Web bengali.cri.cn   
হাঙ্গেরির সাংস্কৃতিক কাউন্সিলর চীন-হাঙ্গেরি সাংস্কৃতিক সহযোগিতা ও বিনিময়ের প্রশংসা করেন
  2018-04-21 16:15:02  cri
সুপ্রিয় বন্ধুরা, আপনারা শুনছেন চীন আন্তর্জাতিক বেতার থেকে প্রচারিত বাংলা অনুষ্ঠান 'সাহিত্য ও সংস্কৃতি'। আর এ অনুষ্ঠানে আপনাদের সঙ্গে আছি আমি আপনাদের বন্ধু ওয়াং ছুই ইয়াং জিনিয়া।

প্রথমে শুনবেন হাঙ্গেরির সাংস্কৃতিক কাউন্সিলর চীন-হাঙ্গেরি সাংস্কৃতিক সহযোগিতা ও বিনিময়ের প্রশংসা করেন শিরোনামে একটি সাংস্কৃতিক খবর।

২০১৩ সালের ১৩ নভেম্বর বেইজিংয়ে বেইজিং-হাঙ্গেরি সাংস্কৃতিক কেন্দ্র প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর গত কয়েক বছরে দু'দেশের সাংস্কৃতিক বিনিময় ও হাঙ্গেরিয় সংস্কৃতি প্রচারসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে কেন্দ্রটি। সম্প্রতি সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের পরিচালক ডক্টর বাস্লিগ সজোনিয় সিআরআই'র সাথে এক সাক্ষাত্কারে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে চীন-হাঙ্গেরি সাংস্কৃতিক বিনিময় ও সহযোগিতা নিয়ে তাঁর মনোভাব জানিয়েছেন।

ডক্টর বাস্লিগ সজোনিয় ২০১২ সাল থেকে চীনে হাঙ্গেরির দূতাবাসে কাজ করছেন। চলতি বছর পর্যন্ত তিনি বেইজিংয়ে পাঁচ বছরের মত থাকছেন। এ সময়কালে তাঁর প্রচেষ্টায় চীন-হাঙ্গেরি সাংস্কৃতিক বিনিময় ঘনিষ্ঠ উন্নয়ন এগিয়ে গেছে এবং তিনি তা গভীর মনোযোগ সহকারে প্রত্যক্ষ করেন। ডক্টর সজোনিয় বলেন,

"গত কয়েক বছরে 'এক অঞ্চল, এক পথ' উদ্যোগ এবং চীন-মধ্য-পূর্ব ইউরোপ সম্পর্কের দ্রুত উন্নয়ন হচ্ছে। দু'পক্ষের সহযোগিতা প্রকল্প আরো বৃদ্ধি পেয়েছে। সংশ্লিষ্ট দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক ব্যবস্থা অনুসারে শিক্ষা ও সংস্কৃতিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রের কর্ম-পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছে দু'পক্ষ। তাছাড়া, উভয়ের উচ্চপর্যায়ের বিনিময়ও অনেক ঘনিষ্ঠ হয়ে ওঠেছে।"

ডক্টর সজোনিয়'র মতে কয়েক বছর আগের অবস্থার চেয়ে বর্তমানে চীন-হাঙ্গেরি সাংস্কৃতিক সহযোগিতার আওতা আরো ব্যাপক হয়েছে। তিনি বলেন,

"যখন আমি বেইজিংয়ে কাজ শুরু করি, তখন শুধু একটি হাঙ্গেরি ভাষা প্রশিক্ষণ সংস্থা ছিল। কিন্তু এখন ছং ছিং, শাংহাই, থিয়েনচিন ও বেইজিংসহ বিভিন্ন শহরের বিশ্ববিদ্যালয়ে হাঙ্গেরি ভাষার কোর্স চালু হয়েছে। এটি একটি বড় পরিবর্তন, বড় সুযোগ। বেইজিং হাঙ্গেরি সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে প্রতিষ্ঠিত কোডালি প্রশিক্ষণ স্পোর্ট পেশাদারী প্রশংসা লাভ করেছে। সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে আমরাও বড় আকারের আধুনিক সাংস্কৃতিক প্রদর্শনী ও ভিন্ন ভিন্ন সঙ্গীতানুষ্ঠান আয়োজন করি। বর্তমানে আরো বেশী বিশ্ববিদ্যালয় হাঙ্গেরি সাংস্কৃতিক সপ্তাহ অনুষ্ঠান আয়োজন করে। গত বছর আমরা সোং চিং লিং ফাউন্ডেশনের সঙ্গে সহযোগিতা করে সোং চিং লিং প্রাক্তন বাস ভবনে একটি তিন দিনের চীন-হাঙ্গেরি সাংস্কৃতিক বিনিময় অনুষ্ঠান আয়োজন করি, যা দর্শকদের চমত্কার প্রতিক্রিয়া অর্জন করে।"

চীনে হাঙ্গেরির সাংস্কৃতিক কাউন্সিলর নিয়ুক্ত হওয়ার আগে ডক্টর সজোনিয় দু'বার চীনে এসে লেখাপড়া করেছেন। সাংস্কৃতিক কাউন্সিলর হিসেবে ডক্টর সজোনিয়র আরো গভীর একটি পর্যবেক্ষণ তা হলো ঐতিহ্যগত সংস্কৃতি এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে চীন সরকার অনেক চেষ্টা করছে। তিনি বলেন,

"ঐতিহ্যগত সংস্কৃতি রক্ষা ও এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ওপর চীন সরকার অনেক গুরুত্বারোপ করেছে। বর্তমানে আরো বিশেষজ্ঞ ও পন্ডিত ঐতিহ্যগত সংস্কৃতির সম্প্রসারণ এবং গবেষণায় অংশ নিয়েছে। আমার মনে এটি খুবই ভাল অনুভূতি তৈরি করেছে।"

চীন-হাঙ্গেরি সাংস্কৃতিক বিনিময় ভবিষ্যতের উন্নয়নে ডক্টর সজোনিয়'র অনেক প্রত্যাশা আছে। তিনি বলেন,

"দু'দেশ আরো বেশী নতুন প্রকল্প নিয়ে সহযোগিতা করতে পারবে। অনেক চীনা সাংস্কৃতিক সংস্থা আমাদের কেন্দ্রের সঙ্গে সহযোগিতা করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। যেমন, ইয়ুলিন শহরের সম্পর্ক দিন দিন আরো ঘনিষ্ঠ হয়ে ওঠছে। ইয়ুলিন শহরের কাছে হানরা প্রচীন রাজধানী খুঁজে পেয়েছে। হানদের নিয়ে হাঙ্গেরির লোকদের গবেষণা বিশ্ব বিখ্যাত। সেজন্য ইয়ুলিন শহর আমাদের সঙ্গে সহযোগিতা করতে চায়। আশা করি হাঙ্গেরির উচ্চ পর্যায়ের নেতারা, হাঙ্গেরিয়ান অ্যাকাডেমি অফ সায়েন্সেসও এ গবেষণায় অংশ নেবে। সেজন্য ২০১৮ সালে এ প্রতিপাদ্য নিয়ে ধারাবাহিক বড় আকারের কর্মসূচী আয়োজন করবো।"

বন্ধুরা, হাঙ্গেরির সাংস্কৃতিক কাউন্সিলর চীন-হাঙ্গেরি সাংস্কৃতিক সহযোগিতা ও বিনিময়ের প্রশংসা করেন শিরোনামে সাংস্কৃতিক খবরটি এখানে শেষ। এবারে শুনুন 'ব্রাজিলে দ্বিতীয় চীনা খাদ্য সংস্কৃতির উৎসব' সাও পাওলোয় অনুষ্ঠিত শিরোনামে একটি সাংস্কৃতিক প্রবন্ধ।

স্থানীয় সময় ৭ জানুয়ারি ব্রাজিলের সাও পাওলো'র কয়েকটি বড় প্রবাসী চীনা গ্রুপের যৌথ উদ্যোগে দ্বিতীয় 'ব্রাজিল-চীনা খাদ্য সংস্কৃতির উৎসব' অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ব্রাজিলের ১৫টি বিখ্যাত চীনা রেস্টুরেন্টের সংগঠনের আমন্ত্রণে উত্সবে অংশ নিয়ে চীন ও ব্রাজিলের বন্ধুদের কাছে সমৃদ্ধ এবং হৃদয়গ্রাহী চীনা খাবার উপস্থিত করেছে।

এই ইভেন্টের একজন আয়োজক, ব্রাজিলিয়ান চীনা রেষ্টুরেন্ট এসোসিয়েশনের পরিচালক লিউ হাও বলেন,

"সাও পাওলোয় বিভিন্ন দেশের খাদ্য উত্সব আয়োজিত হয়েছে। কিভাবে চীনা খাবার অনুপস্থিত থাকতে পারে? সেজন্য আমরা এবারের অনুষ্ঠানের মাধ্যমে চীনা খাদ্য সংস্কৃতি প্রচার করতে চাই। দ্বিতীয় 'ব্রাজিলে চীনা খাদ্য সংস্কৃতির উৎসব' অনেক জনপ্রিয় হয়েছে। সেজন্য আমাদের পরিকল্পনা হল এ উত্সব নিয়মিত আয়োজন করা, প্রতি মাসে অন্তত এক বার।"

ব্রাজিলে চীনা চেম্বার অব কমার্সের মহাসচিব ফেং পো ব্রাজিলে দশ বছর ধরে আছেন। তিনি বলেন,

"আমার ১০ বছরের ব্রাজিল জীবনে একটি পর্যবেক্ষণ আছে, চীনা লোকেরা শুধু ব্যবসা করে, কিন্তু স্থানীয় সামাজিক বৃত্তের বাইরে থাকে। যেন একটি অদৃশ্য প্রাচীর বিরাজমান। এ অদৃশ্য প্রাচীর ভেঙে দেওয়ার পদ্ধতি হলো সংস্কৃতি।"

আইসাডোরা ফার্নান্ডেস একটি চীনা কোম্পানিতে কাজ করেন। সেজন্য সে বরাবরই চীনা খাবারে অভ্যস্থ। তাঁর জন্য চীনা খাবার অবিচ্ছেদ্য একটি অংশে পরিণত হয়েছে। চীনা খাবার তাঁর পরিবারকে পরিচয় করিয়ে দেয়। যখন সে 'ব্রাজিলে চীনা খাদ্য সংস্কৃতির উৎসব' আয়োজনের তথ্য শুনেছে, প্রথম অনুভূতি হলো অব্যশই পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে একই সাথে উত্সবে সুস্বাদু খাদ্য উপভোগ করবে। তিনি বলেন,

"অনেক চীনা খাদ্য বেশী মসলাযুক্ত, তা ব্রাজিলের রান্নার ধরণের চেয়ে আলাদা। আমার মনে সবচেয়ে সুস্বাদু চীনা খাদ্য হলো বেইজিং রোস্ট ডাক। টক-মিষ্টি সস যোগ করে রোস্ট ডাক খুবই সুস্বাদু।"

উত্সব স্থলে চীনের খাবার ছাড়াও ব্রাজিলে চীনের আর্ট গ্রুপ সুন্দর অনুষ্ঠান উপহার দিয়েছে। যেমন লায়ন নাচ, মার্শাল আর্ট এবং লোক গান ও নাচসহ বিভিন্ন চমত্কার শো। ব্রাজিলের জনগণ অনুষ্ঠানের অত্যন্ত উচ্চ মূল্যায়ন করেছে।

বন্ধুরা, বিশ্বের সাংস্কৃতিক পর্ব এখানে শেষ। এখন শুনুন আমার সহকর্মী মহসীনের উপস্থাপনায় দক্ষিণ এশিয়ার সাংস্কৃতিক পর্ব।

প্রিয় শ্রোতা, আজকের অনুষ্ঠান আপনাদের কেমন লাগলো? আপনারা যদি 'সাহিত্য ও সংস্কৃতি' বিষয়ক কোনো কিছু জানতে বা আলোচনা করতে চান, তাহলে আমাকে চিঠি লিখবেন বা ই-মেইল করবেন। আপনাদের কাছ থেকে চমত্কার পরামর্শ আশা করছি। আর আপনাদের জানিয়ে রাখি, আমার ইমেইল ঠিকানা হলো, hawaiicoffee@163.com

চিঠিতে প্রথমে লিখবেন, 'সাহিত্য ও সংস্কৃতি' অনুষ্ঠানের 'প্রস্তাব বা মতামত'। আপনাদের চিঠির অপেক্ষায় রইলাম।

বন্ধুরা, আজকের অনুষ্ঠান এখানেই শেষ করছি। শোনার জন্য অনেক ধন্যবাদ। আগামী সপ্তাহে একই দিন, একই সময় আপনাদের সঙ্গে আবারো কথা হবে। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। চাইচিয়ান। (জিনিয়া/মহসীন)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040