Web bengali.cri.cn   
রোববারের আলাপন-181216
  2018-12-21 21:10:24  cri


আকাশ: সুপ্রিয় শ্রোতা, সবাইকে স্বাগত জানাচ্ছি চীন আন্তর্জাতিক বেতারের বাংলা অনুষ্ঠানে। আপনাদের আন্তরিক প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি আমাদের সাপ্তাহিক আয়োজন 'রোববারের আলাপন'। আপনাদের সঙ্গে আছি এনামুল হক টুটুল এবং শিয়েনান আকাশ।

আকাশ: বন্ধুরা, প্রথমে আমরা ক্রিকেট সম্পর্কিত একটি সুখবর আপনাদের সাথে শেয়ার করবো, কেমন?

টুটুল: ঢাকা টেস্ট ক্রিকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের জয়

সম্প্রতি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঢাকা টেস্টের তৃতীয় দিনে ইনিংস ও ১৮৪ রানের বিশাল জয় পেয়েছে স্বাগতিকরা। এতে দুই ম্যাচ সিরিজে ক্যারিবীয়দের ২-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ করলো সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল।

এ জয়ের মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো কোনো টেস্ট ম্যাচে ইনিংস ব্যবধানে জিতে ইতিহাস তৈরি করেছে বাংলাদেশ। দুই ইনিংসে ১২ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হন মেহেদি হাসান মিরাজ। অন্যদিকে সাকিব আল হাসান সিরিজ সেরার পুরস্কার পান।

টুটুল: আপনার কিছু মনের অনুভূতি...

আকাশ: বন্ধুরা, সম্প্রতি চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং পর্তুগাল সফর করেন। অনেক ক্ষেত্রে দু'দেশের ঘনিষ্ঠ আদান-প্রদান রয়েছে। খেলাধুলাও এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত। বর্তমানে চীনের ফুটবল মহলে ১২০জনেরও বেশি পর্তুগিজ কোচ আছেন। আজ আমরা তাদের মধ্যে একজনের গল্প শুনবো, কেমন?

টুটুল: ফুটবল বিভিন্ন সংস্কৃতি ও বিভিন্ন দেশের জনগণকে সংযুক্ত করেছে: পর্তুগিজ ফুটবল কোচ পেরেইরা

চীন ও পর্তুগাল ভৌগোলিকভাবে অনেক দূরের দু'টি দেশ। কিন্তু দু'দেশের বাণিজ্য, সংস্কৃতি, জনগণের আদান-প্রদানে এই দূরত্ব একদম প্রভাব ফেলতে পারে নি। বর্তমানে চীনের ফুটবল মহলে ১২০জনেরও বেশি পর্তুগিজ কোচ আছেন। তাদের মধ্যে চায়না সুপার লিগ (সিএসএল)-র শাংহাই এসআইপিজে ফুটবল দলের কোচ ভিক্টর পেরেইরা অনেক জনপ্রিয়। সম্প্রতি তিনি চীন আন্তর্জাতিক বেতারকে সাক্ষাত্কার দিয়েছেন।

যদি পর্তুগালের ফুটবলের কথ বলা হয়, তাহলে সবার প্রথমে ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্দোর কথা মনে পড়ে। কিন্তু এ বছর চীনের ফুটবল ভক্তরা আরেকজন পর্তুগিজ ব্যক্তিকে চিনতে পেরেছেন। তিনি হলেন ভিক্টর পেরেইরা। তার নেতৃত্বে শাংহাই সিআইপিজে ফুটবলদল ইতিহাসে প্রথমবারের মতো চায়না সুপার লিগে চ্যাম্পিয়ন হয়।

পর্তুগাল ও গ্রিসের সুপার লিগে অনেক ফলাফল অর্জন করার পর ২০১৮ সালে পেরেইরা চীনের শাংহাই সিআইপিজে ফুটবল দলের কোচের দায়িত্ব পালন শুরু করেন।

সাংবাদিক তাকে জিজ্ঞাস করেন, চীন ও ইউরোপের ফুটবল লিগের মধ্যে অনেক পার্থক্য আছে। কেন তিনি একটা অজানা পরিবেশ বাছাই করেছেন। তিনি জবাবে বলেন, চীনের ফুটবল লিগের উন্নয়নের গতি এবং সম্ভাবনা তাকে আকৃষ্ট করেছে।

তিনি বলেন, আমরা জানি, এখন চীনের ফুটবল উন্নয়নের পর্যায়ে রয়েছে। উন্নয়নের গতি অনেক দ্রুত। চীনের লিগে এখন অনেক বিদেশি খেলোয়াড় আছেন এবং লিগের খেলোয়াড়রা খুব প্রতিযোগী এবং উচ্চ মানের।

তিনি জানান, চীনে আসার আগে চীনের লিগ এবং দলের তথ্য সম্পর্কে তিনি অনেক জেনেছেন। পাশাপাশি শাংহাই এসআইপিজে ফুটবলদল নিয়েও তিনি অনেক গবেষণা করেছেন। এটা দলটিকে লিগে চ্যাম্পিয়ন হতে একটি সুষ্ঠু ভিত্তি তৈরি করেছে।

লিগের এতগুলো দলের মধ্যে অভিজাত দলে পরিণত হবার কারণ হচ্ছে অধ্যবসায়। তিনি সাংবাদিককে বলেন, অনেক কঠিন অবস্থার মোকাবিলা করে, অনেক অধ্যবসায়ের কারণে তার দল চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।

তিনি বলেন, লিগে আমরা সবসময় সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি, কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ খেলায় আমরা ভাল ফলাফল অর্জন করেছি। এজন্য অধ্যবসায়ের কারণে আমরা চ্যাম্পিয়ন হতে পেরেছি।

ভিক্টর পেরেইরা ছাড়াও চীনে এখন প্রায় ১২০ জনেরও বেশি পর্তুগিজ ফুটবল কোচ আছেন। পেরেইরা বলেন, পর্তুগাল হচ্ছে একটি ফুটবলপ্রেমি দেশ। জন্ম থেকে আমরা ফুটবলের সাথে সংযুক্ত। আমরা ফুটবল সম্পর্কে অনেক শিখেছি, পর্তুগালে ফুটবলের শিক্ষাও অনেক ভাল, এজন্য বিশ্বব্যাপী পর্তুগালের ফুটবল কোচ অনেক ভাল প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকেন।

তিনি মনে করেন, পর্তুগালের ফুটবল কোচ অন্যান্য দেশে প্রশিক্ষণ দেয়ার সময় জানেন, স্থানীয় ফুটবলের পরিবেশের সাথে কিভাবে মানিয়ে নিতে হবে।এজন্য তারা সফল হতে পারেন। বিশেষ করে তিনি তরুণ ফুটবল কোচদের কথা উল্লেখ করেন। তিনি মনে করেন, উন্নয়নশীল চীনের ফুটবল পর্তুগালের তরুণ কোচদের জন্য চীনের ফুটবলের সাথে আদানপ্রদানের সুযোগ সৃষ্টি করেছে।

পর্তুগালের তরুণ ফুটবলার প্রশিক্ষণের মান বিশ্ববিখ্যাত। একারণে পর্তুগালের ফুটবল বিশ্বের নেতৃস্থানীয় অবস্থানে রয়েছে। ২০১৬ সালে ইউরোপিয়ান ফুটবল চ্যাম্পিয়নে পর্তুগাল চ্যাম্পিয়ন হয়। প্রেসিডেন্ট মার্সেলো রেবেলো সোসা দলের সব খেলোয়াড়দের সঙ্গে সাক্ষাত্ করেন। সম্প্রতি চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং পর্তুগাল সফর করেন। তিনিও একজন ফুটবল ভক্ত। পেরেইরা মনে করেন, ফুটবল বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মধ্যে সংযোগ স্থাপনের ভূমিকা পালন করে।

তিনি বলেন, ফুটবল বিভিন্ন সংস্কৃতি ও বিভিন্ন দেশের জনগণকে সংযুক্ত করে। ফুটবল সবকিছুকে সংযুক্ত করতে পারে।

আগামী বছর তিনি শাংহাই এসআইপিজে ফুটবল দল নিয়ে চীনে ও আন্তর্জাতিক খেলায় অংশ নেবেন। তিনি বলেন, চীনে তিনি খুব খুশি, ক্লাব তাকে খুব ভাল যত্ন নেয়, এ ছাড়া চীনের ফুটবল এখন অনেক দ্রুত উন্নয়ন হচ্ছে। এসব কারণে তিনি আরো বেশি চীনে থাকতে চান। তিনি বলেন, চীন এখন সবদিকে খুবই সুষ্ঠুভাবে উন্নয়ন করছে, অবশ্যই ফুটবলও এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত। তিনি মনে করেন, চীনের ফুটবলের উজ্জ্বল ভবিষ্যত আছে।

তিনি বলেন, চীনের অনেক ক্ষেত্র এখন বিশ্বের নেতৃস্থানীয় অবস্থানে আছে। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, ফুটবলও খুব তাড়াতাড়ি চীনের একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রতীক হয়ে উঠবে।

সংগীত

আকাশ: বন্ধুরা, এখন আমরা চীনের বিখ্যাত নারী টেবিল টেনিস খেলোয়াড় তেং ইয়া পিংয়ের গল্প শুনবো।

বন্ধুরা, আপনাদের নিশ্চয়ই মনে আছে যে, সম্প্রতি আমরা চীনের বিখ্যাত পিংপং (টেবিল টেনিস) খেলোয়াড় তেং ইয়া পিংয়ের লেখাপড়ার গল্প আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি। তিনি পেশাদার পিংপং প্রতিযোগিতা থেকে অবসর নেয়ার পর ব্রিটেনের ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া শুরু করেন।

আজ আমরা তার বিশ্ববিদ্যালয়ের লেখাপড়ার আরো কিছু গল্প এবং তার আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি-সম্পর্কিত গল্প আপনাদের সাথে শেয়ার করবো, কেমন?

তেং ইয়া পিং বলেন, "ইংরেজি ভাষা অনর্গলভাবে বলা আমার জন্য অনেক দিক থেকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ। তখন আমি আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির খেলোয়াড় কমিটির সদস্য। পাশাপাশি আমি আন্তর্জাতিক পিংপং সংস্থার একটি প্রকল্পের ইন চার্জ । যদি আমার কথা অন্যান্য মানুষ বুঝতে না পারে, তাহলে সব শূন্য হবে, তাইনা? এ ছাড়া আমি আসলে চীন ও চীনের খেলোয়াড়দের একজন প্রতিনিধি, এজন্য ভাবমূর্তিও খুব গুরুত্বপূর্ণ"।

এক বছর পর, পরীক্ষকদের সামনে তেং ইয়া পিং ইংরেজি ভাষায় তিন হাজার পাঁচশো শব্দের 'সাধারণ মেয়ে থেকে অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন' গবেষণাপত্র উপস্থাপন করেন। তার এই গবেষণার মাধ্যমে চীনের নারী ও নারীদের খেলাধুলার বিশাল উন্নয়ন ও পরিবর্তনের প্রমাণ পাওয়া যায়। এরপর তার গবেষণাপত্র সব পরীক্ষকদের কাছে স্বীকৃতি পায়।

২০০২ সালের ২২ ডিসেম্বর, তিনি স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির সাবেক প্রেসিডেন্ট হুয়ান অ্যান্টোনিও সামারাঞ্চ তেং ইয়া পিংয়ের প্রশংসা করে বলেন, "এখন আপনার হাতে বিশ্ব দরজা খোলার চাবি আছে।"

টুটুল: আপনার কিছু মনের মথা।   

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040