Web bengali.cri.cn   
চতুর্থ বিশ্ব ইন্টারনেট সম্মেলনে সি চিন পিংয়ের অভিনন্দনবার্তা
  2017-12-03 17:26:37  cri

ডিসেম্বর ৩: চতুর্থ বিশ্ব ইন্টারনেট সম্মেলন আজ (রোববার) সকালে চীনের চেচিয়াং প্রদেশের উচেনে শুরু হয়েছে। সম্মেলন উপলক্ষ্যে অভিনন্দনবার্তা পাঠিয়েছেন চীনা প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং। তিনি চীন সরকার ও জনগণ এবং নিজের পক্ষ থেকে সম্মেলন আয়োজনের জন্য উষ্ণ অভিনন্দন জানান, তিনি সম্মেলনে উপস্থিত বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধি, আন্তর্জাতিক সংস্থার দায়িত্বশীল কর্মকর্তা ও পণ্ডিত, শিল্পপতি প্রমুখ বিভিন্ন মহলের ব্যক্তিদের আন্তরিক স্বাগত জানান। তিনি আশা করেন, সকলের মতবিনিময় সংগ্রহ করে মতৈক্য বাড়াবে, ইন্টারনেট ও ডিজিটাল অর্থনীতি ক্ষেত্রের বিনিময় ও সহযোগিতা গভীরতর করবে, ইন্টারনেট উন্নয়নের সুফল আরো ভালোভাবে বিভিন্ন দেশের জনগণের কল্যাণ বয়ে আনবে।

অভিনন্দনবার্তায় সি চিন পিং বলেন, বর্তমানে তথ্য প্রযুক্তির প্রতিনিধিত্বকারী নতুন দফা প্রযুক্তি ও শিল্প বিপ্লব শুরু হয়েছে এবং আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের জন্য প্রবল চালিকাশক্তি যুগিয়েছে। এর পাশাপাশি ইন্টারনেট উন্নয়ন বিভিন্ন দেশের সার্বভৌমত্ব, নিরাপত্তা, উন্নয়নের উপকারের জন্য অনেক নতুন চ্যালেঞ্জ বয়ে এনেছে। বৈশ্বিক ইন্টারনেট শাসন ব্যবস্থার সংস্কারও গুরুত্বপূর্ণ যুগে প্রবেশ করেছে। ইন্টারনেটের অভিন্ন লক্ষ্যের কমিউনিটি গড়ে তোলা আন্তর্জাতিক সমাজের ব্যাপক মতৈক্যে পৌঁছেছে। আমাদের প্রস্তাবিত 'চারটি মূল নীতি' আর 'পাঁচটি প্রস্তাব' এর উদ্দেশ্য হলো আন্তর্জাতিক সমাজের সাথে যৌথভাবে ইন্টারনেট সার্বভৌমত্ব সম্মান করা, অংশীদারের ভূমিকা পালন করা, সবার কাজ সবাই আলোচনার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নেওয়া, যৌথভাবে উন্নয়ন এগিয়ে নেওয়া, নিরাপত্তা রক্ষা করা, ব্যবস্থাপনায় অংশগ্রহণ করা এবং ফলাফল ভাগাভাগি করা।

সি চিন পিং জোর দিয়ে বলেন, সিপিসির ঊনবিংশ জাতীয় কংগ্রেসে নতুন যুগে চীনের বৈশিষ্ট্যপূর্ণ সমাজতন্ত্রের কার্যক্রম ও উন্নয়নের পরিকল্পনা প্রণীত হয়েছে এবং উত্থাপিত হয়েছে যে, ইন্টারনেট খাতের শক্তিশালী দেশ, ডিজিটাল চীন, বুদ্ধিমান সমাজ গড়ে তোলা, ইন্টারনেট, বিগ ডেটা, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা আর বাস্তব অর্থনীতির গভীর মিশ্রণ অগ্রসর করা, ডিজিটাল অর্থনীতি ও ভাগাভাগি অর্থনীতি উন্নত করা, নতুন প্রবৃদ্ধির খাত পালন করা, নতুন চালিকাশক্তি গড়ে উঠা। চীনের ডিজিটাল অর্থনীতির উন্নয়ন এক্সপ্রেস পথে প্রবেশ করেছে। চীন আশা করে, নিজের প্রয়াসের মাধ্যমে বিভিন্ন দেশের সঙ্গে একসাথে ইন্টারনেট ও ডিজিটাল অর্থনীতি উন্নয়নের এক্সপ্রেস ট্রেনে উঠবে। চীনের বৈদেশিক উন্মুক্তকরণের দ্বার কখনো বন্ধ হবে না। আরো বড় করে খোলা হবে।

সিপিসির কেন্দ্রীয় কমিটির পলিট ব্যুরোর স্থায়ী সদস্য, কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীর সম্পাদক ওয়াং হু নিং উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান ভাষণ দেন। তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট সি চিন পিংয়ের অভিনন্দনবার্তা সম্পূর্ণভাবে চীন আর বিভিন্ন দেশের সঙ্গে মিলে ইন্টারনেট আর ডিজিটাল অর্থনীতি উন্নয়নের আন্তরিক আশা-আকাঙ্ক্ষা প্রতিফলন করেছে। বিভিন্ন দেশের সঙ্গে ইন্টারনেট উন্নয়নের সৃষ্ট ঐতিহাসিক সুযোগ কাজে লাগিয়ে ডিজিটাল অর্থনীতিকে প্রধান চালিকাশক্তি হিসেবে ইন্টারনেটের উন্মুক্ত, সহযোগিতা, বিনিময় ও ভাগাভাগি করতে এবং যৌথভাবে ইন্টারনেটের অভিন্ন লক্ষ্যের কমিউনিটি গঠন করতে ইচ্ছুক চীন।

থাইল্যান্ডের উপপ্রধানমন্ত্রী প্রাজিন জানতোং, মঙ্গোলিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী টসাগানদারি এনখতুভসিন, জাতিসংঘের উপমহাসচিব লিউ চেন মিন, অ্যাপল কোম্পানির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা টিম কুক, সিসকো কোম্পানির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা চুক রবিন্স, ইন্টারনেটের জনক রবার্ট কান, আলিবাবা বোর্ডের চেয়ারম্যান মা ইয়ু প্রমুখ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভাষণ দেন।

চতুর্থ বিশ্ব ইন্টারনেট সম্মেলন ৩ থেকে ৫ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। এবারের প্রতিপাদ্য হলো 'ডিজিটাল অর্থনীতি উন্নয়ন, উন্মুক্ত ও ভাগাভাগি ত্বরান্বিতকরণ --- হাতে হাত রেখে যৌথভাবে ইন্টারনেটের অভিন্ন লক্ষ্যের কমিউনিটি গঠন'। বিশ্বের পাঁচটি মহাদেশের ৮০টির বেশি দেশ ও অঞ্চলের সরকারি প্রতিনিধি, আন্তর্জাতিক সংস্থার দায়িত্বশীল কর্মকর্তা, ইন্টারনেট শিল্পপ্রতিষ্ঠানের প্রধান, ওয়েবসাইটের বিখ্যাত ব্যক্তিত্ব ও বিশেষজ্ঞসহ মোট ১৫০০ জনের বেশি প্রতিনিধি সম্মেলনে অংশ নেন। (ইয়ু/টুটুল)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040