Web bengali.cri.cn   
পরিবেশবান্ধব শিক্ষার্থী; পরিবেশবান্ধব বিদ্যালয়
  2017-08-30 13:58:13  cri

 

 


প্রিয় শ্রোতা, স্পঞ্জ সিটি, ফোটোভোলটাইক পাওয়ার স্টেশন, পুনরায় ব্যবহারযোগ্য কাগজ—ইত্যাদি টার্মগুলোর সঙ্গে আপনারা কি পরিচিত? আমি সম্প্রতি বেশ কয়েকবার 'স্পঞ্জ সিটি' টার্মটি শুনেছি। তারপর একটু ইন্টারনেটে ঢুঁ মারলাম টার্মটার অর্থ জানতে। জানলাম যে, স্পঞ্জ সিটি মানে 'স্পঞ্জের মতো শহর'। স্পঞ্জ কী করে? পানি শোষণ করে বা ধরে রাখে। 'স্পঞ্জ সিটি' সে শহরকে বলা হয় যে-শহরে বৃষ্টির পানি ধরে রাখা হয়! শহরে পানির অভাব দূর করতে এ ধারণা প্রবর্তন করা হয়েছে।

চীনের শান তুং প্রদেশের ওয়ে হাই শহরে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এসব শব্দ বা টার্মের সঙ্গে পরিচিত। তারা জানে স্পঞ্জ সিটি, ফোটোভোলটাইক পাওয়ার স্টেশন, পুনরায় ব্যবহারযোগ্য কাগজ ইত্যাদি কী। কারণ, এগুলো এখন তাদের জীবনের অংশ হয়ে গিয়েছে। স্কুলে পরিবেশ সংরক্ষণ নিয়ে তারা শুধু জ্ঞান অর্জন করে তা নয়, সে জ্ঞান তারা কাজেও লাগায় নিয়মিতভাবে।

ওয়ে হাই শহরের পু থো রোড প্রাথমিক বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত

হয় ২০১২ সালে এবং এটি হচ্ছে শহরের একমাত্র 'জাতীয় পরিবেশ সংরক্ষণ শিক্ষা দৃষ্টান্তমূলক স্কুল'। শুরু থেকেই 'ইকোলজি' ধারণার ওপর ভিত্তি করে একটি সবুজ ও প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্যময় বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা ছিল উদ্যোক্তাদের লক্ষ্য। পরিবেশ সংরক্ষণের ধারণা দৈনন্দিন ক্লাসে যোগ করা হয় এ বিদ্যালয়ে, যা চীনের অন্যান্য প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সচরাচর দেখা যায় না।

পু থো রোড প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালক লিউ আই চিং বলেন "প্রতিষ্ঠার পর বিগত ৫ বছর ধরে আমরা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য পরিবেশবান্ধব শিক্ষাসূচি প্রণয়নের চেষ্টা করছি। যে-কোনো ক্লাসে আমরা পরিবেশ সংরক্ষণ নিয়ে আলোচনা করি। তা ছাড়া, আমরা বিশেষ একটি ক্লাস চালু করেছি। এ ক্লাস দু'টির শ্লোগান 'সবুজের সঙ্গে আছি; সবুজ আমার সাথী'। আমরা এ জন্য বিশেষ শিক্ষক নিয়োগ দিয়েছি। তাঁরা শিক্ষার্থীদের পরিবেশ সংরক্ষণ বিষয়ে জ্ঞান দান করেন।"

বিদ্যালয়ে পরিবেশ সংরক্ষণবিষয়ক বিভিন্ন জিনিসও দেখা যায়। এসবের মধ্যে আছে বিভিন্ন শ্লোগানসর্বস্ব বোর্ড। এগুলো শিক্ষার্থীদের হাতেই তৈরি। বিদ্যালয়ের এক কোণে একটি বাগান আছে। বাগানে ফল ও ফুলের গাছ লাগিয়েছে শিক্ষার্থীরা। তারা এসবের যত্ন নেয় নিজের হাতে। শিক্ষাভবনের প্রতি তলার করিডোরে থিম অনুযায়ী বিভিন্ন চিত্র স্থাপন করা আছে। এগুলো সচেতনতামূলক। লিউ আই চিং বলেন, "আমরা একবার 'বর্জ্যকে সম্পদে পরিণত করা' শীর্ষক থিমের ভিত্তিতে একটি অভ্যন্তরীণ প্রদর্শনীর আয়োজন করি। শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা বর্জ্য পদার্থ দিয়ে বিভিন্ন ধরনের কারুপণ্য তৈরি করে। বিদ্যালয়ের প্রথম তলায় ফেলে-দেওয়া-প্লাস্টিকের পোশাক, দ্বিতীয় তলায় কাগজের ভাস্কর্য স্থান পায়। পুরাতন পত্রিকার কাগজ দিয়ে তারা তৈরি করেন সুন্দর সুন্দর সব শিল্পকর্ম। তৃতীয় তলায় প্রদর্শন করা হয় পুরাতন কাপড় নিয়ে তৈরি কারুপণ্য এবং চতুর্থ তলায় পরিত্যক্ত কাঠ দিয়ে তৈরি পণ্য।"

শুধু প্রদশর্নী নয়, পু থো রোড প্রাথমিক বিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আছে পরিবেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি যাদুঘর, ফোটোভোলটাইক পাওয়ার স্টেশন, বাগান ইত্যাদি। ছাত্রছাত্রীরা এসব জায়গায় অনুশীলন করে এবং পরিবেশ সম্পর্কে সরাসরি জ্ঞান অর্জন করে।

পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র লি তিং লিন গর্বিতভাবে সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরে ফোটোভোলটাইক পাওয়ার স্টেশনের পরিচয়। সে বলে, "আমাদের বিদ্যালয়ে আছে একটি ফোটোভোলটাইক পাওয়ার স্টেশন। ফোটোভোলটাইক বিদ্যুত মানে লাইট বোর্ডের মাধ্যমে সৌরশক্তি থেকে উত্পাদিত বিদ্যুত। এ বিদ্যুত সরাসরি ব্যবহার করা হয় না। আমাদের বিদ্যালয়ে একটি ভ্যারিয়েবল ফ্রিকোয়েন্সি বক্স আছে। এর মাধ্যমে উত্পাদিত বিদ্যুতকে ব্যবহারযোগ্য বিদ্যুতে পরিণত করা হয়। এই বিদ্যুতই আমরা ব্যবহার করি। বিদ্যালয়ে এ বিদ্যুতই ব্যবহার করা হয়। আমাদের ফোটোভোলটাইক পাওয়ার স্টেশনের মেয়াদ ২৫ বছর। প্রতিবছর এ স্টেশান ৩৬০০ কিলোওয়াট/ঘন্টা বিদ্যুত উত্পাদন করে। ফোটোভোলটাইক পাওয়ার স্টেশন নিরাপদ এবং এটি কোনো কর্কশ শব্দ বা দূষণ সৃষ্টি করে না। এটি পরিবেশবান্ধব।"

পু থো রোড প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এমন অনেক নতুন ও বৈশিষ্ট্যপূর্ণ ব্যবস্থা চালু আছে, যা শিক্ষার্থীদের পরিবেশ সংরক্ষণ তত্পরতায় অংশ নিতে উত্সাহ দেয়। এখানে আছে পরিবেশ সংরক্ষণ ব্যাংক। পরিবেশ সংরক্ষণমূলক কাজে অংশ নিয়ে শিক্ষার্থীরা এ ব্যাংক থেকে অর্থ পেতে পারে। অবশ্য এ অর্থ ভার্চুয়াল। প্রতিমাসের নির্দিষ্ট একদিনে তারা বিদ্যালয়ের পরিবেশ সংরক্ষণ সুপারমার্কেট থেকে নিজ নিজ পছন্দের জিনিস কিনতে পারে।

সাধারণ সুপারমার্কেটের চেয়ে এ পরিবেশ সংরক্ষণ সুপারমার্কেট একটু ভিন্ন। এখানে শুধু পাওয়া যায় মনিহারী পণ্য, ক্রীড়া সামগ্রী এবং ছাত্রছাত্রীদের নিজ হাতে তৈরি কিছু জিনিস। হাতের তৈরি জিনিসের জন্য কাঁচামাল লাগে। কাঁচামাল ক্রয়ের অর্থও আসে এই পরিবেশ ব্যাংক থেকে। বিদ্যালয়ের প্রতিটি শ্রেণীকক্ষে আছে একটি করে রিসাইকেল বিন। ছাত্রছাত্রীরা তাদের ব্যবহৃত বোতল, কাগজ ইত্যাদি এ বিনে ফেলে। প্রতি সপ্তাহে এ রিসাইকেল বিনের জিনিষগুলো বিক্রয় হবার পর অর্জিত অর্থ জমা হয় পরিবেশ সংরক্ষণ ব্যাংকে। তারপর এ টাকা কাঁচামাল ক্রয়ের জন্য ব্যয় হবে সুপারমার্কেটে।

ছাত্রছাত্রীদের বিভিন্ন শখ অনুযায়ীও বিদ্যালয়ে আয়োজিত হয় বিভিন্ন পরিবেশ সংরক্ষণ তত্পরতা। প্রতি বুধবার বিকেলে শিক্ষার্থীরা নিজেদের ইচ্ছামতো বিভিন্ন তত্পরতায় অংশ নেয়। পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী সুং চিয়া সিন একটি পুনরায় ব্যবহারযোগ্য কাগজ তৈরির তত্পরতায় অংশ নেয়। সে ব্যবহৃত কাগজ দিয়ে নতুন কাগজ তৈরি করে। সুং চিয়া সিন বলে, ব্যবহৃত কাগজ পুনরায় ব্যবহার উপযোগী করা তোলা মানে গাছের ওপর চাপ কমানো।

বিদ্যালয়ে শিশুরা নিজ নিজ আগ্রহ অনুযায়ী বিভিন্ন তত্পরতার মাধ্যমে যেমন জ্ঞান অর্জন করতে পারে, তেমনি নিজের হাতে কিছু তৈরি করার সুযোগও পায়। শিক্ষার্থীদের প্রভাবে সংশ্লিষ্ট পরিবারগুলোও এখন পরিবেশ সচেতন হয়ে উঠছে। চতুর্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থী কু জি হে বললো,"আমি বাবাকে বলি, 'ব্যবহৃত পানি দিয়ে টয়লেট ফ্লাশ করতে পারেন' এবং মাকে বলি, 'চাল-ধোয়া পানি ফুলগাছের গোড়ায় দিতে পারেন'।"

২০১৬ সালে চীনা পরিবেশ সংরক্ষণ মন্ত্রণালয় ওয়ে হাই পু থো রোড প্রাথমিক বিদ্যালয়কে 'পরিবেশ সংরক্ষণ বিদ্যালয়' পুরস্কার দেয়। এটি ওয়ে হাই শহরের প্রথম পুরস্কারপ্রাপ্ত বিদ্যালয়। (শিশির/আলিম/সুবর্ণা)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040