Web bengali.cri.cn   
কাছে থাকার জন্য তোমাকে ধন্যবাদ
  2018-09-30 10:17:17  cri



আপনার কি এমন কোনো বন্ধু আছে যাকে বিশ্বাস করেন গভীরভাবে, জানাতে পারেন মনের অব্যক্ত কথা? আপনার কি এমন কোনো বন্ধু আছে, যে কখনোই ছেড়ে যাবে না আপনাকে? আজকের অনুষ্ঠানের শুরুতেই আমরা যে-গান শুনবো সেটি রচিত হয়েছে পুরুষের বন্ধুত্বকে নিয়ে। গানের শিরোনাম 'চারটি সমুদ্র'। আসলে চীনে চারটি সমুদ্রের অর্থ হলে 'সারা বিশ্ব'। গানের কথা এমন: কত মানুষকে ভাই ডাকা যায়? কোন মানুষ তোমার মেজাজ নিয়ন্ত্রণে ধৈর্য ধরতে পারে? মাত্র কয়েকজন তোমাকে ত্যাগ করবে না। এটি হলো সত্যিকারের বন্ধুত্ব। তোমার জন্য, আমাদের জন্য, আকাশের জন্য, মাটির জন্য, পুরুষের অশ্রু সবসময় সংরক্ষিত। কিন্তু মনের অনুভব বলা যায় না। চার সমুদ্রের (সারা বিশ্বের) বন্ধু, আমার কাছে থাকার জন্য ধন্যবাদ তোমাকে। তুমি কোথায়? আমার বন্ধু, আমার ভাই। প্রতিবার পুনর্মিলনকে আমি অনেক মূল্যায়ন করি। আমি তোমাকে ত্যাগ করতে চাই না'।

আচ্ছা, বন্ধুরা, এখন আমরা গানটি শুনবো।

বন্ধুরা, শুনছিলেন 'চারটি সমুদ্র' শীর্ষক গান। গানটি আসলে চারজন শিল্পী গেয়েছেন। এখন আমরা বন্ধুদেরকে একটি নতুন গান শোনাতে চাই। গানটি আমি রেডিওতে শুনেছিলাম। আমি গাড়ি চালানোর সময় গানটির সুর আমাকে ভীষণ আকর্ষণ করে। গানটির শিরোনাম 'স্মৃতিতে লুকিয়ে থাকা গান'; গেয়েছেন ফাং লং। তিনি ১৯৭১ সালের ২ মে চীনের লিয়াওনিং প্রদেশের ফুসিন শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছোটবেলা থেকেই গানের প্রতি আগ্রহী ছিলেন। ফাং লিংয়ের বাবা প্রথমে গান লেখা ও গাওয়ার বিরোধিতা করতেন। কিন্তু তিনি নিজের স্বপ্ন ত্যাগ করেননি। তিনি দিনে স্কুলে লেখাপড়া করতেন এবং রাতে গান গাওয়া ও লেখা শিখতেন। ১৯৮৮ সালে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে সংগীতজগতে প্রবেশ করেন। ১৯৯৬ সালে তিনি শেনইয়াং সংগীত একাডেমিতে ভর্তি হন। ২০০০ সালের অক্টোবর মাসে তিনি নিজের প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ করেন। এখন তিনি হলেন চেচিয়াং ও শেনইয়াং সংগীত একাডেমির একজন শিক্ষক এবং চীনা সুরকার সমিতির একজন সদস্য। যাই হোক, যে-গানটি শুনবো সেটির কথা এমন: যে গানগুলো আমরা ভালোবাসতাম, তা ছিলো একটি হলুদ রঙের ছবির গ্যালারি। গ্যালারিতে অদম্য যৌবনের ভ্রমণ এবং হৃত্স্পন্দনের লজ্জা রাখা। যে-গানগুলো আমরা গেয়েছিলাম, তা ছিল গল্পসমৃদ্ধ বই। বইতে দুঃখ, সুখ, ত্যাগ ও পুনর্মিলন খোদাই করা...। ...আমরা ভালোবাসতাম, আমরা স্মৃতিতে লুকিয়ে পড়তাম, তা আমাদের যৌবনের সঙ্গে উড়ে যাচ্ছিলো।

আচ্ছা, বন্ধুরা তাহলে এখন আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

বন্ধুরা, শুনছিলেন 'স্মৃতিতে লুকিয়ে থাকা গান'। এখন আমি আপনাদের আরেকটি সুন্দর গানের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেবো। গানের শিরোনাম 'দক্ষিণাঞ্চলের মেয়ে'। গেয়েছেন চাও লেই। তিনি ১৯৮৬ সালের ২০ জুলাই জন্মগ্রহণ করেন। হাইস্কুলে পড়ার সময় থেকেই তিনি গান ও গিটার বাজানো শেখা শুরু করেন। তিনি শেনসি, কানসু, ইউননান, তিব্বত ভ্রমণ করে লোকসংগীতের অভিজ্ঞতা অর্জন করেন। ২০০৩ সালে ১৭ বছর বয়সী চাও লেই নিজের গিটার নিয়ে বেইজিংয়ে আসেন। রাজধানীতে নিজের সংগীত-স্বপ্ন বাস্তবায়ন শুরু করেন। এখন আমি আপনাদের গানটির কথা পড়ে শোনাবো: 'উত্তর চীনে দক্ষিণাঞ্চলের একটি মেয়ে থাকে। সে সবসময় স্কার্ট পড়ে রাস্তায় দাঁড়ায়। সে কথা কম বলে, কিন্তু খুব শান্ত ও সুন্দর। তার নরম চোখে কী আছে? আছে দুঃখের স্মৃতির। দক্ষিণাঞ্চলে বৃষ্টি বেশি, শীতকালে উত্তরাঞ্চলের মতো এতো ঠাণ্ডা নয়। সেখানে তার এতো বেশি মোটা কাপড় পড়া উচিত নয়। সে সড়কে নিজের সুন্দর ছায়া ফেলে গেছে। দক্ষিণাঞ্চলের মেয়ে, তুমি কি উত্তরাঞ্চলের ঠাণ্ডা বুঝতে পেরেছো? দক্ষিণাঞ্চলের মেয়ে, তুমি কি উত্তরাঞ্চলের মানুষের অসঙ্কোচ প্রকাশভঙ্গি পছন্দ করো? দক্ষিণাঞ্চলের মেয়ে, তুমি কি উত্তরাঞ্চলকে ভালোবাসো? তুমি বলেছো, এ বছর তুমি জন্মস্থানে ফিরে যাবে। কারণ, স্মৃতি মানুষকে কষ্ট দেয়। স্মৃতি তোমার অশ্রুকে ডাকছে। দক্ষিণাঞ্চলের ফল সফল হয়। এটি হল সহজ স্বপ্ন'।

আচ্ছা, বন্ধুরা, তাহলে আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

বন্ধুরা, শুনছিলেন 'দক্ষিণাঞ্চলের মেয়ে' গানটি। আশা করি, আপনারা গানটি পছন্দ করেছেন। এখন আমি আরেকটি ভালোবাসার গানের সঙ্গে আপনাদের পরিচয় করিয়ে দেবো। গানের শিরোনাম হল: 'আমি কখন তোমাকে ভালোবেসেছি'। গেয়েছেন লি চিয়ান। তিনি ১৯৭৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বরে হেলংচিয়াং প্রদেশের হার্বিন শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি চীনের শ্রেষ্ঠ বিশ্ববিদ্যালয় ছিংহুয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগ থেকে স্নাতক হন। তার পরিবার একটি সাহিত্যিক পরিবার। তিনি ছোটবেলায় অপেরা শিখেছিলেন। ছোটবেলায় তিনি ছিলেন দুষ্টু প্রকৃতির। জুনিয়র স্কুলে তার গিটার বাজানোয় বেশ আগ্রহ ছিল। ১৯৯৪ সালে তিনি ছিংহুয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জন করেন। ১৯৯৬ সালে তিনি চীনের কেন্দ্রীয় টেলিভিশনের এক সংগীত প্রতিযোগিতার স্বর্ণপদক লাভ করেন। ১৯৯৮ সালে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক হওয়ার পর চীনের জাতীয় বেতার ও টেলিভিশন ব্যুরোর ওয়েবসাইটে ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজ শুরু করেন। ২০০০ সালে তিনি চাকরি ছেড়ে শুরু করেন নিজের সংগীত জীবন। তো এই গানের কথা হল: 'তোমাকে ভুলে যাওয়া অনেক কঠিন। এত বেশি বছর কেটে গেছে, আমার গভীর স্মৃতি থাকার কোনো কারণ নেই। তোমাকে পুনরায় দেখি, তুমি আগের মতো সুন্দর। তোমাকে দেখলে আমি কোনো কথা বলতে পারি না। তোমাকে শুভেচ্ছা জানাতে চাই, কিন্তু দু:খ হবে ভেবে ভয় পাই। তুমি জানো কি? আমি কখন তোমাকে ভালোবেসেছি। কিন্তু আমি তোমাকে জানাইনি। স্মৃতির আগুন আমাকে জ্বালাচ্ছে। আমি তোমাকে আহত করতে চাই না। তুমি জানো কি? আমি তোমাকে কখন ভালবেসেছি? কিন্তু আমি দূর থেকে তোমাকে দেখতে পারি। বছরের পর বছর কেটে গেছে, কেউ আমাকে বুঝতে পারেনি। আমিও স্বপ্নে কেঁদেছি। বাতাসে আমি অবিরত খুঁজি। আমি তোমাকে ভুলে যেতে চাই না। আজীবন থাকবো তোমার'। আচ্ছা, বন্ধুরা, এখন আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

প্রিয় শ্রোতা, আপনারা শুনছেন চীন আন্তর্জাতিক বেতারের বাংলা অনুষ্ঠান। আজকের অনুষ্ঠানে আমরা আপনাদেরকে চারটি চীনা গান শুনিয়েছি। এখন আমরা কয়েকটি বাংলা গান শোনাবো।

প্রিয় শ্রোতা, এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের সবাইকে জানাই অসংখ্য ধন্যবাদ। যদি আপনারা আমাদের অনুষ্ঠানে কোনো গান শুনতে চান, তাহলে আমাদের জানাবেন। আমাদের ই-মেইল ঠিকানা হচ্ছে ben@cri.163.com. এবং আমার নিজস্ব ইমেইল ঠিকানা হল caiyue@cri.com.cn। 'গানের অনুরোধ' সম্পর্কিত ইমেইল আমার নিজস্ব ইমেইল ঠিকানায় পাঠালে ভালো হয়। আজ তাহলে এ পর্যন্তই। আশা করি, আগামী সপ্তাহের একই দিনে, একই সময়ে আবারো আপনাদের সঙ্গে কথা হবে। ততক্ষণ সবাই ভালো থাকুন, আনন্দে থাকুন, চাই চিয়ান। (ছাই/আলিম)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040