Web bengali.cri.cn   
হ্যালো চায়না: ৮৫. ইয়ুন চিন
  2017-07-28 16:41:27  cri


প্রাচীনকালে চীনের সম্রাটরা অভিজাত ও বিলাসবহুল 'ড্রাগন গাউন' পরিধান করতেন। আপনারা কি জানেন, কী দিয়ে সেসব গাউন তৈরি করা হতো? বিভিন্ন ধরনের মূল্যবান সুতা দিয়ে এ পোশাক তৈরি হ'ত। এ বস্ত্রের নাম-ই 'ইয়ুন চিন' বা 'বুটিতোলা রেশমি বস্ত্র'।

দেখতে আকাশের রঙিন মেঘের মত সুন্দর বলে এর এ নামকরণ করা হয়। 'ইয়ুন চিন' মানে 'রঙিন মেঘের মত বস্ত্র'। এ বস্ত্র সর্বপ্রথম তৈরি হয়েছিল চীনের নান চিং শহরে। তাই এ বস্ত্রকে 'নান চিন ইয়ুন চিন' বলেও ডাকা হয়।

'ইয়ুন চিন'-এর ইতিহাস প্রায় দেড় হাজার বছরের। এ বিশেষ বস্ত্র তৈরিতে ব্যবহার করা হয় সোনা ও রূপার সুতা, ময়ূরের লেজের পালক এবং রেশমের সুতা। 'ইয়ুন চিন'-এর নকশা ছিল সম্রাটের সর্বোচ্চ ক্ষমতা এবং তার জন্য শুভ কামনার প্রতীক। এতে প্রতিফলিত হতো রেশমি বস্ত্র তৈরিতে শিল্পীদের সর্বোচ্চ দক্ষতা। প্রাচীন চীনে'ইয়ুন চিন' শুধু রাজপরিবারের বিশেষ পোশাক হিসেবে ব্যবহৃত হ'ত। মাঝে মাঝে রাজার পক্ষ থেকে উপহার হিসেবে এ মূল্যবান বস্ত্র রাজ্যের কোনো সফল মন্ত্রী, বিদেশি রাজা বা রাষ্ট্রদূতকে দেওয়া হতো।

'ইয়ুন চিন' তৈরির পদ্ধতি বেশ জটিল ও শ্রমসাধ্য। দু'জন বুননশিল্পীকে ৪ মিটার উঁচু ও ৫ মিটার লম্বা বুননযন্ত্র দিয়ে বস্ত্র তৈরি করতে হয়। দু'জন বুননশিল্পী প্রতিদিন মাত্র ৫ থেকে ৬ সেন্টিমিটার 'ইয়ুন চিন' বুনতে পারেন। তাই একে অনেকে 'সোনার মত দামি' বলে থাকেন।

৭৮ সেন্টিমিটার চওড়ার ইয়ুন চিন তৈরি করতে রেশমি সুতার১৪ হাজারটুকরা লাগে। আর এ কারণেই এর নকশা তৈরি কম্পিউটার প্রোগ্রামিংয়ের মতই জটিল ও কঠিন।

প্রাচীন আমলে একমাত্র নান চিং শহরেই 'ইয়ুন চিন' তৈরির জন্য ৩০ হাজার বুননযন্ত্র ছিল এবং ৩ লাখ বুননশিল্পী এ পেশায় নিয়োজিত ছিলেন। 'ইয়ুন চিন'-এ প্রতিফলিত হয় চীনের ঐতিহ্যবাহী সংস্কৃতি। এ বুননশিল্পকে অনেকে বলেন 'চীনের অন্যতম চমক'।

নয়াচীন প্রতিষ্ঠিত হবার পর থেকেই চীন সরকার ঐতিহ্যবাহী এই বুননশিল্পকে বাঁচিয়ে রাখতে বিশেষ বরাদ্দ দিয়ে আসছে। 'নান চিং ইয়ুন চিন' গবেষণালয় সফলভাবে হান রাজবংশ আমলের 'পাতলা রেশম কাপড়' ও মিং রাজবংশ আমলের 'ড্রাগন গাউন' নকল করতে সক্ষম হয়েছে। 'ইয়ুন চিন'তৈরিতে সম্পূর্ণভাবে যন্ত্রের ব্যবহার এখনও সম্ভব হয়ে ওঠেনি। অথচ 'ইয়ুন চিন' তৈরিতে দক্ষ বুননশিল্পীর সংখ্যা এখন মাত্র ৫০ জনে এসেছে ঠেকেছে।

২০০৯ সালে জাতিসংঘের ইউনেস্কো 'ইয়ুন চিন'-কে বিশ্ব সাংস্কৃতিক উত্তরাধিকার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে।

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040