Web bengali.cri.cn   
চীনা গায়িকা হুয়াং ইয়ুন লিং
  2019-05-23 10:24:50  cri


গান 

বন্ধুরা, যে গানটি মাত্র শুনলেন সেটি চীনের তাইওয়ানের বিখ্যাত গায়ক ও প্রযোজক হুয়াং ইয়ুন লিংয়ের রচিত গান 'হার্টবিট' (heartbeat)। গানটি ১৯৯৯ সালে প্রকাশিত হয়। এটি হুয়াং ইয়ুন লিংয়ের বিখ্যাত একটি গান। হুয়াং ইয়ুন লিং একজন গায়িকা হিসেবে প্রথমে তার সংগীত জীবন শুরু করেন। তবে, পরে প্রযোজক হিসেবে আরও বেশি কাজ করেন এবং পরিচিত হন। বন্ধুরা আজকের অনুষ্ঠানে হুয়াং ইয়ুন লিংয়ের সঙ্গে আপনাদের পরিচয় করিয়ে দেবো এবং তার রচিত কিছু সুন্দর গান শোনাবো।

হুয়াং ইয়ুন লিং ১৯৬৪ সালে চীনের তাইওয়ানের ই লান জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা-মা ক্লাসিক সংগীতের শিল্পী। পরিবারের প্রভাবে তিনি ৩ বছর বয়স থেকে পিয়ানো শিখতে শুরু করেন। ১৪ বছর বয়সে হুয়াং ইয়ুন লিং তাইওয়ানের একটি বিখ্যাত সংগীত প্রতিযোগিতায় অংশ নেন, আর ৬ মাস লড়াই করে চ্যাম্পিয়ন হন। তখন তিনি সংগীতকে তার পেশা হিসেবে নির্ধারণ করেন।

সেই প্রতিযোগিতার পর অনেক মানুষ হুয়াং ইয়ুন লিং সম্পর্কে জানতে পারেন। তখন হংকংয়ের বিখ্যাত গায়ক ও প্রযোজক লৌ তা ইয়ৌ তাকে আবিষ্কার করেন এবং তাকে শিক্ষার্থী হিসেবে গ্রহণ করেন। খুব তরুণ হলেও হুয়াং ইয়ুন লিং অনেক টিভি নাটক ও চলচ্চিত্রের জন্য গান রচনা করেন। ২২ বছর বয়সে হুয়াং ইয়ুন লিং বিখ্যাত সংগীত কোম্পানি 'রক রেকর্ডসে' যোগ দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে তার পেশাদার সংগীত জীবন শুরু করেন। সে বছর তিনি তার প্রথম অ্যালবাম 'ভারাক্রান্ত ছেলে' প্রকাশ করেন। বন্ধুরা, এখন শুনুন অ্যালবামের একটি সুন্দর গান 'তুমি অনন্য'।

ছোট থেকে ক্লাসিক সংগীতের প্রশিক্ষণ নিলেও হুয়াং ইয়ুন লিংয়ের অধিকাংশ গানে পপ, ইলেকট্রনিক ও ড্যান্স মিউজিকাল ইত্যাদি আধুনিক সংগীত উপাদান ব্যবহৃত হয়েছে। আর তার গান গত শতাব্দীর ৮০ দশকের তাইওয়ানে এক নতুন প্রবণতায় নেতৃত্ব দেয়। বন্ধুরা, এখন শুনুন হুয়াং ইয়ুন লিংয়ের একটি জনপ্রিয় গান 'বিয়ারের সমুদ্র'।

পরের গানে আমরা শুনবো হুয়াং ইয়ুন লিংয়ের খুব সুন্দর একটি গান 'আমি সত্যি তোমাকে দেখতে চাই'। গানটি ১৯৮৮ সালে প্রকাশিত হয় এবং হুয়াং ইয়ুন লিংয়ের প্রতিনিধিত্বকারী গানের অন্যতম। গানে সহজ সুরে অকপটে মনের কথা বলা হয়েছে। গানের কথায় বলা হয়, আমি সত্যি তোমাকে দেখতে চাই, তোমার সঙ্গে আড্ডা দিতে চাই। আমরা সব দুঃখের অতীত ভুলে যাই, কোনো দাবি করি না। আমি শুধু তোমাকে দেখতে চাই। বন্ধুরা, এখন গানটি শোনা যাক।

একজন গায়িকা হিসেবে হুয়াং ইয়ুন লিংয়ের প্রকাশিত গান উচ্চ মান বজায় রেখেছে এবং পেশাদার লোকের প্রশংসা পেয়েছে; কিন্তু, সাধারণ মানুষের কাছে বেশি জনপ্রিয় হয়নি। ১৯৯০ সাল থেকে হুয়াং ইয়ুন লিং গান গাওয়ার পরিবর্তে গান রচনায় মনোযোগ দেন। তিনি আরও বেশি শক্তি ও সময় ব্যয় করে অন্য শিল্পীর জন্য অ্যালবাম তৈরি করেন। একজন প্রযোজক হিসেবে হুয়াং ইয়ুন লিং বিভিন্ন গায়কের জন্য খুব জনপ্রিয় গান রচনা করেন।

বন্ধুরা, এখন শুনুন হুয়াং ইয়ুন লিংয়ের গায়ক চাও ছুয়ানের জন্য রচিত গান 'আমি কুৎসিত, কিন্তু আমি খুব মৃদু'। গত শতাব্দীর ৯০ দশকে চীনের জনপ্রিয় গানগুলোর অন্যতম এটি। গায়ক চাও ছিয়ুন এই গানের মাধ্যমে সবার কাছে পরিচিতি পান। শহর জীবনে এক সাধারণ লোকের মনের দুর্বলতা এ গানে সুন্দরভাবে বলা হয়েছে। বন্ধুরা, এখন আমরা 'আমি কুৎসিত, কিন্তু আমি খুব মৃদু' শুনবো।

পরের গানে আমরা শুনবো হুয়াং ইয়ুন লিংয়ের একটি গান। গানের নাম 'সত্যি ভালোবাসা, মূল্যায়ন করা', গেয়েছেন চীনা সংগীতের জনপ্রিয় গায়িকা মে ইয়েন ফাং। এ দু'জন বিখ্যাত সংগীত শিল্পীর সহযোগিতায় গানটি অনেক সুন্দর এবং খুব জনপ্রিয় হয়। বন্ধুরা, এখন এই সুন্দর গান 'সত্যি ভালোবাসা, মূল্যায়ন করা' শুনি।

বর্তমানে হুয়াং ইয়ুন লিং তেমন গান করেন না; তবে সংগীত প্রযোজক হিসেবে বেশ কাজ করছেন। শুধু অন্য শিল্পীর অ্যালবাম তৈরিই নয়, বিভিন্ন সংগীত অনুষ্ঠানে বিচারকের ভূমিকা পালন করেন ও নতুন শিল্পীদের প্রশিক্ষণ দেন। তার এখন নিজস্ব সংগীত কোম্পানি আছে।

অনুষ্ঠানের শেষে আমরা হুয়াং ইয়ুন লিংয়ের আরও একটি সুন্দর গান 'দূরে' শুনবো। আশা করি তার রচিত গান আপনাদের ভালো লাগবে।

(তুহিনা/তৌহিদ/ওয়াং হাইমান)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040