুচৌ শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি নানচিং শিল্প একাডেমি'র ভোকাল সঙ্গীত বিভাগ থেকে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি নানচিং বেতারের সংগীত চ্যানেলে উপস্থাপকের কাজ করেন। এরপর তিনি সংগীত প্রযোজনার কাজ করেন। তিনি অনেক বিখ্যাত কন্ঠশিল্পীর জন্য সংগীত রচনা করেছেন। আশা করি, আপনারা তাঁর কন্ঠে 'আমি বসন্তকালে তোমার অপেক্ষায় আছি' শীর্ষক গান পছন্দ করবেন।

বন্ধুরা, শুনছিলেন স্যু ইউ থেংয়ের কন্ঠে 'আমি বসন্তকালে তোমাকয় অপেক্ষায় আছি' নামের গান। এখন আমরা কন্ঠশিল্পী ইয়ান ওয়েই ওয়েন'র কন্ঠে 'যে দূরবর্তী জায়গায়' শীর্ষক গান শোনাবো। প্রথমে ইয়ান ওয়েই ওয়েন'র পরিচয় তুলে ধরবো। তিনি ১৯৫৭ সালের ২৬ অগাস্ট শানসি প্রদেশের ফিংইয়াও জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি চায়না মিউজিক একাডেমি থেকে স্নাতকা ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি হলেন জাতীয় প্রথম পর্যায়ের অভিনেতা, চীনা সংগীতজ্ঞ সমিতির সদস্য ও কেন্দ্রীয় সামরিক রাজনৈতিক কাজ বিভাগের কন্ঠশিল্পী। ১৯৮৪ সালে তিনি প্রথম চীনের টেলিভিশন যুবক কন্ঠশিল্পী প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। আশা করি, তাঁর কন্ঠে গানটি পছন্দ করবেন।

বন্ধুরা, শুনছিলেন ইয়ান ওয়েই ওয়েন'র কন্ঠে 'যে দূরবর্তী জায়গায়' শীর্ষক গান। এখন একজন চীনের তাইওয়ানের কন্ঠশিল্পীর পরিচয় দেবো। তিনি হলেন ইয়াং ছিং হুয়াং। তিনি ১৯৬০ সালে তাইওয়ানের চাংহুয়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি একজন কন্ঠশিল্পী ও অভিনেতা। তিনি হলেন বিখ্যাত নারী কন্ঠশিল্পী ইয়াং সিয়াও ফিংয়ের ছোট ভাই। ১৯৯১ সালে তিনি একটি টিভি সিরিজের থিম সং গাওয়ার পর সারা চীনে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন। এখন আপনরাদেরকে তাঁর কন্ঠে 'যুব বিদ্যালয়' শীর্ষক গান শোনাবো। আশা করি, বন্ধুরা গানটি পছন্দ করবেন।

বন্ধুরা, শুনছিলেন ইয়াং ছিং হুয়াংয়ের কন্ঠে 'যুব বিদ্যালয' শীর্ষক গান। এখন আমি আপনাদেরক 'ফুল কেন এত লাল' শীর্ষক গান শোনাবো। গানটি চীনের সিনচিয়াংয়ের লোকসংগীত। আগের অনুষ্ঠানে আমরা কয়েকজন কন্ঠশিল্পীর সম্মিলিত কন্ঠে গানটি শুনেছিলাম। আজকের অনুষ্ঠানে আমরা নারী কন্ঠশিল্পী ইয়াং শু গুয়াংয়ের কন্ঠে গানটি শুনবো। তিনি হুনান সিয়াংসি থুচিয়া জাতির মানুষ। তিনি এখন চায়না মিউজিক একাডেমির অধ্যাপক। ১৯৯৪ সালে তিনি বেইজিং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশিষ্ট যুব শিক্ষকের পুরস্কার লাভ করেন। আশা করি, আপনারা তাঁর কন্ঠে গানটি পছন্দ করবেন।

বন্ধুরা, শুনছিলেন ইয়াং শু গুয়াংয়ের কন্ঠে 'ফুল কেন এত লাল' শীর্ষক গান। এখন আমি আপনাদেরকে আরেকজন তাইওয়ানের কন্ঠশিল্পীর কন্ঠে গান শোনাবো। তিনি হলেন ইয়ে চিয়া স্যিউ। তিনি ১৯৫৫ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন। তিনি অনেক বিখ্যাত কন্ঠশিল্পীর জন্য সংগীত রচনা করেছেন। ১৯৮৬ থেকে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত তিনি তাইওয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত প্রতিযোগিতায় বিচারকের কাজ করতেন। ২০০৯ সাল থেকে তিনি চীনের মূল ভূভাগে সংগীত নিয়ে কাজ শুরু করেন। আজকের অনুষ্ঠানে আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে 'সূর্যাস্তে ফিরে যাই' শীর্ষক গান শোনাবো। আশা করি, আপনারা গানটি পছন্দ করবেন।

প্রিয় শ্রোতা, এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের সবাইকে জানাই অসংখ্য ধন্যবাদ। যদি আমাদের অনুষ্ঠানে আপনারা কোনো পছন্দের গান শুনতে চান, তাহলে জানাবেন। আমাদের ই-মেইল ঠিকানা ben@cri.com.cn। আর আমার নিজস্ব ইমেইল ঠিকানা caiyue@cri.com.cn। 'গানের অনুরোধ' আমার নিজস্ব ই-মেইল ঠিকানায় পাঠালে ভালো হয়। আজ তাহলে এ পর্যন্তই। আশা করি, আগামী সপ্তাহের একই দিন, একই সময়ে আবারো আপনাদের সঙ্গে কথা হবে। সে পর্যন্ত সবাই ভালো থাকুন, আনন্দে থাকুন। চাই চিয়ান। (ছাই/আলিম/সুবর্ণা)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040