Web bengali.cri.cn   
চীনের জাতীয় 'লো কার্বন ডে'
  2018-06-14 15:19:40  cri
১৩ জুন পালিত হয়েছে চীনের জাতীয় 'লো কার্বন ডে' বা নিম্ন-কার্বন দিবস। দিবসটির চলতি বছরের থিম ছিল: 'জলবায়ুর পরিবর্তনসংক্রান্ত সচেতনতা বাড়ানো এবং নিম্ন-কার্বন কার্যক্রমের মাত্রা জোরদার করা।' চীনের প্রতিবেশ ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের প্রাকৃতিক পরিবেশ ব্যুরোর সংশ্লিষ্ট একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানান, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে জলবায়ুর পরিবর্তন মোকাবিলা করতে চীন ধারাবাহিক নীতিমালা ও ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। প্রাথমিকভাবে কার্বন নির্গমনের হার দ্রুতগতিতে বাড়ার প্রবণতা হ্রাস পেয়েছে। চীন কার্বন নির্গমন ধীরে ধীরে আরও কমিয়ে আনার উদ্যোগ নিয়েছে।

১৩ জুন চীনের পরিবেশবান্ধব বিভাগ বেইজিংয়ে জাতীয় নিম্ন-কার্বন দিবসের থিমকে কেন্দ্র করে একটি সভার আয়োজন করে। সভার উদ্দেশ্য, জলবায়ুর পরিবর্তন মোকাবিলার ক্ষেত্রে জনগণের সচেতনা বাড়ানো এবং নিম্ন-কার্বন কার্যক্রমের গতি ও মান বাড়ানো। চীনের প্রাকৃতিক পরিবেশ ব্যুরোর উপ-প্রধান চুয়াং কুও থাই সভায় বলেন,

"গ্রিন হাউস গ্যাস নির্গমনের ক্ষেত্রে বিশ্বে চীনের অবস্থান শীর্ষে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে চীন ধারাবাহিক শক্তিশালী নীতি ও ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে এবং গ্রিন হাউস গ্যাস নির্গমন কমিয়ে আনার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি অর্জন করেছে।"

বস্তুত, গত বছর চীনে কার্বন নির্গমন ২০০৫ সালের চেয়ে প্রায় ৪৬ শতাংশ কমেছে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে চীনের বিভিন্ন জায়গায় কার্বনের নির্গমন কমানোর নিরলস প্রচেষ্টা চালানো হয়েছে।

হ্যপেই প্রদেশের উন্নয়ন ও সংস্কার কমিটির উপ-মহাপরিচালক চাং কুও হোং বলেন, হ্যপেই কার্বন নির্গমন কমানোকে নীতি হিসেবে গ্রহণ করেছে। তিনি বলেন,

"বিগত পাঁচ বছরে গোটা প্রদেশে ৬ কোটি ৯৯ লাখ ৩০ হাজার টন ইস্পাত তৈরির ক্ষমতা এবং ৭ কোটি ৫ লাখ ৭০ হাজার টন সিমেন্ট তৈরির ক্ষমতা হ্রাস করা হয়েছে। অর্থনীতির প্রবৃদ্ধিতে নিম্ন-কার্বন সেবাশিল্পের অবদানের হার প্রায় ৭০ শতাংশ এবং এটা আমাদের প্রদেশের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধির প্রধান চালিকাশক্তি হয়ে উঠেছে।"

বেইজিংয়ের স্থানীয় সরকার বায়ুদূষণ রোধ ও শক্তির সাশ্রয় করে কার্বন নির্গমন কমানো তথা গ্রিন হাউস গ্যাস নির্গমন নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। বেইজিং উন্নয়ন ও সংস্কার কমিটির উপ-পরিচালক হোং চি ইউয়েন বলেন, বেইজিং দুই শতাধিক আঞ্চলিক শক্তিসাশ্রয় ও নিম্ন-কার্বন ব্যবস্থা স্থাপন করেছে এবং উত্পাদন, পরিবহন ও ভোগসহ বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় শক্তিসাশ্রয় ও নিম্ন-কার্বন পদ্ধতি বাস্তবায়ন করেছে।

তিনি বলেন,

"জ্বালানির কাঠামো ও শিল্পের কাঠামো সুবিন্যাস্ত করা এবং উচ্চ-কার্বন সৃষ্টিকারী জ্বালানির ব্যবহারের হার ও মাত্রা কমানো হয়েছে; কয়লার ব্যবহার কমানো হয়েছে।"

সাধারণ নাগরিকদের অংশগ্রহণ হল নিম্ন-কার্বন ও শক্তিসাশ্রয় পরিকল্পনা বাস্তবায়নের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। বর্তমানে বেইজিংয়ে অধিক থেকে অধিকতর মানুষ পরিবেশ-বান্ধব, শক্তি-সাশ্রয় ও নিম্ন-কার্বন কার্যক্রমে অংশ নিচ্ছে।

এখনও চীনের কার্বন-নির্গমনের মোট পরিমাণ অনেক বেশি। অবস্থা পুরোপুরিভাবে পাল্টে যায়নি। ভবিষ্যতে চীন আন্তর্জাতিক সহযোগিতায় অংশ নেবে এবং নানাভাবে কার্বন-নির্গমন কমিয়ে আনবে।

একই দিন বেইজিং শীতকালীন অলিম্পিক কমিটি গেমসের কার্যক্রমে নিম্ন-কার্বননীতি তুলে ধরে। বেইজিংয়ে অনুষ্ঠেয় ২০২২ সালের শীতকালীন অলিম্পিক গেমস এবং প্রতিবন্ধী অলিম্পিক গেমসের সহযোগী শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতিনিধিরাও 'নিম্ন-কার্বন শীতকালীন অলিম্পিক গেমস' শীর্ষক প্রস্তাবে স্বাক্ষর করেন।

(লিলি/আলিম)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040