Web bengali.cri.cn   
ধুলো গান গাইছে
  2019-01-22 10:26:18  cri



বন্ধুরা, আজকের অনুষ্ঠানের শুরুতে আমি আপনাদেরকে সাদিংদিংয়ের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেবো। তিনি ১৯৭৯ সালের ২৭ ডিসেম্বর হোনান প্রদেশের ফিংদিশান শহরে জন্মগ্রহণ করেন। ২০০০ সালে তিনি চীনের কেন্দ্রীয় টেলিভিশন কেন্দ্রের (সিসিটিভি) নবম যুব কন্ঠশিল্পী প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন। এরপর তিনি চীনা গণমুক্তি ফৌজের নৌবাহিনীর রাজনৈতিক বিভাগের নাচ গান গ্রুপে অংশ নেন। প্রথমে শোনাবো তাঁর কন্ঠে 'ধুলো গান গাইছে' নামের গান। গানটি তাঁর তৃতীয় অ্যালবামে অন্তর্ভুক্ত। আশা করি, আপনারা গানটি পছন্দ করবেন।

বন্ধুরা, শুনছিলেন সাদিংদিংয়ের কন্ঠে 'ধুলো গান গাইছে' নামের গান। ২০০১ সালে তিনি সারা চীনে জনপ্রিয় হয়ে উঠেন। ২০০৪ সালে তিনি অ্যালবাম প্রকাশ করেন। তাঁর আসল নাম চৌ ফেং। প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ করার পর তিনি নিজের নাম রাখেন সাদিংদিং। ২০০৬ সালে তিনি বাহিনী থেকে সরে যান। ২০০৭ সালে তিনি দ্বিতীয় অ্যালবাম প্রকাশ করেন। ২০০৮ সালে তিনি বিবিসি'র বিশ্ব সংগীত প্রতিযোগিতার এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে শ্রেষ্ঠ সংগীত প্রযোজকের পুরস্কার লাভ করেন। এখন আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে 'সবকিছু বৃদ্ধি পায়' নামের গান শোনাবো। আশা করি, আপনারা গানটি পছন্দ করবেন।

বন্ধুরা, শুনছিলেন সাদিংদিংয়ের কন্ঠে কয়েকটি গান। এখন আমি আপনাদেরকে নারী কন্ঠশিল্পী সুন ইউয়ে'র সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেবো। তিনি ১৯৭২ সালের ২৯ জুন হেলংচিয়াং প্রদেশের হার্বিন শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি একজন কণ্ঠশিল্পী ও অভিনেত্রী। ১৯৮৭ সালে তিনি হেলংচিয়াং সামরিক বাহিনীতে যুক্ত হন। ১৯৮৮ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত তিনি বেল ক্যানো শিখেন। এ সময় তিনি চীনের পুরো সেনাবাহিনীর সৈন্যদের সঙ্গীত প্রতিযোগিতায় তৃতীয় হন। ১৯৯১ সালের জুন মাসে তিনি চীনা কমিউনিস্ট পার্টিতে যোগ দেন। এখন আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে 'আনন্দিত চীনা নববর্ষ' নামের গান শোনাবো।

বন্ধুরা, শুনছিলেন সুন ইউয়ে'র কন্ঠে 'আনন্দিত চীনা নববর্ষ' নামের গান। ১৯৯২ সালে তিনি অবসর নেয়ার পর হার্বিন শিল্প দলে অংশ নেন। একই বছর তিনি চীনের কেন্দ্রীয় টেলিভিশন কেন্দ্র (সিসিটিভি)-র পঞ্চম তরুণ গায়ক প্রতিযোগিতার পপসঙ্গীত দলে তৃতীয় স্থান হন। এ বছরে তিনি টিভি সিরিজে অভিনয় শুরু করেন। ১৯৯৪ সালে তিনি 'আপনার শান্তি কামনা করি' নামের গান প্রকাশ করেন এবং গানটি দিয়ে চীনের সবচেয়ে জনপ্রিয় নারী কণ্ঠশিল্পীর মর্যাদা লাভ করেন। ২০০৩ সালে তিনি চীনের সর্বশ্রেষ্ঠ নারী কণ্ঠশিল্পীর মর্যাদা লাভ করেন। এরপর তিনি বেইজিং অলিম্পিক গেমসসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক অনুষ্ঠানে কণ্ঠ দেন। এখন শোনাবো তাঁর কন্ঠে 'একসঙ্গে যাবো' নামের গান। আশা করি, আপনারা গানটি পছন্দ করবেন।

বন্ধুরা, শুনছিলেন সুন ইউয়ে'র কন্ঠে 'একসঙ্গে যাবো' নামের গান। এখন আমি আপনাদেরকে 'আপনার শান্তি কামনা করি' নামের গান শোনাবো। গানটির কথা হল, 'আপনার মন এখন কেমন? আপনার চেহারায় হাসি আছে কিনা? মানুষের জীবনে শুরু থেকে অনেক দুঃখ আছে। দয়া করুন, দুঃখ লাগবে না, কিন্তু সুখী হবেন। আপনার আয় এখনো কম কিনা? আপনার অবদান এখনো এত বেশি কিনা? আপনার শান্তি কামনা করি, আপনার শান্তি কামনা করি। আপনি আজীবন সুখে থাকবেন, এটা আমার সর্বোচ্চ আকাঙ্খা। আপনার শান্তি কামনা করি, আপনার শান্তি কামনা করি। আপনার চারপাশে আনন্দ থাকুক, এটা আমার কামনা'। আচ্ছা, বন্ধুরা, এখন আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

এখন শুনবো আরেকজন নারী কণ্ঠশিল্পীর গান। গানের শিরোনাম 'হোয়াট'স আপ'। গেয়েছেন চাং লিয়াং ইং। তিনি ১৯৮৪ সালের ১১ অক্টোবর সিছুয়ান প্রদেশের ছেংতু শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি সিছুয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের বিদেশি ভাষা একাডেমি থেকে স্নাতক হন। ২০০৫ সালে তিনি একটি টিভি সংগীত প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান অধিকার করেন। ২০০৬ সালে তিনি নিজের প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ করেন। ২০০৭ সালে তিনি উত্তর আমেরিকা মহাদেশে নিজের সঙ্গীতানুষ্ঠান আয়োজন করেন। ২০০৮ সালে তিনি তখন তত্কালীন চীনা প্রেসিডেন্ট হু চিন থাও'র সঙ্গে জাপান সফর করেন। ২০০৯ সালে তিনি আমন্ত্রিত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রের 'দ্য অপ্রাহ উইনফ্রে শো'-তে অংশ নেন। এরপর তিনি নিজের সঙ্গীত ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করেন। চলুন, আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

প্রিয় শ্রোতা, এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের সবাইকে জানাই অসংখ্য ধন্যবাদ। যদি আমাদের অনুষ্ঠানে আপনারা কোনো পছন্দের গান শুনতে চান, তাহলে জানাবেন। আমাদের ই-মেইল ঠিকানা ben@cri.com.cn। আর আমার নিজস্ব ইমেইল ঠিকানা caiyue@cri.com.cn। 'গানের অনুরোধ' আমার নিজস্ব ই-মেইল ঠিকানায় পাঠালে ভালো হয়। আজ তাহলে এ পর্যন্তই। আশা করি, আগামী সপ্তাহের একই দিন, একই সময়ে আবারও আপনাদের সঙ্গে কথা হবে। সে পর্যন্ত সবাই ভালো থাকুন, আনন্দে থাকুন। চাই চিয়ান। (ছাই/টুটুল)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040