Web bengali.cri.cn   
সিছুয়ানের ভূমিকম্পদুর্গত ওয়েনছুয়ানের ঘুরে দাঁড়ানো
  2018-05-14 15:24:12  cri

বন্ধুরা, ১২ মে সকল চীনা মানুষ, বিশেষ করে সিছুয়ানের মানুষের জন্য একটি অবিস্মরণীয় দিন। ২০০৮ সালের ১২ মে দুপুর ২টা ২৮ মিনিটে সিছুয়ানে রিখ্‌টার স্কেলে ৮ মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হানে। ভূমিকম্পের কেন্দ্র হিসেবে সিছুয়ান প্রদেশের ওয়েনছুয়ান জেলায় ক্ষতি হয় সবচেয়ে বেশি। এরপর দশ বছর কেটে গেছে। কেমন আছে ওয়েনছুয়ান জেলা? সেখানকার জনগণের হালহকিকতই-বা কী? আসুন জেনেই আমাদের সহকর্মী স্যুয়ে ফেইফেই'র লেখা এ-সম্পর্কিত একটি প্রতিবেদন থেকে:

ওয়েনছুয়ান জেলার ইংস্যুউ থানার স্যুয়ানখৌ মাধ্যমিক স্কুল ২০০৮ সালে ভয়াবহ ভূমিকম্পে গুরুতর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। স্কুলটি ভূমিকম্পে ধ্বংসাবশেষে পরিণত হয়েছিল। এখানে মৃত ব্যক্তিদের জন্য শোক প্রকাশ করতে আসেন অনেকে। প্রতিদিন সারা চীনের বিভিন্ন স্থান থেকে মানুষ জায়গাটি পরিদর্শন করেন। ধ্বংসাবশেষের বাইরে ইংস্যিউ গ্রামের বাসিন্দা হুয়াং স্যুয়ে ফাংয়ের সঙ্গে দেখা হল। তিনি স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে এখানে আসা দর্শকদের গত ৫ বছর ধরে সেবা দিচ্ছেন। ওয়েনছুয়ান ভয়াবহ ভূমিকম্পের দৃশ্য তাঁর চোখে এখনও ভাসে। তিনি এ সম্পর্কে বলেন,

(স্বেচ্ছাসেবক হুয়াং স্যুয়ে ইং)

"আমি, আমার মা, আমার স্বামী, আমার ছোট বোন সবাই মাটির নিচে চাপা পড়ে ছিলাম। আমি বারবিকিউ রেস্টুরেন্টের ব্যবসা করতাম। সেদিন দুপুর দু'টোর সময় আমি রাতের সবজি প্রস্তুত করছিলাম। তখন ভূমিকম্প আঘাত হানে। আমরা পাহাড়ের দিকে ছুটলাম। কিন্তু পাহাড় থেকে বড় বড় পাথর গড়িয়ে পড়ছিল। আমরা তখন নিচের দিকে ছুটলাম। কিন্তু ঘরে ঢুকেও শেষ রক্ষা হয়নি। আমাদের সবাইকে মাটি-চাপা পড়তে হয়। তিন ঘন্টা পর আমি নিচ থেকে অনেক কষ্টে বের হয়ে আসি। তখনও পাহাড় ও ঘর কাঁপছিল। সে এক অবিশ্বাস্য ব্যাপার।'

হুয়াং স্যুয়ে ফাং ঘর থেকে বের হয়ে, কাছাকাছি একটি শিশু পরিচর্যাকেন্দ্র থেকে ছয়টি শিশুকে উদ্ধার করেন। তিনি বলেন, সবার চিন্তাভাবনা খুবই সহজ। সবাই পরস্পরকে সহায়তা করছিল। ওয়েনছুয়ান ভূমিকম্পের পর গোটা চীনের মানুষ তাঁদেরকে সহায়তা করেছেন। এটি হল চীনের ইতিহাসে দ্রুততম ও সবচেয়ে বিস্তৃত ত্রাণ ও উদ্ধার তত্পরতা। ভূমিকম্পের পর তিন মাসের মধ্যে হাজার হাজার দুর্গত নাগরিক নতুন গৃহ পান। গোটা চীনের বিভিন্ন অঞ্চল কেন্দ্রীয় সরকারের অনুরোধে দুর্গত অঞ্চলের বাসিন্দাদেরকে ত্রাণসামগ্রী প্রদান করে।

(স্বেচ্ছাসেবক ইউ সু ইং)

মাদাম হুয়াং সাংবাদিকদের বলেন, ভূমিকম্পকবলিতদের পুনর্বাসনের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার বেশি বরাদ্দ দিয়েছে। ভূমিকম্পের পর তাঁরা নির্দিষ্ট সময় তাঁবুতে বসবাস করেছিলেন। এরপর তাঁদেরকে বোর্ডরুমে স্থানান্তর করা হয়। এক বছরের মধ্যে তাঁরা নতুন গৃহে স্থানান্তরিত হন। প্রতিটি পরিবারের গৃহ দুই তলা। আগের গৃহের চেয়ে আরও বড় ও ভাল। মাদাম হুয়াং পরে স্থানীয় বাসিন্দাদের দ্বারা গঠিত স্বেচ্ছাসেবক দলে যোগ দেন। দলটি ২০১৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এ-সম্পর্কে তিনি বলেন,

"আমাদের জীবনযাত্রার মান অনেক উন্নত হয়েছে। দুঃখ আস্তে আস্তে কেটে যাচ্ছে। এখন আমাদের জীবন সুন্দর, দেশের নীতিও ভাল। সেজন্য আমি জনকল্যাণ কার্যক্রম অংশগ্রহণ করতে চাই। আমরা সমাজ ও দেশকে ধন্যবাদ জানাই।"

৫৩ বছর বয়সী গ্রামবাসী ইউ সু ইংও হলেন স্বেচ্ছাসেবক দলের একজন সদস্য। তিনি বলেন, তাঁদেরকে সহায়তা করেছেন অসংখ্য মানুষ। সেজন্য তিনিও স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে অন্যকে সহায়তা করতে চান। এ সম্পর্কে তিনি বলেন,

'আমাদের জীবনযাত্রার মান অনেক উন্নত হয়েছে। আসলে ভূমিকম্পের আগে আমরা খুবই দরিদ্র ছিলাম। কিন্তু এখন আমাদের আর্থিক অবস্থার উন্নতি ঘটেছে। অনেক মানুষ আমাদের গ্রামে ঘুরতে আসেন। আমাদের বেতন আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে। আমাদের বাসগৃহ আগের চেয়ে অনেক ভাল। দশ বছরে বিরাট পরিবর্তন হয়েছে!'

(সাংবাদিক স্যুয়ে ফেই ফেই স্বেচ্চাসেবকের সঙ্গে)

বর্তমানে ইং স্যুউ থানায় চারদিকে উঁচু পাহাড়ের কোলে সারি সারি সবুজ গাছ ও সুন্দর সুন্দর গৃহ। মানুষের মুখে হাসি দেখা যায়। তাঁরা শান্ত ও সুন্দর জীবন যাপন করছেন।

ওয়েনছুয়ান জেলার চীনা কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিসি কমিশনের সম্পাদক চাং থং রং ভয়াবহ ভূমিকম্পের দশম বার্ষিকীর স্মরণ অনুষ্ঠানে বলেন, সিপিসি'র কেন্দ্রীয় কমিটি, রাষ্ট্রীয় পরিষদ ও চীনা জনগণের সহায়তায় ওয়েনছুয়ান ধ্বংসাবশেষ থেকে উঠে দাঁড়িয়েছে। তিনি আরও বলেন,

'মাতৃভূমি ওয়েনছুয়ানকে দ্বিতীয় জীবন দিয়েছে। চীনা জনগণ ওয়েনছুয়ানকে সহায়তা করেছে। আমি ওয়েনছুয়ানের পক্ষ থেকে আপনাদেরকে ধন্যবাদ জানাই।'

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040