Web bengali.cri.cn   
সুর ও বাণী: মে মাসের ফুল
  2017-05-02 18:45:33  cri


প্রিয় শ্রোতাবন্ধুরা, আপনারা চীন আন্তর্জাতিক বেতারের বাংলা অনুষ্ঠান শুনছেন। আমি আনন্দী বেইজিং থেকে আপনাদের আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। মে মাসের বেইজিং খুব সুন্দর ও আরামদায়ক। আজকের 'সুর ও বাণী' আসরে আপনারা মে মাস সম্পর্কিত গান ও সুর শুনবেন।

ইতিহাসে মে মাস হলো বিপ্লবের সঙ্গে সম্পর্কিত একটি মাস। এ মাস ঐতিহাসিক অনেক ঘটনার সাক্ষী বহন করছে। যেমন ১৮৮৯ সালে মহান বিপ্লবী ফ্রেডেরিখ অ্যাঙ্গেলস প্যারিসে দ্বিতীয় আন্তর্জাতিকের প্রতিনিধি সভা আয়োজন করে ১ মে আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস নির্ধারণ করেন।

১৯১৯ সালে বেইজিংয়ে '৪ঠা মে আন্দোলন' সংঘটিত হয়। ৪ঠা মে আন্দোলন চীনে মার্কসবাদ সম্প্রচার ও চীনের শ্রমিক আন্দোলন ত্বরান্বিত করেছে। ৪ঠা মে আন্দোলন হচ্ছে চীনের পুরোনো গণতান্ত্রিক বিপ্লবের অবসান আর নতুন গণতান্ত্রিক বিপ্লবের শুরু। চীনের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিসি) প্রতিষ্ঠার প্রস্তুতিও বটে। ফলে চীনে মে মাসকে 'রেড মে' বলা হয়। বন্ধুরা, শুনুন 'মে মাসের ফুল' নামের সুর।

বন্ধুরা, এতোক্ষণ আপনারা শুনলেন 'মে মাসের ফুল' নামের সুর। এ সুর ছিল ১৯৩৬ সালে চীনের নর্থ-ইস্ট ইউনিভার্সিটিতে পরিবেশিত নাটক 'আইন নামের মেয়ে'এর সূচনা গান। জাপানি আগ্রাসনবিরোধী যুদ্ধের সময় এ গানটি সারা চীনে ব্যাপকভাবে প্রচলিত ছিল। ১৯৫৯ সালে সুরকার ছু সি সিয়ান 'তরুণদের গান' নামে কাহিনী চিত্রে এ গানটি ব্যবহার করেন।

গানে বলা হয়েছে, 'মে মাসের ফুল ফুটেছে সবখানে। ফুলের নিচে বীরদের রক্ত। প্রায় মৃত জাতিকে উদ্ধার করার জন্য তারা অবিরাম সংগ্রাম করছেন। উত্তর-পূর্ব চীন চার বছর ধরে শত্রুদের হাতে রয়েছে, আমরা প্রতিদিন কষ্টে সময় কাটাই। স্বাধীনতা হারিয়েছি, চাকরি হারিয়েছি। আমাদের ক্ষোভের আগুন জ্বলে উঠেছে।'

অতীতের এক একটি রক্তক্ষয়ী ঘটনা আমাদের মনে অতি কষ্ট ও যন্ত্রণা তৈরি করে। বর্তমানে চীনা জাতি অধিক থেকে অধিকতর বিস্ময় সৃষ্টি করেছে, আত্মবিশ্বাস ও গর্ব অর্জন করেছে, অর্জন করেছে সম্মান ও আস্থা। ইতিহাস, আমরা ভুলবো না। মে মাসের স্মৃতি চিরদিন আমাদের মনে থাকবে।

বন্ধুরা, এখন আপনারা শুনছেন শেনচেনের পাইহো শিশু গায়ক দলের গাওয়া 'মে মাসের দেবদূত' নামের গান।

মে মাস হলো বসন্তকালের শেষ আর গ্রীষ্মকালের শুরু। মে মাসের আবহাওয়া সবচেয়ে আরামদায়ক। ঠান্ডা নয়, গরমও নয়। এ সময় পার্কে হাঁটাহাঁটি করার পর চেয়ারে বসে ওপরে তাকালে নীল আকাশ ও সাদা মেঘ দেখা যায়, শোনা যায় পাখির ডাক। এসময় চোখ বন্ধ করে কিছুক্ষণ প্রশান্তির বিশ্রাম নেয়া যায়।

 

বন্ধুরা, এখন শুনছেন 'মে মাসের ফুল ফুটেছে' নামের গান। এটি হলো একই নামে টিভি নাটকের থিম সং। গানটির সুর এবং কথা লিখেছেন শিল্পী সুন হাও। গেয়েছেন কাও শা লিন। গানে বলা হয়েছে, 'তুমি বলেছো, এ ঋতু আবার ফিরে আসবে। পুরো আকাশে পাপড়ি অবিরাম প্রেমের মতো উড়ে বেড়ায়। তুমি না থাকলে ফুলগুলো রঙহীন হয়ে পড়ে। দেখো, এ বাগানের সব ফুল কেবল তোমার জন্য ফুটেছে। আমি আশা করি, এমন উষ্ণ বসন্তের বাতাসে তুমি আমার কাছে চলে আসবে। তুমি কবে আমার কাছে ফিরে আসবে? মে মাসের ফুল ফুটেছে। আমি তোমার অপেক্ষায় দিন গুণছি।'

বন্ধুরা, মে মাস ফুল ফোটার ঋতু। এ সময় বেইজিংয়ের রাস্তার দু'পাশে, পার্কে বা আবাসিক এলাকার উদ্যানে বিভিন্ন ধরনের ফুল দেখা যায়। আমি বিশেষ করে প্যাগোডা ফুল পছন্দ করি। উচ্চ উচ্চ প্যাগোডা গাছের ওপর অসংখ্য প্যাগোডা ফুল ফোটে। এ ফুলের আকার ছোট, তবে তার সুগন্ধ বেশ মিষ্টি । এর সুগন্ধ বাতাসের সাথে অনেক দূরে ছড়িয়ে পড়ে। এ ফুলের সাথে ময়দা মিশিয়ে খাবার রান্না করা যায়।

বন্ধুরা, এখন শুনুন সোং জু ইংয়ের গাওয়া 'মে মাসের প্যাগোডা ফুলের সুগন্ধ' নামের গান। গানটি একই নামে টিভি নাটকের থিম সং। গানে বলা হয়েছে, 'মে মাসে প্যাগোডা ফুল ফোটে। আমার প্রিয় মানুষ, তুমি কোথায় আছো? চাঁদ পূর্ব দিক থেকে উঠেছে, ছায়া পড়েছে আমার রুমের দেয়ালে। আমার মনের কথা কাকে বলি? বিদায়ের গান গাওয়া খুব কঠিন।'

চীন বিশাল দেশ, তাই একই সময় বিভিন্ন জায়গায় ভিন্ন সৌন্দর্য দেখা যায়। আমার জন্ম এবং বেড়ে ওঠা বেইজিংয়ে। উত্তর-পশ্চিম চীনের বিস্তীর্ণ

দৃশ্য সবসময় আমাকে আকর্ষণ করে। ঐ অঞ্চলের ফুল বেইজিংয়ের চেয়ে ভিন্ন।

যেমন বন্য জলপাই ফুল উত্তর চীন, উত্তর-পশ্চিম চীন ও উত্তর-পূর্ব চীনে বেশি দেখা যায়। এ ফুল ওষুধ হিসেবে ব্যবহার করা যায়, যা কাশির জন্য খুব উপকারী । বন্ধুরা, শুনুন মা ইউয়ে চেনের গাওয়া 'মে মাসের বন্য জলপাই ফুল' নামের গান।

তিনি গেয়েছেন, 'মে মাসে সিনচিয়াংয়ে সব জায়গায় বন্য জলপাই ফুলের সুগন্ধ পাওয়া যায়। এ ফুলের সুগন্ধে মন মাতাল হয়ে ওঠে। দু'একটি ডানা রুমের মধ্যে ফুলদানির ভিতর রেখে দিলে পুরো রুম তার সুগন্ধে ভাসবে। আমার প্রিয় মেয়ে, তুমি কোথায়? আমার মন এ ফুলদানির মধ্যে বন্য জলপাই ফুলের মতো একাই সুগন্ধ বের করছে।'

বন্ধুরা, 'চীনের জাতীয় ভূগোল' পত্রিকা মে মাসে 'চীনের সবচেয়ে সুন্দর দশটি স্থান নির্বাচন করেছে। এ স্থানগুলো ভ্রমণের জন্য উপযুক্ত। যেমন সিছুয়ান প্রদেশের কানজি তিব্বত স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলের ডানবা, সেখানকার প্রাকৃতিক দৃশ্য অদ্ভূতরকমের সুন্দর। তুষারমৌলি পাহাড়, বন, হ্রদ, উষ্ণপ্রস্রবণ, তিব্বতি জাতির আবাসিক ভবন, লামা মন্দির সব সেখানে আছে।

আনহুই প্রদেশের হুয়াংশান পাহাড়ের সিউ নিং জেলার মু লি হো দক্ষিণ চীনের প্রতিনিধিত্বকারী ক্ষুদ্র গ্রাম। প্রতি বছর প্রায় এক'শ দিন এখানে ঘন মেঘের সাগর দেখা যায়। দেখতে স্বর্গের মতো। অনেক আলোকচিত্রশিল্পী এখানে এসে ছবি তোলেন।

মে মাসে সিনচিয়াংয়ের ইলিতে তুষার গলে যায়। উপত্যকার ঘুম ভাঙে। ছাগল, গরু ও ঘোড়া তৃণভূমিতে সবুজ ঘাস খায়। বন্ধুরা, 'মে মাসে বসন্তকালের ধারা' নামে সুর শুনুন।

বন্ধুরা, এতোক্ষণ আপনারা 'মে মাস' সম্পর্কিত কিছু গান ও সুর শুনলেন। কেমন লাগলো, জানাবেন। তো, 'সুর ও বাণী' আসর আজকের মতো এখানে শেষ করছি। ভালো থাকুন সবাই। আবার কথা হবে। (ইয়ু/টুটুল/সুবর্ণা) 

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040