Web bengali.cri.cn   
'কে নিজের জন্মস্থানকে ভালো বলবে না?'
  2018-04-28 10:09:29  cri



প্রিয় বন্ধুরা, গত সপ্তাহে আমি আপনাদেরকে চীনের ফার্স্ট লেডি ফেং লি ইউয়ান'র কন্ঠে গান শুনিয়েছিলাম। আজকের অনুষ্ঠানে আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে আরও কয়েকটি গান শোনাবো। প্রথমে শোনাবো তাঁর কন্ঠে 'চিয়াংশান' নামের গান। গানটি একই নামের টিভি সিরিজের থিম সং। চিয়াংশান-এর অর্থ হল 'নদী ও পাহাড়'। কিন্তু চীনা ভাষায় এর অর্থ 'দেশ'। গানের কথাগুলো মোটামুটি এমন: "দেশ হল জনগণের দেশ। জনগণ হল পাহাড়, জনগণ হল সমুদ্র, জনগণ হল মাটি, জনগণ হল আকাশ।" চলুন, আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

বন্ধুরা, শুনছিলেন ফেং লি ইউয়ান'র কন্ঠে 'চিয়াংশান' নামের গান। ১৯৭৮ সালে ১৬ বছর বয়সী ফেং লি ইউয়ান ইউনছেন জেলা থেকে শানতুং প্রদেশের রাজধানী চিনানে আসেন। তিনি শানতুং প্রদেশের ৫৭ নম্বর শিল্প স্কুলে লেখাপড়া শুরু করেন। স্কুলটির নাম ১৯৭৮ সালে পরিবর্তিত হয়ে 'শানতুং প্রদেশের শিল্প একাডেমি'র মাধ্যমিক বিদ্যালয়' হয়। এরপর তিনি শানতুং প্রদেশের শিল্প একাডেমিতে লেখাপড়া শুরু করেন। তখন থেকে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে শিল্পজগতে প্রবেশ করেন। এখন আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে 'লিয়াংচু' শীর্ষক গান শোনাবো। লিয়াংচু হল চীনের প্রাচীনকালের একটি আশ্চর্য সুন্দর প্রেমের গল্প। লিয়াং হল গল্পটি'র নায়ক লিয়াং শান বো এবং চু হল নায়িকা চু ইং থাই। আশা করি, বন্ধুরা গানটি পছন্দ করবেন।

বন্ধুরা, শুনছিলেন ফেং লি ইউয়ান'র কন্ঠে 'লিয়াংচু' গানটি। ১৯৭৮ সাল থেকে ফেং লি ইউয়ান চীনের বিখ্যাত ভোকাল প্রফেসর ওয়াং ইন স্যুন'র কাছে তিন বছর গান শেখেন। এ-সময়ে ফেং লি ইউয়ান ধীরে ধীরে সারা চীনে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন। ১৯৮০ সালে ফেং লি ইউয়ান শানতুং প্রদেশের চিনিং শিল্প স্কুলের পক্ষ থেকে বেইজিংয়ে পারফর্ম করেন। এরপর তিনি চিনান সামরিক অঞ্চলের গীতিনাট্য দলের সঙ্গে ছয়টি ইউরোপীয় দেশ সফর করেন এবং সেখানে পারফর্ম করেন। এর পর তিনি চীনের কনজারভেটিভ অফ মিউজিকের কণ্ঠসঙ্গীত বিভাগে ভর্তি হন। এখান থেকে তিনি ডিগ্রি লাভ করেন। এখন আমি আপনাদেরকে ফেং লি ইউয়ান'র কন্ঠে 'চিয়াংনান-এর স্বপ্ন' শীর্ষক গান শোনাবো। চিয়াংনান পূর্ব চীনে অবস্থিত। আশা করি, বন্ধুরা গানটি পছন্দ করবেন।

১৯৮১ সালের এপ্রিল মাসে ফেং লি ইউয়ান চীনা বিখ্যাত ভোকাল শিক্ষাবিদ চিন থিয়ে লিন'র অধীনে লেখাপড়া শুরু করেন। ১৯৯০ সালের মে মাসে তিনি চমৎকার ফলাফলসহ একটি মাস্টার ডিগ্রি পান। ১৯৮২ সালে ফেং লি ইউয়ান সিসিটিভি'র প্রথম বসন্ত উত্সবের অনুষ্ঠানে পারফর্ম করে সারা চীনে জনপ্রিয় হয়ে ‌ওঠেন। ১৯৮৪ সালে তিনি সাধারণ রাজনৈতিক বিভাগের গান ও নৃত্য ট্রুপে (General Political Department Song and Dance Troupe) যোগ দেন। ১৯৮৫ সালে তিনি চীনা সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে আয়োজিত প্রথম 'জাতীয় সংগীত প্রতিযোগিতা'-য় স্বর্ণপদক লাভ করেন। একই বছরে তিনি চীনা কমিউনিস্ট পার্টিতে যোগ দেন এবং চীনা সঙ্গীতশিল্পী সমিতির সদস্য নিযুক্ত হন। এখন আমি আপনাদেরকে ফেং লি ইউয়ান'র কন্ঠে 'সবাই বলে শানসি'র প্রাকৃতিক দৃশ্য চমত্কার' শীর্ষক গান শোনাবো। শানসি পশ্চিম চীনের একটি প্রদেশ। চলুন আমরা একসঙ্গে গানটি শুনি।

বন্ধুরা, শুনছিলেন ফেং লি ইউয়ান'র কন্ঠে 'সবাই বলে শানসি'র প্রাকৃতিক দৃশ্য চমত্কার' শীর্ষক গান। ১৯৮৬ সালে ফেং লি ইউয়ান এবং সি চিন পিং একে অপরের প্রেমে পড়েন। ১৯৮৭ সালে তাঁরা বিয়ে করেন। ১৯৯০ সালে ফেং লি ইউয়ান আলাদাভাবে বেইজিং, শাংহাই, কুয়াংচৌ ও সিঙ্গাপুরে একক কনসার্টে অংশ নেন এবং বহুবার চীনের পক্ষ থেকে বিশ্বের প্রায় ৫০টি দেশে পারফর্ম করেন। ১৯৯২ সালে ফেং লি ইউয়ান এক কন্যা-সন্তানের মা হন। এখন আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে 'কে নিজের জন্মস্থানকে ভালো বলবে না?' শীর্ষক গান শোনাবো। আশা করি, বন্ধুরা গানটি পছন্দ করবেন।

বন্ধুরা, শুনছিলেন ফেং লি ইউয়ান'র কন্ঠে 'কে নিজের জন্মস্থানকে ভালো বলবে না?' শীর্ষক গান। ২০০৫ সালের সেপ্টেম্বরে ফেং লি ইউয়ান জাতিসংঘ প্রতিষ্ঠার ৬০তম বর্ষ উদযাপন কমিটির আমন্ত্রণে নিউইয়র্কের লিঙ্কন আর্টস সেন্টারে পারফর্ম করেন এবং 'বিশিষ্ট শিল্পী' পুরস্কার লাভ করেন। ২০০৭ সালের পয়লা অগাষ্টে তিনি চীনা গণমুক্তি ফৌজ প্রতিষ্ঠার ৮০তম বার্ষিকীতে 'আমার সৈনিক-ভাই' শীর্ষক অ্যালবাম প্রকাশ করেন। এখন আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে সময় ও জনপ্রিয়তা নিয়ে গাওয়া একটি গান শোনাবো। আশা করি, বন্ধুরা গানটি পছন্দ করবেন।

বন্ধুরা, ফেং লি ইউয়ান ২০০৮ সালে অস্ট্রিয়ার ভিয়েনায় পারফর্ম করেন। অস্ট্রিয়ান ফেডারেল থিয়েটার কমিটি ও ভিয়েনা রাজ্য অপেরা যৌথভাবে তাঁকে 'শিল্পে অসামান্য অবদান পুরস্কার' প্রদান করে। ২০১২ সালে তিনি পিএলএ শিল্পকলা একাডেমির প্রধানের পদে নিযুক্ত হন। এখন আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে 'আমার মাতৃভূমি' শীর্ষক গান শোনাবো। আশা করি, বন্ধুরা গানটি পছন্দ করবেন।

বন্ধুরা, শুনছিলেন ফে লি ইউয়ান'র কন্ঠে 'আমার মাতৃভূমি' গানটি। ফে লি ইউয়ান জনকল্যাণে নিবেদিতপ্রাণ একজন মানুষ। তিনি চীনের এইডস প্রতিরোধ প্রোমোটার্সের দায়িত্ব পালন করেন। ২০১২ সালের ডিসেম্বরে তিনি বিশ্ব এইডস দিবসের প্রচার অনুষ্ঠানে অংশ নেন। এইডসে আক্রান্তদের অনাথ শিশুরা তাকে 'মা ফে' ডাকে। ফেং লি ইউয়ান কয়েক শতবার সাধারণ নাগরিকদের জন্য পারফর্ম করেন। ২০০৩ সালে তিনি সার্স রোগীদের জন্য কাজ করেন। ২০০৮ সালে সিছুয়ানের ভয়াবহ ভূমিকম্প ও ২০১০ সালে চিয়াংসি প্রদেশের বন্যাদুর্গত এলাকায় তিনি কাজ করেন। এখন আমি আপনাদেরকে তাঁর কন্ঠে 'আশার ক্ষেত্র' শীর্ষক গান শোনাবো। আশা করি, বন্ধুরা গানটি পছন্দ করবেন।

প্রিয় শ্রোতা, এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের সবাইকে জানাই অসংখ্য ধন্যবাদ। যদি আমাদের অনুষ্ঠানে আপনারা কোনো পছন্দের গান শুনতে চান, তাহলে জানাবেন। আমাদের ই-মেইল ঠিকানা ben@cri.com.cn। আর আমার নিজস্ব ইমেইল ঠিকানা caiyue@cri.com.cn। 'গানের অনুরোধ' আমার নিজস্ব ই-মেইল ঠিকানায় পাঠালে ভালো হয়।

আজ তাহলে এ পর্যন্তই। আশা করি, আগামী সপ্তাহের একই দিন, একই সময়ে আবারো আপনাদের সঙ্গে কথা হবে। সে পর্যন্ত সবাই ভালো থাকুন, আনন্দে থাকুন। চাই চিয়ান। (ছাই/আলিম)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040