Web bengali.cri.cn   
এখন থেকে
  2017-09-10 18:24:15  cri



বন্ধুরা, আজকের অনুষ্ঠানের শুরুতে আমি আপনাদেরকে তরুণ কন্ঠশিল্পী উ ই ফানের কন্ঠে 'এখন থেকে' শিরোনামের গান শোনাবো। উ ই ফান ১৯৯০ সালের ৬ নভেম্বর চীনের কুয়াংদং প্রদেশের কুয়াংচৌ শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি একজন অভিনেতা ও কন্ঠশিল্পী। ছোটবেলায় বাবা মার বিবাহবিচ্ছেদ হওয়ার পর ১০ বছর বয়সে তিনি মায়ের সঙ্গে ক্যানাডার ভ্যাঙ্কুভারে অভিবাসী হিসেবে গমন করেন। ২০০৫ সালে ১৫ বছর বয়সী উ ই ফান কুয়াংচৌয় ফিরে আসেন। তিনি ছিলেন তখন মাধ্যমিক স্কুলের বাস্কেটবল দলের ক্যাপটেইন। উচ্চ মাধ্যমিকের সময় তিনি ক্যানাডায় ফিরে লেখা-পড়া শুরু করেন। ২০০৭ সালে তিনি দক্ষিণ কোরিয়ার এসএম বিনোদন কোম্পানির শিক্ষার্থী হিসেবে লেখাপাড়া করেন। ২০১১ সালে একটি মিউজিক ভিডিওতে অভিনয়ের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে বিনোদন জগতে প্রবেশ করেন। ২০১৪ সালের জুন মাসে তিনি প্রথমবারের মত চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। একই বছরের জুলাই মাসে তিনি একটি চলচ্চিত্রের থিম সং গাওয়ার মাধ্যমে সঙ্গীত জগতে প্রবেশ করেন। এরপর তিনি বিভিন্ন চলচ্চিত্র ও সংগীত প্রতিযোগিতায় পুরস্কার লাভ করেন। 'এখন থেকে' গানের কথা হল, সূর্যাস্তের পিছনে অর্ধচন্দ্র আস্তে আস্তে রাতের আকাশে উঠে গেছে। কেন শান্ত মনে অপেক্ষা করছে? তোমাকে আনন্দ দিতে চায়? কিন্তু সে তো কোমলতা বুঝে না। তোমার কাছে একটু ক্ষণ থাকে। এমন কি এক সেকেন্ডই যথেষ্ট। এখন থেকে এ ধরণের ভালবাসা পাবো না। তোমার হাত ছেড়ে দিলে আমার উদ্বিগ্ন লাগে। আমি চাই যে, তুমি সুখী হও। তুমি আমার হৃদয়ের গভীরে চিরদিন থাকবে। এখন থেকে আমার জন্য কাঁদবে না। বাড়ীতে ফিরে যাওয়ার পথে কে আমার জন্য অপেক্ষা করছে? আচ্ছা, বন্ধুরা, এখন আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

বন্ধুরা, শুনছিলেন 'এখন থেকে' শিরোনামের গানটি। এখন আমি একজন নারী কন্ঠশিল্পী মেং থিং ওয়েইকে পরিচয় করে দিবো। তিনি ১৯৬৯ সালের ২২ ডিসেম্বরে চীনের তাইওয়ানের কাওস্যিয়ং শহরে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৮৯ সালে তিনি টিভি বিজ্ঞাপনে অভিনয়ের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে বিনোদন জগতে প্রবেশ করেন। ১৯৯০ সালে তাঁর প্রথম অ্যালবাম প্রকাশিত হয়। ১৯৯১ সালে তিনি টিভি সিরিজে অভিনয় শুরু করেন। ২০০০ সালে ত্রয়োদশ অ্যালবাম প্রকাশের পর আনুষ্ঠানিকভাবে তিনি বিনোদন জগত ছেড়ে যান। এরপর তিনি দু'টি বৌদ্ধ গানের অ্যালবাম প্রকাশ করেন। আজকের অনুষ্ঠানে আমি আপনাদেরকে মেং থিং ওয়েই'র কন্ঠে 'কাপোক রাস্তা' শিরোনামের গান শোনাবো। কাপোক এক ধরণের ফুল। সাধারণত লাল রঙের। গানের কথা এমন- লাল ফুলে রাস্তা ভরে গেছে। রাস্তা আগুন জ্বলার মত। অন্ধকার রাতে আমি এ রাস্তায় ঘুরে বেড়াই। হালকা বাতাসে গাছের পাতা আস্তে আস্তে দুলছে। আমি কিভাবে কাপোক রাস্তা ভুলে যেতে পারি। ব্যাপারটি গত বছরের গ্রীষ্মকালে ঘটেছিল। আমি কিভাবে কাপোক রাস্তার কথা ভুলে যেতে পারি? এটি হল স্বপ্নের স্মরণীয় ভালবাসা। এ কাপোক রাস্তার মত ফুলের ঋতু চলে যাওয়ার পাশাপাশি আমাদের ভালবাসাও চলে গেছে। আমাদের ভালবাসা এ কাপোক রাস্তার মত লাল ফুলে ভরপুর যেন আগুন জ্বলার মত গরম। আচ্ছা, বন্ধুরা, এখন আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

বন্ধুরা, শুনছিলেন 'কাপোক রাস্তা' শিরোনামের গান। এখন আমি আপনাদেরকে 'আমি তোমাকে ভুলতে পারবনা' শিরোনামের গান শোনাবো। গেয়েছেন নারী কন্ঠশিল্পী লিন ই লিয়ান। তিনি ১৯৬৬ সালের ২৬ এপ্রিল চীনের হংকংয়ে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি একজন অভিনেত্রী ও কন্ঠশিল্পী। ১৯৮২ সালে তিনি বেতারে ডিজে'র কাজ শুরু করেন। ১৯৮৪ সালে তিনি প্রথম বারের মত চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। ১৯৮৫ সালে তিনি নিজের প্রথম ক্যান্টোনিজ অ্যালবাম প্রকাশ করেন। ১৯৯০ সালে তিনি প্রথম মানদারিন অ্যালবাম প্রকাশ করেন। তিনি এ অ্যালবাম দিয়ে এ বছর হংকংয়ের এক সংগীত ক্যাটাগরিতে স্বর্ণপদক লাভ করেন।একই সাথে সারা চীনে জনপ্রিয় হয়ে উঠেন। এ পর্যন্ত তিনি বেশ কিছু পুরস্কার লাভ করেছেন। 'আমি তোমাকে ভুলতে পারবনা' গানটি একটি চলচ্চিত্রের থিম সং এবং গত ১৭ এপ্রিল তা বাজারে আসে। গানের কথা এমন, আমাদের আবেগ কোন সন্দেহে পরিবর্তন হবে না। আমারা দু'জন আহত হয়েছিলাম। যদিও অনেক ব্যাথা, তবুও এটি হল আমাদের ভালবাসার চিহ্ন। আমাদের হারানো সময়, আমাদের হারানো উত্তর, হৃদয় হল অনধিকৃত এলাকায় উত্থান-পতন। তুমি কঠিন বললেও আমার কোন ভয় লাগবে না। আমি তোমাকে ভুলতে পারবনা। আমার ভালবাসা কিভাবে প্রমাণ করবো। আমি যেকোন কিছু চেষ্টা করতে পারি। আমাদের আবেগ হারিয়ে যাবে না। তুমি আমার স্মৃতি। আমি খুব সাহসী না, কিন্তু তোমার জন্য সাহসী হবো। তোমাকে ভালবেসেছি একবার। আজীবন তোমাকে ভালবাসতে থাকবো। এখন মাত্র শুরু। আচ্ছা, বন্ধুরা, এখন আমরা একসঙ্গে গানটি শুনবো।

বন্ধুরা, শুনছিলেন 'আমি তোমাকে ভুলতে পারবনা' শিরোনামের গান। এখন আমি আপনাদেরকে 'পরস্পরকে বুঝা' শিরোনামের গান শোনাবো। গেয়েছেন নারী কন্ঠশিল্পী হান হং। তিনি একজন কন্ঠশিল্পী, সুরকার, গীতিকার, সংগীত প্রযোজক, চলচ্চিত্র প্রযোজক, উপস্থাপিকা, চীনের জাতীয় রাজনৈতিক পরামর্শ সম্মেলনের সদস্য ও জাতীয় পর্যায়ের প্রথম সারির অভিনেত্রী। আগের অনুষ্ঠানে আমি হান হংয়ের পরিচয় দিয়েছিলাম। এখন আমি 'পরস্পরকে বুঝা' শিরোনামের গানের কথা বলে দিবো আপনাদেরকে। এক কথা অনেক সময় অপেক্ষা করা উচিত। এক ফুল, এক গ্লাস ওয়াইন , একটি পুরনো ক্ষত। দু'জন কে প্রথমে বলবো। একসঙ্গে সামনে যাচ্ছি, কে প্রথমে পিছনে দেখবো। প্রতি ডাক, শত বছরে এক বার দীর্ঘশ্বাস। ঠান্ডা তুহিন আরো ঠান্ডা, একা ঘুমতে পারি না। স্বপ্নে সুন্দরী একজনকে দেখেছি। ফিরে দেখি হাসে। ঘৃণা দূরে রাখি। আশা করি, আজকের ওয়াইন দিয়ে গতকালের দুঃখ দূর করতে পারব। আকাশে তুহিন ভরপুর, গাছের পাতা বৃষ্টির মত পড়ছে। আমাদের ভালবাসা এত গভীর! কে তোমার হৃদয়ে ডাকছে। পরস্পরকে বুঝেছি আমরা।

বন্ধুরা, শুনছিলেন 'পরস্পরকে বুঝা' শিরোনামের একটি গান। আশা করি, গানটি সবাই পছন্দ করেছেন। শ্রোতাবন্ধুরা, আজকের অনুষ্ঠানে আমরা আপনাদেরকে চারটি চীনা ভাষার গান শুনিয়েছি। এখন শোনাবো কয়েকটি বাংলা গান। আশা করি আপনাদের ভালো লাগবে।

প্রিয় শ্রোতা, এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের সবাইকে জানাই অসংখ্য ধন্যবাদ। যদি আমাদের অনুষ্ঠানে আপনার কোনো পছন্দের গান শুনতে চান, তাহলে জানাবেন। আমাদের ই-মেইল ঠিকানা ben@cri.com.cn। আর আমার নিজস্ব ইমেইল ঠিকানা caiyue@cri.com.cn।গানের অনুরোধ' আমার নিজস্ব ঠিকানায় পাঠালে সুবিধে হবে।

আজ তাহলে এ পর্যন্তই। আশা করি, আগামী সপ্তাহের একই দিন, একই সময়ে আবারো আপনাদের সঙ্গে কথা হবে। সে পর্যন্ত সবাই ভালো থাকুন, আনন্দে থাকুন। চাই চিয়ান।

(ছাই/ মহসীন)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040