Web bengali.cri.cn   
দশম চীন-মার্কিন শিল্প ও বাণিজ্যিক নেতৃবৃন্দ এবং সাবেক সিনিয়র কর্মকর্তাদের সংলাপ বেইজিংয়ে অনুষ্ঠিত
  2018-05-16 16:27:30  cri
চীনের আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক বিনিময় কেন্দ্র ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় বণিক সমিতির যৌথ উদ্যোগে 'দশম চীন-মার্কিন শিল্প ও বাণিজ্যিক নেতৃবৃন্দ এবং সাবেক সিনিয়র কর্মকর্তাদের সংলাপ ১৫ থেকে ১৬ মে পর্যন্ত বেইজিংয়ে অনুষ্ঠিত হয়। এবারের সংলাপের লক্ষ্য হলো চীন-যুক্তরাষ্ট্র শিল্প ও বাণিজ্য মহলের নেতা, সাবেক সিনিয়র কর্মকর্তা এবং পণ্ডিতদের মধ্যে একটি বিনিময়ের প্ল্যাটফর্ম নির্মাণ করা। যাতে দু'দেশের শিল্প ও বাণিজ্য মহলের সংলাপের চ্যানেল বাড়ানো যায়।

মার্কিন পক্ষের অংশগ্রহণকারী এক ব্যক্তি জানান, কিছু চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হলেও, দু'দেশের মধ্যে আরো অনেক সুযোগ আছে, যা উভয় পক্ষের জন্যই কল্যাণ বাস্তবায়ন করতে পারবে।

এবারের সংলাপে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের শিল্প ও বাণিজ্য মহলের নেতারা, সাবেক সিনিয়র কর্মকর্তারা এবং পণ্ডিতরা চীন-মার্কিন নীতির উন্নয়নের দিক এবং ভবিষ্যতের ব্যবস্থা, 'এক অঞ্চল, এক পথ', ডিজিটাল অর্থনীতি এবং বৈশ্বিক প্রযুক্তি শিল্পসহ বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে বিনিময় করে।

চীনের আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক বিনিময় কেন্দ্রের চেয়ারম্যান জেং ভেই ইয়েন সংলাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বলেন, "চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের ঘনিষ্ঠ অর্থনৈতিক সম্পর্ক আছে। যদি বাণিজ্য যুদ্ধ ঘটে তাহলে তা দু'দেশের শিল্পপ্রতিষ্ঠানের জন্য গুরুতর ঝুঁকি বয়ে আনবে। সেজন্য সংলাপ আয়োজন উপলক্ষ্যে আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক বিনিময় কেন্দ্র আশ করে এবারের সুযোগের মাধ্যমে দু'পক্ষ বিনিময় জোরদার করে, দু'পক্ষের শিল্পপ্রতিষ্ঠানের ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবে ও মতভেদ মোকাবিলা করবে, যাতে দ্বিপাক্ষিক অর্থনীতি ও বাণিজ্যের স্থিতিশীল উন্নয়ন এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায়।"

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় বণিক সমিতির চেয়ারম্যান থমাস ডোনাহেও মনে করেন, চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের উচিত পারস্পরিক বিধিনিষেধমূলক ব্যবস্থা এড়িয়ে একটি আরো উন্মুক্ত মনোভাব নিয়ে উভয়ের জন্য কল্যাণ বাস্তবায়ন করা।

তিনি বলেন, "আমরা মনে করি, নিজ দেশের শ্রমিক, ভোক্তা ও কোম্পানি রক্ষার জন্য চীনের বিরুদ্ধে সীমা-নির্ধারণ ব্যবস্থা পালন করা আসলে যুক্তরাষ্ট্রের কল্যাণের জন্যও ক্ষতি বয়ে আনবে। এ ধরনের ব্যবস্থা অর্থহীন। দু'পক্ষের মধ্যে অনেক সুযোগ আছে তা থেকে দু'দেশ উপকৃত হবে।"

এবারের সংলাপে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের অনেক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি অংশ নেন। এদের মধ্যে রয়েছেন চীনের জাতীয় উন্নয়ন ও সংস্কার কমিশনের পরিচালক, চীনের শিল্প ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী, যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী, যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং মর্গ্যান স্ট্যানলি ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যানসহ আরো অনেকে।

এবারের সংলাপে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিরা প্রধানত কী ইস্যু নিয়ে আলোচনা করেন? এ প্রসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত চীনের সাবেক রাষ্ট্রদূত চৌ ওয়েন চুং বলেন, "প্রথমে দু'দেশের নীতি নির্ধারণ করার জন্য সেমিনার করা হয়। তাছাড়া বোআও এশিয়া ফোরামের বার্ষিক সম্মেলনে চীনের প্রেসিডেন্ট সি'র ভাষণে উল্লেখিত চীনের আরো উন্মুক্ততার দশটি ব্যবস্থা এবার অংশগ্রহণকারীদের কাছে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়।" (জিনিয়া/টুটুল/লিলি)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040