Web bengali.cri.cn   
'তোমাকে মিস্‌ করি'
  2018-06-03 16:15:31  cri



বন্ধুরা, গতকাল আমি কন্ঠশিল্পী লি চিয়ান'র কন্ঠে কয়েকটি গান শুনিয়েছিলাম। আজকের অনুষ্ঠানে আমি আপনাদেরকে তাঁর কণ্ঠে আরও কয়েকটি গান শোনাবো। প্রথমে শোনাবো তাঁর কন্ঠে 'তোমাকে মিস্‌ করি' শীর্ষক গান। গানটি ২০০৭ সালে রিলিজ হয়। লি চিয়ান গানটিতে সুর দিয়েছেন ও গানের কথা লিখেছেন। গানটি তিনি লেখেন তাঁর বাবা মারা যাওয়ার দুই বছর পর। গানে বাবাকে মিম্‌ করার অনুভূতি প্রকাশ পেয়েছে। এখন আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

বন্ধুরা, শুনছিলেন লি চিয়ান'র কন্ঠে 'তোমাকে মিস্‌ করি' শীর্ষক গানটি। ২০০৫ সালে তিনি নিজের দ্বিতীয় অ্যালবাম প্রকাশ করেন। ২০০৭ সালে তিনি তৃতীয় অ্যালবাম প্রকাশ করেন। ২০০৯ সালে তিনি সংগীত প্রতিযোগিতার বিচারকের দায়িত্ব পালন শুরু করেন। একই বছর তিনি চতুর্থ অ্যালবাম প্রকাশ করেন। ২০১১ সালে তিনি পঞ্চম অ্যালবাম প্রকাশ করেন। এখন আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে 'বেইজিং অপেরা ভক্তদের জীবন' শীর্ষক গান শোনাবো। লি চিয়ান গানটির সুর ও কথা রচনা করেছেন। গানটি ২০০৮ সালে প্রকাশিত হয়। চলুন, আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

বন্ধুরা, শুনছিলেন লি চিয়ান'র কন্ঠে 'বেইজিং অপেরা ভক্তদের জীবন' শীর্ষক গানটি। এখন আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে 'জলের পাশে' শীর্ষক গান শোনাবো। এটি একটি পুরাতন গান। ১৯৮০ সালে প্রকাশিত হয়। গানটি তখনকার একটি খুবই জনপ্রিয় টিভি সিরিজের থিম সং। লি চিয়ান ২০১৫ সালে একটি সংগীত প্রতিযোগিতায় গানটি পুনরায় পরিবেশন করেন এবং সারা চীনে তাঁর কণ্ঠে গানটি জনপ্রিয় হয়। গানের সুর সুমধুর, খুবই সুন্দর। চলুন, আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

বন্ধুরা, শুনছিলেন লি চিয়ান'র কন্ঠে 'জলের পাশে' গানটি। এখন আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে 'প্রস্ফুটিত' শীর্ষক গান শোনাবো। গানটি ২০০৩ সালে রিলিজ হয় এবং তাঁর প্রথম অ্যালবামে অন্তর্ভুক্ত হয়। তিনি গানের সুর রচনা করেন। গানে জীবন এবং জীবনের একটি আকাঙ্ক্ষার কথা প্রকাশিত হয়েছে। আশা করি, বন্ধুরা গানটি পছন্দ করবেন।

আচ্ছা, বন্ধুরা, শুনছিলেন কন্ঠশিল্পী লি চিয়ান'র কন্ঠে কয়েকটি গান। এখন আমি আপনাদেরকে চীনের হংকংয়ের বিখ্যাত্ কন্ঠশিল্প লিউ দে হুয়া (আনডি লাউ)-এর সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেবো। তিনি ১৯৬১ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর হংকংয়ে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি একজন অভিনেতা, কন্ঠশিল্পী, লেখক ও চলচ্চিত্র প্রযোজক। ১৯৮১ সালে তিনি চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরু করেন। ১৯৮৩ সালে তাঁর অভিনীত টিভি সিরিজ হংকংয়ে খুবই জনপ্রিয় হয়। ১৯৯১ সালে তিনি নিজের চলচ্চিত্র কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করেন। প্রথমে আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে 'ম্যাকাও'র গান' শীর্ষক গান শোনাবো। গানটি ২০০৯ সালে রিলিজ হয়। সে-বছর ছিল ম্যাকাও-এর চীনের অধীনে ফিরে আসার দশম বার্ষিকী। আচ্ছা, আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

বন্ধুরা, শুনছিলেন আনডি লাউ'র কন্ঠে 'ম্যাকাও'র গান' । ১৯৮৩ ও ১৯৯২ সালে তিনি হংকং চলচ্চিত্র পুরস্কারের (Hong Kong Film Awards) শ্রেষ্ঠ অভিনেতার মনোনয়ন পান। ১৯৯৪ সালে তিনি চলচ্চিত্র প্রযোজকের দায়িত্ব পালন শুরু করেন। ২০০০ সালে তিনি হংকং চলচ্চিত্র পুরস্কারের শ্রেষ্ঠ অভিনেতার পুরস্কার লাভ করেন। ২০০৪ সালে তিনি পুনরায় এ-পুরস্কার লাভ করেন। ২০০৬ সালে তিনি বুশান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে এশিয়ার শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র-প্রযোজকের পুরস্কার লাভ করেন। ২০১১ সালে তিনি তাইওয়ানের গোল্ডেন হর্স অ্যাওয়ার্ডের (Golden Horse Award) শ্রেষ্ঠ অভিনেতার পুরস্কার লাভ করেন। ১৯৮৫ সালে তিনি নিজের প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ করেন। এখন আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে আরেকটি গান শোনাবো, যেটি সাধারণত বসন্ত উত্সবের সময় গোটা চীনের ঘরে ঘরে বাজানো হয়। চলুন, আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

প্রিয় শ্রোতা, এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের সবাইকে জানাই অসংখ্য ধন্যবাদ। যদি আমাদের অনুষ্ঠানে আপনারা কোনো পছন্দের গান শুনতে চান, তাহলে জানাবেন। আমাদের ই-মেইল ঠিকানা ben@cri.com.cn। আর আমার নিজস্ব ইমেইল ঠিকানা caiyue@cri.com.cn। 'গানের অনুরোধ' আমার নিজস্ব ই-মেইল ঠিকানায় পাঠালে ভালো হয়।

আজ তাহলে এ পর্যন্তই। আশা করি, আগামী সপ্তাহের একই দিন, একই সময়ে আবারো আপনাদের সঙ্গে কথা হবে। সে পর্যন্ত সবাই ভালো থাকুন, আনন্দে থাকুন। চাই চিয়ান। (ছাই/আলিম)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040