Web bengali.cri.cn   
সংবাদ পর্যালোচনা: চীনের সঙ্গে ইতালির সম্পর্ক আরো উন্নত হয়ে উঠবে: ইতালির প্রধানমন্ত্রী
  2019-03-22 13:38:11  cri

মার্চ ২২: চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিংয়ের এবারের ইতালি রাষ্ট্রীয় সফর নিয়ে সেদেশের প্রধানমন্ত্রী গুইসেপ কন্টে চীনা গণমাধ্যমের কাছে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের ভবিষ্যত, আর্থ-বাণিজ্য, সাংস্কৃতিক বিনিময় এবং আন্তর্জাতিক ইস্যুতে দু'দেশের সহযোগিতাসহ বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।

সাক্ষাত্কারে তিনি বলেন, ইতালি 'এক অঞ্চল, এক পথ' উদ্যোগের সহযোগিতার স্মারকলিপি স্বাক্ষর করায় দু'দেশের সম্পর্ক আরো উন্নত হয়ে উঠবে বলে তিনি বিশ্বাস করেন। তিনি চলতি বছরের এপ্রিল মাসে চীনে অনুষ্ঠেয় 'এক অঞ্চল, এক পথ' বিষয়ক আন্তর্জাতিক সহযোগিতার শীর্ষ ফোরামে অংশ নেওয়ার কথাও ঘোষণা করেন।

আজকের সংবাদ পর্যালোচনায় এ নিয়ে শুনবেন একটি প্রতিবেদন।

সাক্ষাত্কারে তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট সি'র সফরকালে দু'দেশের নেতাদ্বয় ইতালির 'এক অঞ্চল, এক পথ' সহযোগিতা বিষয়ক স্মারকলিপির স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন। তিনি বলেন,

'প্রেসিডেন্ট সি'র সফর দু'দেশের সম্পর্কের উন্নয়নকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য অতি গুরুত্বপূর্ণ। ১০ বছর ধরে তিনি ইতালি সফর করা প্রথম চীনা নেতা। ইতালি হচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ই ইউ'র সদস্য রাষ্ট্র। তাই আমরা চীন-ইউরোপের সম্পর্কের উন্নয়নকে বেগবান করবো। তাই প্রেসিডেন্ট সি'র এবার সফর এবং ইতালির আনুষ্ঠানিকভাবে 'এক অঞ্চল, এক পথ' উদ্যোগের সহযোগিতায় যোগদান করা ও স্মারকলিপি স্বাক্ষর করা দু'দেশের স্থিতিশীল সম্পর্ক আরো সুসংহত করবে বলে আমি বিশ্বাস করি।'

ইতালি জি-৭ গ্রুপের মধ্যে 'এক অঞ্চল, এক পথ' উদ্যোগে যোগদান করা প্রথম দেশ হয়ে ওঠে বলে ধারণা করা হয়। 'এক অঞ্চল, এক পথ' নির্মাণে ইতালির ভূমিকা প্রসঙ্গে কন্টে বলেন,

'আমরা সরকারের পক্ষ থেকে 'এক অঞ্চল, এক পথ' উদ্যোগে যোগ দিয়েছি। কারণ আমি মনে করি, ভৌগলিক দিক থেকে বলা যায়, ইতালি 'এক অঞ্চল, এক পথ' বা প্রাচীন রেশমপথের গন্তব্যস্থানে রয়েছে। এতে যোগদান করলে আমাদের আর্থ-বাণিজ্যের উন্নয়ন বাস্তবায়িত হবে। ইতালি অবকাঠামোর নির্মাণ কাজে অংশ নেবে এবং চীনের প্রতি রপ্তানি বাড়াবে। ইতালির শিল্প-প্রতিষ্ঠান এবং জাতীয় অর্থনৈতিক ব্যবস্থা এতে উপকৃত হবে।'

২০১৮ সালে চীন–ইতালির আর্থ-বাণিজ্যিক সম্পর্কের উন্নয়ন অনেক সুষ্ঠু ছিলো। ইতালির অর্থনীতি উন্নয়নবিষয়ক মন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশটির বিরাটাকারের প্রতিনিধি দল শাংহাইয়ে অনুষ্ঠিত চীনের প্রথম আন্তর্জাতিক আমদানি মেলায় অংশ নেয়। চীনের প্রতি ইতালির রপ্তানির প্রবৃদ্ধির হার ২০ শতাংশ ছাড়িয়ে যায়। দু'দেশের আর্থ-বাণিজ্যিক সম্পর্কের ভবিষ্যত প্রসঙ্গে কন্টে বলেন,

'আমি মনে করি, দু'দেশের আর্থ-বাণিজ্যিক সম্পর্ক আরো উন্নত হতে পারবে। ইতালির শিল্প-প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে চীনের অর্থনীতির সুপ্ত সম্ভাবনা বিশাল। দু'দেশের ঘনিষ্ঠ আর্থ-বাণিজ্যিক সম্পর্কের উন্নয়নের মাধ্যমে আমাদের শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলো আরো ভালোভাবে চীনের বাজারে প্রবেশ করবে। সরকারের নেতা হিসেবে এটা আমার লক্ষ্য এবং গোটা ইতালির লক্ষ্যও।'

বর্তমানে বিশ্ব বেশ কয়েকটি চ্যালেঞ্জ ও অনিশ্চিত উপাদানের সম্মুখীন হচ্ছে। একতরফাবাদ ও বাণিজ্য সংরক্ষণবাদ আবার দেখা দিয়েছে। আন্তর্জাতিক ইস্যুতে চীন ও ইতালির সহযোগিতা প্রসঙ্গে কন্টে বলেন, প্রেসিডেন্ট সি'র সঙ্গে হাতে হাত ধরে নানা চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা এবং আন্তর্জাতিক বহুপক্ষীয় শৃঙ্খলা সুরক্ষা করা যায় বলে তিনি মনে করেন।

(লিলি/টুটুল)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040