Web bengali.cri.cn   
বাংলাদেশের সাংবাদিক প্রতিনিধি দলের উরুমছির বৃহত্তম মসজিদ পরিদর্শন
  2017-12-26 16:12:52  cri

 

"আমরা বাংলাদেশে জানতাম যে এখানে (সিন চিয়াং) অনেক মুসলমান আছে। তাঁরা সঠিকভাবে তাদের ধর্ম চর্চা করতে পারেন না ও ধর্মীয় উত্সব পালন করতে পারে না। এ সংবাদগুলো বিশেষ করে আমরা পশ্চিমা গণমাধ্যম থেকে পেয়ে থাকি। এখানে আসার পর সেই ধারণা পুরোপুরি ভুল প্রমানিত হয়েছে।" বলছেন বাংলাদেশের বেসরকারি টিভি স্টেশন বাংলা ভিশনের রাজনৈতিক প্রতিবেদক ইমরুল কায়েস। তিনি বাংলাদেশের গণমাধ্যমের ১২ সদস্যের প্রতিনিধি দলের সদস্য হিসেবে গত ২৬ নভেম্বর থেকে ৪ ডিসেম্বর চীন সফর করেন। এদিন তাঁরা এসেছেন চীনের সিন চিয়াং স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলের রাজধানী উরুমছিতে এবং পরিদর্শন করেছেন বৃহত্তম ইয়াং হাং মসজিদ।

মসজিদের ইমাম সাংবাদিকদের কাছে ইয়াং হাং মসজিদের ইতিহাস ও উন্নয়ন তুলে ধরেন। এ মসজিদ প্রতিষ্ঠিত হয় ১৮৯৬ সালে এবং ১২০ বছরের মধ্যে ৪ বার সংস্কার করা হয়েছে। মসজিদটির আয়তন ৩ হাজার ৩৩০ বর্গ মিটার এবং নামাযের স্থানের আয়তন ৯০০ বর্গ মিটার। উরুমছির বৃহত্তম মসজিদ হিসেবে স্থানীয় সবচেয়ে বেশি মুসলমান এখানে এসে নামাজ আদায় করেন। প্রতি শুক্রবারে ২ থেকে ৩ হাজার মুসুল্লী এখানে আসেন। গুরুত্বপূর্ণ উত্সব যেমন ঈদের সময় ৪ থেকে ৫ হাজার মুসলমান আসেন এ মসজিদে।

ইমাম সাহেব বলেন, নানা জাতি ও দেশের মুসলান সবাই এখানে নামাজ আদায় করতে পারেন। প্রতি বছর নানা দেশের মুসলমান প্রতিনিধি দল এখানে পরিদর্শনে আসেন।

সিপিসি ও সরকার চীনের মুসলমান ও মসজিদের ওপর গুরুত্ব দেয়। ২০১৪ সালের ৩০ এপ্রিল প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং ইয়াং হাং মসজিদ পরিদর্শন করেন এবং তাঁর সমর্থনে মসজিদের নতুন অফিস ভবন নির্মিত হয়। ইমাম জানান, প্রেসিডেন্ট সি ইয়াং হাং মসজিদ পরিদর্শন শেষে মনে করেন এখানে অবকাঠামো অপ্রতুল। তাই তাঁর নির্দেশনায় নতুন একটি অফিস ভবন নির্মিত হয়।

তাছাড়া, উরুমছির স্থানীয় সরকার অর্থ বরাদ্দ করে সারা শহরের ৩৯৯টি মসজিদের অবকাঠামো উন্নয়ন করেছে।

সব মসজিদে গ্যাস, পানি, বিদ্যুত, কম্পিউটার ও টিভিসহ মৌলিক অবকাঠামো নিশ্চিত করা হয়েছে এবং মুসলমানদের ধর্মীয় চর্চার জন্য ভাল পরিবেশ সৃষ্টি করা হয়েছে।

বাংলাদেশের সাংবাদিকদের মনে যে সন্দেহ এবারের পরিদর্শনের মাধ্যমে তা দূর হয়েছে। কায়েস জানিয়েছেন, ইমামের সাথে কথা বলে আমরা জানতে পেরেছি এখানে নামায পড়া ও স্বাধীনভাবে ধর্মীয় চর্চা করা যায়। চীন সরকারও তাদেরকে সহায়তা করছে। একজন মুসলমান হিসেবে নিশ্চয় আমাদের সবার খুব ভাল লাগছে। (শিশির/মহসীন)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040