Web bengali.cri.cn   
'চীন-ভারত সাংস্কৃতিক বিনিময়কেন্দ্র' উদ্বোধন
  2018-07-10 11:22:57  cri

জুন মাসের শেষে চীনের ইয়ুননান প্রদেশের রাজধানী খুনমিংয়ে 'চীন-ভারত সাংস্কৃতিক বিনিময়কেন্দ্র' উদ্বোধন করা হয়। ইয়ুননান মিনজু বিশ্ববিদ্যালয় ও ভারতের জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌথ উদ্যোগে এই কেন্দ্রটি প্রতিষ্ঠিত হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দু'টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে একটি সমঝোতাস্মারক স্বাক্ষরিত হয়। স্মারক অনুসারে, ইয়ুননান মিনজু বিশ্ববিদ্যালয় ও জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক-শিক্ষার্থী বিনিময় করবে এবং গবেষণাকাজে সহযোগিতা করবে।

নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান অনুষ্ঠানে বলেন, "ভারত ও চীন হচ্ছে প্রাচীন সভ্যতার দেশ। আমাদের উচিত সাংস্কৃতিক বিনিময়ের প্রক্রিয়া আরও বেগবান করা।"

এদিকে ইয়ুননান মিনজু বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান বলেন, "নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে সহযোগিতার মাধ্যমে আমরা দু'দেশের শিক্ষাবিষয়ক বিনিময় এগিয়ে যাবে এবং চীন-ভারত বন্ধুত্বপূর্ণ বিনিময়ের নতুন সুযোগ সৃষ্টি হবে।"

বন্ধুরা, চীন-ইউরোপ নিয়মিত মালবাহী রেললাইনে (ছেংতু) এ পর্যন্ত দুই হাজারবার মালবাহী ট্রেন চলাচল করেছে।

২৮ জুন নিয়মিত মালবাহী ট্রেন চীনের সিছুয়ান প্রদেশের ছেংতু শহরের আন্তর্জাতিক রেলস্টেশন থেকে রওনা হয়। ১৪ দিন পর ট্রেনটি তার গন্তব্য নেদারল্যান্ডসে পৌঁছাবে।

২০১৮ সালে চীন-ইউরোপ নিয়মিত মালবাহী রেললাইন (ছেংতু) নিয়মিত পাবলিক ট্রেন, শ্রেষ্ঠ মানের নিয়মিত ট্রেন এবং ক্রেতার চাহিদা অনুযায়ী বিশেষ ট্রেন এই তিনটি সেবা ব্যবস্থা চালু হয়েছে। এর সঙ্গে সঙ্গে ট্রেনের সেবার মানও বেড়েছে। এই নিয়মিত ট্রেনের মাধ্যমে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সিছুয়ান প্রদেশ ও 'এক অঞ্চল, এক পথ' সংশ্লিষ্ট দেশের বাণিজ্যের মূল্য ৭৯.৮ শতাংশ বেড়েছে।

২৮ জুন '১২তম হংকং সাহিত্য উত্সব'-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হংকংয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে অনুষ্ঠিত হয় দ্বিবার্ষিক হংকং সাহিত্য জগতের মহা ইভেন্ট।

হংকং সাহিত্য উত্সবের মিশন হলো সাহিত্য সৃষ্টি এবং বই-পড়ার অভ্যাস এগিয়ে নেওয়া, নাগরিকদের বিভিন্ন সাহিত্যিক অনুষ্ঠান উপহার দেওয়া, জনগণের সাহিত্য এবং শিল্পের আগ্রহ উন্নত করা এবং সাহিত্যপ্রেমীদের যোগাযোগ ও বিনিময়ের সুযোগ করে দেওয়া।

এবার সাহিত্য উত্সবের প্রতিপাদ্য হলো, 'কলমের মাধ্যমে জীবনের গল্প বলা'। ১৫ দিনের উত্সবে ৩০টিরও বেশি চমত্কার সাহিত্য তত্পরতার আয়োজন করা হবে।

উল্লেখ্য, '১৪তম হংকং চীনা সাহিত্য দ্বিবার্ষিক পুরস্কার'-এর দু'জন বিজয়ী লেখক সাহিত্যিক অভিজ্ঞতা উপস্থাপন সভায় নিজ সাহিত্যকর্মের সৃষ্টির ধারণা তুলে ধরা হবে।

বন্ধুরা, গত সপ্তাহে আমরা খরগোশের ভালোবাসার গল্প শুনেছি, আপনাদের কেমন লেগেছে? আজ আমরা অব্যাহতভাবে এর দ্বিতীয় অধ্যায় শুনবো।

খরগোশ অবশেষে ভালোবাসার নদীতে পড়ে যায়।

ভালুক তাকে জিজ্ঞাসা করে, "ভালোবাসা তোমার জন্য কি কঠিন?"

খরগোশ খুবই খুশি, সে হাসিমুখে উত্তর দেয় যে, "আমি এখন জানি, স্ট্রবেরি মিষ্টি কুকি আমার প্রিয়। আমার জন্য সবচেয়ে মিষ্টি ভালোবাসা হচ্ছে দুই চামচ স্ট্রবেরি জ্যাম, আর একটি বড় কাপ মধু সিট্রন চা। দেখো দেখো, যখন আমি জানি আমার মনে কী চায়, বাকিটা কাজ হলো নিজেকে সুখী করা। আগে আমি না জানি যে < দ্য চাঁন অব দ্য সুইং> বইটি পড়ে আমার লাভ কি? খুব কঠিন একটি বই। কিন্তু যখন আমি দোলনায় ছোট ধূসর খরগোশ দেখি, তখন আমি বুঝতে পারি যে সেই বইয়ের কারণেই আমি ছোট ধূসর খরগোশের ভালো বন্ধু হবো। আগে আমি জানি না, অক্লান্ত দৌড়ানোয় কী লাভ। শরীর অনেক ক্লান্ত হয়ে যায়। কিন্তু যখন ছোট ধূসর খরগোশ আমার সামনে আসে, তখন আমি জানি, যদি আমি দৌড়ানোর গতি বাড়িয়ে দেই, আমি গাড়িতে উঠে যেতে পারি এবং ভালোবাসার সঙ্গে এক হয়ে যাবো। আগে আমি অনেক জিনিস শিখেছি, কিন্তু আমি জানি না-যে, কেন সেসব করেছি। আমার শুধু উদাস মনে কাজ করি। আমি জানি না-যে, প্রতিদিন চেষ্টার পর আমার জন্য কী ভবিষ্যত অপেক্ষা করছে!

কিন্তু এখন আমার কাছে উত্তর আছে। আমার জীবনের প্রতিটি কাজ, প্রতিটি বই, প্রতি বারের চেষ্টায় আমাকে সাহস দেয়, যদি আমি এক দিন ধূসর খরগোশ দেখি, সেদিন আমি অনেক সাহস পাই। আমি তার সামনে দাঁড়িয়ে বলি "I do"। "যদি সে আমাকে ভালো না বাসে" এ ধরনের ভয় আর মনে থাকবে না।

ভালুক হেসে বলে, "ঠিক বলেছো, আমাদের সত্যি ভালবাসা হাজির হওয়ার আগে আমরা জানি না যে, জীবন কেন এত কঠিন। তুমুল বৃষ্টিতে কেউ তোমাকে ছাতা দিচ্ছে না!"

এটি কাজ ছেড়ে দেওয়ার সময় বাধোবাধো অবস্থায় ঠেকার সময়ে কেউ তোমাকে পরামর্শ দেবে না। কেউ তোমাকে সান্ত্বনা দেয় না। হ্যাঁ, জীবনে একটার পর একটা আঘাত আসে, কিন্তু হঠাত্, একদিন যখন তুমি তাকে দেখো, তখন বুঝতে পারো যে, ভালোবাসায় আরো কষ্ট। কিন্তু ভয় নেই, তার সাথে সারা জীবনের মতো থাকার জন্য তুমি ইতিমধ্যেই ভালোবাসায় দক্ষ হয়ে উঠেছো।

খরগোশ হাসতে হাসতে বলে, "দোকানে প্রবেশ করার সময় যারা মিষ্টি স্বাদের কুকি খেতে চায়, তারা অবশ্যই বিশ্বের সবচেয়ে সুখী পশু।"

ভালুক হাসতে বলে, "না, একটি পশু দোকান প্রবেশের আগেই জানে যে, সে স্ট্রবেরি কুকি খেতে চায়, মিষ্টি কুকি দোকানে আসার পর সেও আপেল মিষ্টি কুকি, কলা মিষ্টি কুকি ও কাঁঠালের মিষ্টি কুকি দেখে। কিন্তু এতগুলো মিষ্টি কুকি দেখার পরও সে স্ট্রবেরি কুকি কিনে। স্ট্রবেরি কুকি লাভ করা তার জন্য সবচেয়ে খুশির ব্যাপার।"

সত্যি ভালবাসা সহজ কাজ নয়!

দীর্ঘদিন আগে সময় তোমরা আলাদা হয়েছো। তুমি ট্রেনযোগে তাকে দেখতে যাও। রেলস্টেশনে তোমার জন্য সে অপেক্ষা করছে। সাগরের মতো জনসমাগমে তাকে দেখতে পারো তুমি; কিন্তু তুমি উদ্বিগ্ন নও; সেও অশেষ ধৈর্য নিয়ে তোমার জন্য অপেক্ষা করছে, কারণ তোমরা জানো যে, অবশ্যই একে অপরের দেখা হবে।

আমার প্রস্তাব?

নিজেকে সময় দাও, উদ্বিগ্ন হবে না, অবশেষে একদিন তুমি তোমার সত্য ভালবাসাকে স্বাগত জানাতে পারবে!

প্রিয় শ্রোতা, আজকের অনুষ্ঠান আপনাদের কেমন লাগলো? আপনারা যদি 'সাহিত্য ও সংস্কৃতি' বিষয়ক কোনো কিছু জানতে বা আলোচনা করতে চান, তাহলে আমাকে চিঠি লিখবেন বা ই-মেইল করবেন। আপনাদের কাছ থেকে চমত্কার পরামর্শ আশা করছি। আর আপনাদের জানিয়ে রাখি, আমার ইমেইল ঠিকানা হলো, hawaiicoffee@163.com

চিঠিতে প্রথমে লিখবেন, 'সাহিত্য ও সংস্কৃতি' অনুষ্ঠানের 'প্রস্তাব বা মতামত'। আপনাদের চিঠির অপেক্ষায় রইলাম।

বন্ধুরা, আজকের অনুষ্ঠান এখানেই শেষ করছি। শোনার জন্য অনেক ধন্যবাদ। আগামী সপ্তাহে একই দিন, একই সময় আপনাদের সঙ্গে আবারো কথা হবে। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। চাইচিয়ান। (জিনিয়া/তৌহিদ)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040