Web bengali.cri.cn   
বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে চীনা একাডেমি প্রতিষ্ঠার ৮০তম বার্ষিকী উপলক্ষ্যে সেমিনার ও শান্তা মারিয়ার সাক্ষাত্কার
  2017-12-18 17:06:47  cri

 


সুপ্রিয় শ্রোতাবন্ধুরা, আপনারা ভালো আছেন? সুদূর বেইজিং থেকে সবাইকে আন্তরিক প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি আমাদের নিয়মিত সাপ্তাহিক আয়োজন 'বিদ্যাবার্তা' অনুষ্ঠান। আর এ আয়োজনে আপনাদের সঙ্গে রয়েছি সুবর্ণা ও টুটুল।

আজকের অনুষ্ঠানের শুরুতে আপনারা চীনের সি'আনে আয়োজিত কনফুসিয়াস ইনস্টিটিউটের দ্বাদশ সম্মেলন সম্পর্কিত একটি খবর শুনবেন। এরপর শুনবেন চীনের পিকিং বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে চীনা একাডেমি প্রতিষ্ঠার ৮০তম বার্ষিকী উপলক্ষ্যে সেমিনার ও এই সেমিনারের অন্তর্ভুক্ত চীনে বাংলা ভাষা চর্চাবিষয়ক সেমিনারে অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশি নাগরিক শান্তা মারিয়ার বিশেষ সাক্ষাত্কার।

চীনের সি'আনে কনফুসিয়াস ইনস্টিটিউটের দ্বাদশ সম্মেলন আয়োজিত

১২ থেকে ১৩ ডিসেম্বর কনফুসিয়াস ইনস্টিটিউটের দ্বাদশ সম্মেলন চীনের সি'আন শহরে আয়োজিত হয়। সম্মেলনে চীনা ভাষা শেখার বই প্রদর্শনীও আয়োজিত হয়। এ প্রদর্শনীতে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে নতুন রচিত চীনা ভাষা শেখার বই, সাহিত্য ও ইন্টারনেট প্ল্যাটফর্মসহ ৩০টি প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন ধরনের ভাষা শেখার বই তুলে ধরা হয়। এর মধ্য দিয়ে চীনা ভাষার আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণের নতুন সাফল্য প্রতিফলিত হয়।

সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিরা চীনা ভাষা শেখার বই সম্পর্কে জানতে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

সিআরআই এবারের প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানের অন্যতম হিসেবে 'হ্যালো, চায়না' বহুমুখী মিডিয়ার প্রকল্প ও 'প্রতিদিন চীনা ভাষা' বইটি তুলে ধরে। এছাড়া, সিআরআই বেতারের মাধ্যমে প্রচারিত কনফুসিয়াস ক্লাসরুম, বিদেশের ডাবিং প্রকল্প, বহু ভাষার ম্যাগাজিন ও চায়না প্লাস এপিপিসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক প্রকল্প প্রদর্শন করে, যা দেশ বিদেশের প্রতিনিধিদের আকর্ষণ করে।

বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে চীনা একাডেমি প্রতিষ্ঠার ৮০তম বার্ষিকী উপলক্ষ্যে সেমিনার

গত ১২ থেকে ১৩ ডিসেম্বর চীনের পিকিং বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ভারতীয় সংস্কৃতির দৃষ্টিতে চীনা ভাষার সাহিত্য' নামে এক সেমিনার আয়োজিত হয়। বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে চীনা একাডেমি প্রতিষ্ঠার ৮০তম বার্ষিকী উপলক্ষ্যে এ অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে

পিকিং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিদেশি ভাষা একাডেমি।

পিকিং বিশ্ববিদ্যালয়, বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়, চীনের ফুতান বিশ্ববিদ্যালয়, চীনের কেন্দ্রীয় অনুবাদ প্রকাশনালয়, চীনের জাতীয় জাদুঘরসহ চীন, ভারত ও বাংলাদেশের ১০ জনেরও বেশি পণ্ডিত সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন।

১৯২১ সালে ভারতের শান্তিনিকেতনে বিশ্ব ভারতী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

১৯৩৭ সালে ঠাকুরের ঘনিষ্ঠ চীনা বন্ধু, অধ্যাপক থান ইউয়ুন শান বিশ্বভারতীতে চীনা একাডেমি প্রতিষ্ঠা করেন। গত ৮০ বছর ধরে এ একাডেমি চীন ও ভারতের বন্ধুত্বপূর্ণ বিনিময়ের গুরুত্বপূর্ণ সেতু হিসেবে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করছে। সেই সঙ্গে এ একাডেমি ভারতে চীনা ভাষা ও সাহিত্য গবেষণা এবং চীনা ভাষা শেখার গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে।

১৯৫৭ সালে চীনের তত্কালীন প্রধানমন্ত্রী চৌ এন লাই বিশ্বভারতী সফর করেন এবং প্রচুর চীনা বই প্রদান করেন। ২০১৪ সালে চীনা প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং বিশ্বভারতীর চীনা একাডেমিকে 'শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের পঞ্চশীল নীতি পুরস্কার' প্রদান করেন। এই পুরস্কারের মাধ্যমে চীন-ভারত জনগণের মৈত্রী এবং বিশ্ব শান্তি ও উন্নয়নে চীনা একাডেমির অতুলনীয় অবদানের প্রশংসা করা হয়।

সেমিনারে অংশগ্রহণকারী বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, এবারের সেমিনার ভারতীয় সংস্কৃতির দৃষ্টিতে চীনা ভাষার সাহিত্য গবেষণার জন্য তাত্পর্যপূর্ণ এবং এটি একইসঙ্গে দু'দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের জন্যও গুরুত্বপূর্ণ।

এ সেমিনারে সিআরআইয়ের সাংবাদিক হিসেবে অংশ নেন ছাওইয়ানহুয়া সুবর্ণা। এ ছাড়া, এ সেমিনারে সিআরআইয়ের পুরনো বন্ধু বাংলাদেশের শান্তা মারিয়াও প্রতিনিধি হিসেবে অংশ নেন। তিনি চীনে বাংলা ভাষার চর্চা নিয়ে একটি বিশেষ সাক্ষাত্কার প্রদান করেন। এখন শুনুন তাঁর সাক্ষাত্কার। (সুবর্ণা/টুটুল)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040