Web bengali.cri.cn   
আজকের টপিক: ২০১৮ সালে চীনের সরকারি কর্মপ্রতিবেদনের 'সোনালি বাক্যসমূহ'
  2018-03-06 15:13:41  cri


চীনের ত্রয়োদশ জাতীয় গণকংগ্রেস-এনপিসি'র প্রথম অধিবেশন গতকাল (সোমবার) সকালে বেইজিংয়ে শুরু হয়েছে। সি চিন পিংসহ চীনের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিসি ও দেশের রাষ্ট্রীয় পর্যায়ের নেতারা এতে যোগ দিয়েছেন।

সিপিসি'র ঊনবিংশ জাতীয় কংগ্রেসের পর চীনের সর্বোচ্চ আইন সংস্থার প্রথম অধিবেশন এটি।

চীনের প্রধানমন্ত্রী লি খ্য ছিয়াং অধিবেশনে সরকারি কর্ম-প্রতিবেদন পেশ করেন এবং চলতি বছর সরকারের কাজ নিয়ে প্রস্তাব উত্থাপন করেন।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি বছর চীনের অর্থনীতি ও সমাজের উন্নয়নের প্রধান প্রত্যাশিত লক্ষ্য হলো চীনের জিডিপি'র প্রবৃদ্ধি ৬.৫ শতাংশ ছাড়িয়ে যাবে। ভোক্তা মূল্য সূচক বা সিপিআই-এর প্রবৃদ্ধি ৩ শতাংশের মধ্যে সীমিত থাকবে। শহর ও জেলায় ১ কোটি ১০ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান হবে এবং কর্মচ্যুতির হার ৫.৫ শতাংশের মধ্যে থাকবে, প্রধান দূষণ নির্গমন অব্যাহতভাবে কমবে, সেবামূলক কাঠামোগত সংস্কারে বাস্তব অগ্রগতি হবে এবং বিভিন্ন রকমের ঝুঁকি সুশৃঙ্খল ও কার্যকরভাবে নিয়ন্ত্রণে আনা হবে।

প্রতিবেদনে বিগত ৫ বছরে সরকারের কাজ নিয়ে অতীত পর্যালোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী লি। যেমন, গত ৫ বছরে চীনের অর্থনৈতিক ক্ষমতা নতুন এক পর্যায়ে উন্নীত হয়েছে, জিডিপি ৫৪ ট্রিলিয়ন থেকে বেড়ে ৮২.৭ ট্রিলিয়নে দাঁড়িয়েছে। বৈশ্বিক অর্থনীতির প্রবৃদ্ধির ক্ষেত্রে চীনের অবদানের হার ৩০ শতাংশ ছাড়িয়ে গেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এখন চীন সমাজতন্ত্রের প্রথম পর্যায়ে রয়েছে এবং ভবিষ্যতে অনেক লম্বা সময়ে এই পর্যায়ে থাকবে। উন্নয়নের ভারসাম্যহীনতাসহ কিছু সমস্যার সমাধান হয়নি। তাই সরকারকে আরো অনেক কাজ করতে হবে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

তাছাড়া, অব্যাহতভাবে সক্রিয় আর্থিক নীতি ও স্থিতিশীল মুদ্রা নীতি পালন করার ওপরও গুরুত্বারোপ করা হয় প্রতিবেদনে।

চলতি বছর হলো চীনের সংস্কার ও উন্মুক্তকরণ নীতি চালু হওয়ার ৪০তম বার্ষিকী, চীনের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিসি-র ঊনবিংশ জাতীয় কংগ্রেসের চেতনা পালনের প্রথম বর্ষও এটি। স্থিতিশীলতা বজায় রাখার সঙ্গে সঙ্গে অগ্রগতি অর্জনকে কাজের মূল সুর হিসেবে নির্ধারণ করা হয় কর্মপ্রতিবেদনে।

এই ছিল চলতি বছরের সরকারি কর্মপ্রতিবেদনের প্রধান বিষয়। আসলে এই প্রতিবেদনে খুব সুন্দর এবং গুরুত্বপূর্ণ কিছু 'সোনালী বাক্য' আছে। তা আসলে নতুন বছরে চীন সরকারের কাজের প্রধান লক্ষ্যের প্রতিফলন।

যেমন সরকারি কর্মপ্রতিবেদনে এমন কথা আছে:

১.চীনের সংস্কার ও উন্নয়নে যে সব সাফল্য অর্জিত হয়েছে, তা সবই পরিশ্রমের ফলাফল। বিশেষ করে বিভিন্ন স্তরের সরকার ও সরকারি কর্মীদের জন্য, জনগণের জন্য কিছু করা করা হল তাদের দায়িত্ব, না করলে তা হবে কর্তব্যের প্রতি অবহেলা।

২. সার্বিকভাবে গুণগতমান উন্নয়নের কর্মকান্ড চালু করতে হবে। বিশ্বের উন্নত মানের সঙ্গে সংযুক্ত করতে হবে। 'চীনের উৎপাদনের' গুণগতমানের সংস্কার করতে হবে।

৩. নিম্ন আয়ের জনগণের সেবা করার কাজের জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা চালাতে হবে। প্রত্যেক দরিদ্র জনগণের সমাজের ভালোবাসা ও উষ্ণতা পাওয়া নিশ্চিত করতে হবে।

৪. বিভিন্ন স্তরের সরকারের উচিত প্রতিরক্ষা ও সেনাবাহিনীর নির্মাণ ও সংস্কারের জন্য আরো শক্তিশালী ব্যবস্থা নেয়া। সেনাবাহিনী ও জনগণের ঐক্যকে জোরদার করা।

৫. 'স্বচ্ছ পানি ও সবুজ পাহাড় মানেই সোনার পাহাড় রূপালি পাহাড়' এমন ধারণা স্থাপন করতে হবে। অভূতপূর্ব দৃঢ়তা ও শক্তি নিয়ে প্রকৃতি সুরক্ষার কাজ জোরদার করতে হবে।

৬. বিভিন্ন স্তরের সরকারের উচিত মিত্যবয়ীভাবে কাজ করতে হবে। মূল্যবান সম্পদ ও বরাদ্দকে জনগণের জীবনযাপনের মান উন্নয়নে করতে হবে।

৭. জনগণের জন্য সন্তোষজনক শিক্ষা সেবা দিতে হবে। যাতে প্রত্যেকে শিক্ষার মাধ্যমে নিজের ভাগ্য পরিবর্তন করার সমান সুযোগ পায়। যাতে আরো বেশি লোক ভালো শিক্ষা গ্রহণের মাধ্যমে জীবনের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে পারে।

৮. 'ইন্টারনেট প্লাস সরকারি সেবা' কাজ সম্প্রসারণ করতে হবে। যাতে লোকজন অনলাইনে আরো বেশি সরকারি সংশ্লিষ্ট কাজ বা আবেদন করতে পারে এবং লোকজনের জন্য আরো বেশি সুবিধা যোগ করতে পারে।(শুয়েই/মহসীন)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040