Web bengali.cri.cn   
'চীন আন্তর্জাতিক আমদানি মেলা' সফল হয়েছে: বিদেশি ব্যবসায়ী ও বিশেষজ্ঞদের অভিমত (অর্থ-কড়ি; ১৭ নভেম্বর ২০১৮)
  2018-11-16 16:23:28  cri


১. শাংহাইয়ে সদ্যসমাপ্ত 'চীন আন্তর্জাতিক আমদানি মেলা' সফল হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন জাপানি বিশেষজ্ঞরা। তাঁরা বলেছেন, এই মেলা চীন-জাপান অর্থনৈতিক সহযোগিতা বাড়াতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে এবং এতে দু'দেশের জনগণই উপকৃত হবে।

জাপানি কোম্পানি প্যানাসনিকের চীন শাখার মুখপাত্র চাং থিং সিনহুয়াকে বলেন, 'চলতি বছর প্যানাসনিক কোম্পানি প্রতিষ্ঠার শততম বার্ষিকী। আবার এ বছরই চীন-জাপান শান্তি ও বন্ধুত্ব চুক্তি স্বাক্ষরের ৪০তম বার্ষিকী। চীন আন্তর্জাতিক আমদানি মেলায় অংশ নিতে পেরে প্যানাসনিক গর্বিত।" মেলায় প্যানাসনিক তাদের পণ্য ও প্রযুক্তি প্রদর্শন করেছে 'উন্নততর জীবন, উন্নততর বিশ্ব' শ্লোগানকে সামনে রেখে।

চাং বলেন, "মেলা আমাদের সহযোগী ও অংশীদারদের সঙ্গে যোগাযোগের একটি প্লাটফর্ম হিসেবে কাজ করেছে।...মেলায় আমরা শুধু নিজেদের পণ্য ও প্রযুক্তি প্রদর্শন করতেই আসিনি, এসেছি চীনা সমাজে আরও অবদান রাখার প্রতিশ্রুতি নিয়েও। চীনা কোম্পানিগুলোর সঙ্গে উইন-উইন সহযোগিতা করতেও আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।"

মুখপাত্র বলেন, "একক দেশ হিসেবে চীনে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি মানুষের বাস। চীন বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতিও বটে। চীন ক্রমশ আরও উন্মুক্ত হচ্ছে। প্যানাসনিকও চীনের উন্নয়নের সহযোগী ও অংশীদার হিসেবে আরও বেশি ভূমিকা পালন করে যাবে।"

মেলায় জাপানের ৪৫০টি কোম্পানি অংশগ্রহণ করে। আইচি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক গোরো তাকাহাসি বলেন, "জাপানের অভ্যন্তরীণ বাজার ক্রমশ ছোট হচ্ছে, জন্মের হার কমছে এবং প্রবীণদের সংখ্যা বাড়ছে। এই প্রেক্ষাপটে চীনের উন্মুক্ত বাণিজ্যের পক্ষে থাকাটা জাপানি কোম্পানিগুলোর জন্য সুখবর।"

তিনি জানান, জাপানি কোম্পানিগুলো অগ্রসর চিকিৎসা-সামগ্রী, হাইড্রোজেন কার, অর্গানিক খাদ্য ইত্যাদি খাতে চীনের সাথে সহযোগিতা বাড়াতে ইচ্ছুক।

একই মত প্রকাশ করেছেন নাগোয়া সিটি ইউনিভার্সিটির জুরো নাকাগাওয়া। তিনি বলেন, দু'দেশ স্বাস্থ্য, চিকিৎসাসামগ্রী, খাদ্যসহ বিভিন্ন খাতে পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়াতে পারে। এই সহযোগিতা দু'দেশের জনগণের জন্যই কল্যাণকর হবে।

টোকিওর ফুজিৎসু রিসার্চ ইনস্টিটিউটের সিনিয়র ফেলো চিন চিয়ানমিন বলেন, বিশ্বজুড়ে বাণিজ্যে সংরক্ষণবাদী প্রবণতা বাড়ছে; অথনীতির বিশ্বায়ন বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। এমন অবস্থায় চীন নিজের বাজারকে বিদেশি কোম্পানিগুলোর জন্য আরও উন্মুক্ত করার কথা ঘোষণা করেছে। এটা একটা সুযোগ; চীনের উন্নয়নের সুফলের ভাগ নেওয়ার সুযোগ।

তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক আমদানি মেলা বিদেশি কোম্পানিগুলোর জন্য একটা বড় সুযোগ সৃষ্টি করেছে। চীন বিশ্বের বড় বাণিজ্যশক্তি। চীনের আমদানি বাড়লে শুধু জাপান উপকৃত হবে না, গোটা বিশ্বই উপকৃত হবে।

২. এদিকে, শাংহাইয়ে সদ্যসমাপ্ত চীন আন্তর্জাতিক আমদানি মেলায় অংশগ্রহণকারী দক্ষিণ আফ্রিকার কোম্পানিগুলো বলেছে, চীনে তাদের জন্য বহু ব্যবসা-সুযোগ আছে। ৫ থেকে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত মেলায় দক্ষিণ আফ্রিকার ২৭টি কোম্পানি অংশগ্রহণ করে।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিজনেস ডেভেলপার মার্ক টেইলর বলেন, "চীনে কাজ করার অনেক সুযোগ আমাদের রয়েছে। চীনের বড় কয়েকটি কোম্পানি আমাদের সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এখন চীনের বাজারে আমরা প্রবেশ করতে অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি।"

জুতা প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান লিটল্‌ স্লিপারের সিইও কেইট হর্ন জানান, মেলা থেকে পাওয়া বিভিন্ন সুযোগ কাজে লাগাবে তার কোম্পানি। তিনি বলেন, 'মেলায় আমাদের পণ্যের প্রতি চীনাদের আগ্রহ দেখে আমরা উৎসাহিত হয়েছি।"

৩. এবার সিঙ্গেলস্‌ ডে'তে চীনের ই-কমার্স জায়ান্ট আলিবাবা বিক্রি করেছে ২১৩৫০ কোটি ইউয়ান বা ৩০৭০ কোটি মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য।

প্রতিবছরের ১১ নভেম্বর চীনে 'সিঙ্গেল ডে' হিসেবে পালন করে আলিবাবা। এই দিন আলিবাবা ছাড়কৃত মূল্যে পণ্য বিক্রি করে থাকে। ২০০৯ সালের ১১ নভেম্বর থেকে দিবসটি পালন করে আসছে কোম্পানিটি। তবে, এখন অন্যান্য ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানও এইদিন ছাড়কৃত মূল্যে পণ্য বিক্রি করে থাকে।

.

৪. ডিসেম্বরে প্রতিদিন ৫ লাখ ব্যারেল করে কম তেল উৎপাদন করবে সৌদি আরব। সম্প্রতি এ তথ্য জানিয়েছেন দেশটির জ্বালানিমন্ত্রী খালিদ আল-ফালিহ। অক্টোবর থেকে সৌদি আরব প্রতিদিন এক কোটি সাত লাখ ব্যারেল করে তেল উৎপাদন করে আসছে। সৌদি আরব বিশ্বের বৃহত্তম তেল রফতানিকারক দেশ।

৫. লেবাননে চলতি বছর এখন পর্যন্ত ২২০০টি কোম্পানি বন্ধ হয়ে গেছে। অর্থনৈতিক মন্দাবস্থার কারণেই এমনটা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন দেশটির চেম্বার অব কমার্স, ইন্ডাস্ট্রি অ্যান্ড এগ্রিকালচারের প্রধান মোহামাদ ছৌকেয়ার।

‌তিনি বলেন, দেশের অর্থনীতি ভেঙ্গে পড়ছে। তিনি দেশের অর্থনীতিতে সংস্কারের আহ্বান জানান।

১০. মঙ্গলবার থেকে বাংলাদেশে দেশব্যাপী শুরু হচ্ছে আয়কর মেলা। করসেবা প্রদান ও কর সচেতনতা বাড়াতে প্রতিবছরের মতো আয়কর মেলার আয়োজন করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এবারের আয়কর মেলার স্লোগান 'উন্নয়ন ও উত্তরণ, আয়করের অর্জন'। এবারের মেলার প্রতিপাদ্য হচ্ছে: 'আয়কর প্রবৃদ্ধির মাধ্যমে সামাজিক ন্যায়বিচার ও ধারাবাহিক উন্নয়ন নিশ্চিতকরণ'।

ঢাকাসহ বিভাগীয় শহরগুলোতে মেলা চলবে ১৯ নভেম্বর পর্যন্ত। রাজধানীর মেলা হবে মিন্টো রোডের অফিসার্স ক্লাব প্রাঙ্গণে। এ ছাড়া সব জেলা শহরে চার দিন এবং ৩২টি উপজেলায় দুই দিন মেলা হবে। পাশাপাশি ৭০টি উপজেলায় এক দিন ভ্রাম্যমাণ মেলা অনুষ্ঠিত হবে।#

বর্তমানে বাংলাদেশে মাত্র ২০ লাখ আয়কর রিটার্ন দাখিল করে থাকেন। রিটার্ন দাখিলের এই সংখ্যা ৩৫ লাখে উন্নীত করার পরিকল্পনা আছে সরকারের।

১১. এদিকে, বাংলাদেশে কর প্রদানে সামর্থ্যবানদের মধ্যে দুই-তৃতীয়াংশের বেশি ব্যক্তি এখনও কর দেন না। কর পরিশোধ-পদ্ধতির জটিলতা ও হয়রানির আশঙ্কায় বেশিরভাগ মানুষ করের জালে আসতে ভয় পান। বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) এক ধারণা-জরিপে এ তথ্য উঠে এসেছে। সম্প্রতি রাজধানীর একটি হোটেলে এ জরিপ-প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়।

প্রতিবেদন অনুসারে, সামর্থ্যবান ব্যক্তিদের মধ্যে ৩২ শতাংশ গত বছর কর দিয়েছেন। অর্থাৎ প্রায় ৬৮ শতাংশ সামর্থ্যবান ব্যক্তি কর প্রদান করেননি। এ ছাড়া, উচ্চ আয়ের ২৫ শতাংশ ব্যক্তির মধ্যেও এক-তৃতীয়াংশ গত বছর কর প্রদান করেননি।

জরিপে অংশগ্রহণকারীদের অর্ধেকই মনে করেন, বর্তমান কর ব্যবস্থা অত্যন্ত জটিল। আর গত বছর কর দিয়েছেন যারা তাদের মধ্যে ৫৪ শতাংশ একই ধারণা পোষণ করেন। আর ৬৫ শতাংশ মনে করেন, করব্যবস্থায় দুর্নীতি বিরাজমান। ৭৫ শতাংশ অংশগ্রহণকারী মনে করেন, বিদ্যমান করব্যবস্থা ধনীদের পক্ষে। আর ৮৫ শতাংশ মনে করেন, সরকারি সেবার সরবরাহ এবং এর গুণগত মান বাড়লে মানুষ কর প্রদানে উৎসাহী হবেন।

১২. বিশ্বনন্দিত মোটর সাইকেল কোম্পানি হোন্ডা এবং বাংলাদেশ শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীন স্টিল অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং কর্পোরেশন (বিএসইসি)-এর যৌথ মালিকানায় প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ হোন্ডা প্রাইভেট লিমিটেডের উদ্বোধন করা হয়েছে সম্প্রতি। শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার চর বাউশিয়ার আব্দুল মোমেন ইকোনমি জোনে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

মুন্সীগঞ্জে ২৫ একর জমির উপর ২৩০ কোট টাকা ব্যয়ে যৌথভাবে এই কোম্পানি গড়ে তোলা হয়েছে। হোন্ডা এতে ৭০ শতাংশ এবং বাংলাদেশ স্টিল এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং কর্পোরেশন ৩০ শতাংশ অর্থ বিনিয়োগ করেছে। ২০১৭ সালের ৫ নভেম্বর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের মাত্র এক বছরের মধ্যে ফ্যাক্টরিটি বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদনে যেতে সক্ষম হল।

১৪ হাজার একর আয়তনের এই ফ্যাক্টরিটিতে বছরে এক লাখ মোটর সাইকেল উৎপাদন সম্ভব। নতুন এই ফ্যাক্টরিটি চালু হওয়ায় যেমন কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে, তেমনি এখানকার কর্মীরাও আধুনিক প্রযুক্তি সম্পর্কে জানতে ও কাজ করতে পারবে। বর্তমানে ৩৯০ জন জনবল নিয়ে কাজ শুরু করলেও, অচিরেই লোকবল বাড়ানো হবে।

১৩. শুধু সোনার বার নয়, এখন থেকে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা অলংকারও আমদানি করতে পারবেন। 'স্বর্ণ নীতিমালা ২০১৮'-এর খসড়ায় এ সংযোজন এনে শিগগিরই একটি প্রজ্ঞাপন জারি করতে যাচ্ছে বাংলাদেশের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। দেশে বাণিজ্যিকভাবে সোনা আমদানির পথ সুগম করতে গত ৩রা অক্টোবর মন্ত্রিসভার বৈঠকে 'স্বর্ণ নীতিমালা ২০১৮'-এর খসড়া অনুমোদন করা হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে, সোনা আমদানির পাশাপাশি রফতানির বিষয় নিয়েও আলোচনা হয় বলে জানা গেছে।

(আলিমুল হক)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040