Web bengali.cri.cn   
সিঙ্গাপুরে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে উত্তর কোরীয় নেতার বৈঠক
  2018-06-13 14:34:15  cri
উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় পরিষদের চেয়ারম্যান এবং দেশটির শীর্ষনেতা কিম জং-উন এবং যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গতকাল (মঙ্গলবার) সিঙ্গাপুরে এক ঐতিহাসিক বৈঠকে মিলিত হন। বৈঠকের পর দু'নেতা একটি যৌথ ঘোষণা স্বাক্ষর করেন।

সকালে ক্যাপেলো হোটেলে আনুষ্ঠানিক বৈঠকের আগে দু'নেতা সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। এসময় ট্রাম্প বলেন, তিনি বৈঠকের সাফল্যের ব্যাপারে আশাবাদী। তিনি বলেন,

"আমি ভাল অনুভব করছি। আমরা বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আলোচনা করব। আমার মতে এ-বৈঠক থেকে বড় সাফল্য অর্জিত হবে। এটা আমার জন্য সৌভাগ্যের বিষয়। আমাদের দু'দেশের মধ্যে সম্পর্ক উন্নত হবে।"

এসময় কিম জং-উন বলেন, দু'পক্ষ অনেক কঠিন পথ অতিক্রম করে এখানে এসেছে। তিনি বলেন,

"এখানে একটি কঠিন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে আসতে হয়েছে। অতীত আমাদের পেছনের দিকে টানছে। পুরাতন ভাবনা আমাদের উন্নয়নের পথে বাধার সৃষ্টি করছে। কিন্তু আমরা সমস্ত বাধা অতিক্রম করে এখানে এসেছি।"

এর পর দু'নেতা ৪৫ মিনিট একান্তে বৈঠক করেন। এসময় তাঁদের সঙ্গে শুধু দু'জন দোভাষী ছিলেন। পরে দু'দেশের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে একটি বর্ধিত সভায়ও দু'নেতা অংশগ্রহণ করেন। বৈঠকটি প্রায় ১০০ মিনিট স্থায়ী হয়। স্থানীয় সময় দুপুর ১টা ৪০ মিনিটে দু'নেতা আবার সাংবাদিকদের সামনে হাজির হন। এসময় তাঁরা একটি যৌথ ঘোষণায় স্বাক্ষর করেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন,

"আমরা একটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ দলিল স্বাক্ষর করছি। আমাদের সংলাপ সুষ্ঠুভাবে চলেছে।"

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন বলেন,

"অতীত পেছনে ফেলে আমরা ঐতিহাসিক দলিলটি স্বাক্ষর করছি। সারা বিশ্ব একটি বড় পরিবর্তন দেখতে যাচ্ছে। আমি বিশেষ করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। তাঁর উদ্যোগ ছাড়া এ-সংলাপ সম্ভব হতো না।"

যৌথ ঘোষণায় যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়া পরস্পরকে কিছু প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। ঘোষণায় বলা হয়েছে: দু'দেশের জনগণের শান্তি ও সমৃদ্ধির আকাঙ্খা অনুসারে উত্তর কোরিয়া-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক প্রতিষ্ঠিত হবে। দু'দেশ পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে কোরীয় উপদ্বীপে শান্তি ও স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনবে। উত্তর কোরিয়া এপ্রিল মাসে স্বাক্ষরিত 'পানমুনজম ঘোষণা' অনুসারে, কোরীয় উপদ্বীপকে পারমাণবিক অস্ত্রমুক্ত করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। যুদ্ধবন্দিদের দেহাবশেষও ফিরিয়ে দেবে উত্তর কোরিয়া।

এর পর এক আলাদা সাংবাদিক সম্মেলনে ট্রাম্প কোরীয় উপদ্বীপে শান্তি প্রতিষ্ঠায় অবদান রাখায় চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিংসহ অন্যান্য বিশ্ব নেতাকে ধন্যবাদ জানান। তিনি দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের যৌথ সামরিক মহড়া বন্ধের ঘোষণাও দেন।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দু'নেতা আলাদাভাবে সিঙ্গাপুর ত্যাগ করে নিজ নিজ দেশে ফিরে যান। (জিনিয়া/আলিম/লিলি)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040