Web bengali.cri.cn   
নেট ইজি অ্যানুয়েল মিটিং অব ইকনোমিস্ট'-এর গ্রীষ্মকালীন ফোরাম বেইজিংয়ে অনুষ্ঠিত
  2017-08-11 15:26:06  cri

গতকাল (বৃহস্পতিবার) রাজধানী বেইজিংয়ে আয়োজিত এক ফোরামে বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, চীনে সরবরাহব্যবস্থা সংস্কারের কাজ চলছে, যা অর্থনীতির স্থিতিশীল ও সুষ্ঠু উন্নয়ন প্রক্রিয়াকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবে। ভবিষ্যতে চলমান সংস্কার প্রক্রিয়াকে গভীরতর করার ওপরও গুরুত্বারোপ করেন তাঁরা।

২০১৭ সালের অর্ধেকেরও বেশি সময় অতিক্রান্ত হয়েছে। এ সময়টায় চীনের অর্থনীতি স্থিতিশীলতা ও সুষ্ঠু উন্নয়নের ইতিবাচক প্রবণতা বজায় রাখে। চলতি বছর ব্যক্তিগত ভোগ এবং সেবাশিল্প অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি ছিল। এদিকে, চীন 'এক অঞ্চল, এক পথ' উদ্যোগ বাস্তবায়নের কাজও এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে এবং 'অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়ন ধারণা'র মাধ্যমে অর্থনীতির বিশ্বায়নের ক্ষেত্রে নতুন দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। গতকাল (বৃহস্পতিবার) অনুষ্ঠিত 'নেট ইজি অ্যানুয়েল মিটিং অব ইকনোমিস্ট'-এর গ্রীষ্মকালীন ফোরামে এ বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা হয়।

ফোরামে চীনের উপ-অর্থমন্ত্রী চু কুয়াং ইয়াও বলেন, সরবরাহব্যবস্থার সংস্কার চীনের অর্থনীতির স্থিতিশীল উন্নয়নে ভূমিকা রাখছে। তিনি বলেন,

"গত অক্টোবরে চীনের অর্থনীতিতে প্রবৃদ্ধির হার ছিল ৬.২ শতাংশ, যা চলতি বছরের জানুয়ারিতে বেড়ে দাঁড়ায় ৬.৫ শতাংশে। পরে এপ্রিলে এ হার আরও বেড়ে ৬.৬ শতাংশে দাঁড়ায়। আর জুলাই মাসে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের হিসাব অনুসারে প্রবৃদ্ধির হার ছিল ৬.৭ শতাংশ। এক বছরে তিনবার প্রবৃদ্ধির হার বৃদ্ধি প্রমাণ করেছে যে, কাঠামোগত সংস্কার অর্থনীতির উন্নয়নে অবদান রাখছে। আর চীনা অর্থনীতির উন্নয়ন বিশ্ব অর্থনীতির ওপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলে থাকে।"

কোনো কোনো বিশেষজ্ঞ মনে করেন, চীনের উচিত সংস্কার গভীরতর করা এবং উন্নয়নের চালিকাশক্তি বাড়ানো। চীনা জাতীয় গণকংগ্রেসের আর্থিক ও অর্থনৈতিক কমিটির উপ-পরিচালক ইন জুং ছিং মনে করেন, সরবরাহব্যবস্থার সমন্বয় প্রক্রিয়াকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাইলে, শ্রম, অর্থ ও সম্পদসহ অন্যান্য উপাদানের ওপর নির্ভরশীলতা কমিয়ে ব্যক্তি, প্রযুক্তি ও নবায়নের ওপর গুরুত্ব বাড়াতে হবে।

ইন জুন ছিং আরও বলেন, চীনের জিডিপিতে ভূসম্পত্তির অবদান ৬ শতাংশ ছাড়িয়ে গেছে এবং ভূসম্পত্তির অত্যধিক উন্নয়ন স্থানীয় সরকার ও আর্থিক সংস্থার ওপর চাপ ফেলে এবং সার্বিকভাবে বাস্তব অর্থনীতিকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। তিনি বলেন, চীনের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে, অর্থনীতির উন্নয়নে ভূসম্পত্তির অবদান কমানো। তিনি বলেন,

"ভূসম্পত্তির উন্নয়ন দেশের সার্বিক সমৃদ্ধিতে তেমন ভূমিকা রাখতে পারে না। তাই সরকার চীনের অবস্থা ও বাজারের নিয়ম বিবেচনায় রেখে মৌলিক ও দীর্ঘকালীন ব্যবস্থা গ্রহণ করবে এবং ভূসম্পত্তি ও বাস্তব অর্থনীতির সমন্বিত উন্নয়ন বাস্তবায়নে সচেষ্ট হবে।"

রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্প প্রতিষ্ঠানের সংস্কার গুরুত্বপূর্ণ একটি কাজ। ২০১৭ সালের প্রথম ছয় মাসে কেন্দ্রীয় শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলোর আয় ও মুনাফা বেড়েছে ১০ শতাংশের বেশি হারে। বোর্ড অব সুপারভাইজরস্‌ অব স্টেট কী লার্জ এন্টারপ্রাইজেসের চেয়ারম্যান চি সিয়াও নান মনে করেন, এ প্রবণতা বজায় রাখা দরকার এবং রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্প প্রতিষ্ঠানে সংস্কার গভীরতর করা গুরুত্বপূর্ণ। তিনি বলেন,

"রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্পপ্রতিষ্ঠানের সংস্কারের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অভ্যন্তরীণ সংস্কার। কর্পোরেট গভর্‌নেন্স স্ট্রাকচার এবং কার্যকর বাজারায়ন ব্যবস্থা—এ দুটি বিষয়ে অগ্রগতি অর্জন করতে হবে।"

চীনা জাতীয় পরিষদের উন্নয়ন গবেষণাকেন্দ্রের উপ-পরিচালক ওয়াং ই মিং মনে করেন, চীনের অর্থনীতি বর্তমানে উচ্চ গতির উন্নয়নের এক নতুন প্লাটফর্মে রয়েছে। তিনি আরও মনে করেন, মান ও কার্যকারিতা, টেকসই উচ্চ গতির উন্নয়নের জন্য প্রয়োজনীয় শর্ত সৃষ্টি করতে পারে। (শিশির/আলিম/লিলি)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040