Web bengali.cri.cn   
হ্যালো চায়না: ৬৬. নুডলস
  2017-03-18 12:26:02  cri

'মিয়ান থিয়াও' বা নুডলস চীনের একটি ঐতিহ্যবাহী খাবার। চীনের পুরাতত্ত্ব অনুযায়ী প্রায় ৪০০০ বছর আগে নুডলস আবিষ্কৃত হয়। আধুনিক তথ্য অনুযায়ী নুডলসের রয়েছে ১৯০০ বছরের ইতিহাস। দীর্ঘ সময় নুডলস খাবার কারণে চীনে নুডলস রান্নার পদ্ধতিতেও অনেক বৈচিত্র এসেছে। চীনে নুডলস রান্নার পাঁচশ'রও বেশি পদ্ধতি রয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, সি ছুয়ান প্রদেশের তানতান নুডলস, লানচৌ শহরের গরুর মাংসের নুডলস, পেইচিংয়ের জাচিয়াং নুডলস এবং শানসি প্রদেশের থাওসিয়াও নুডলস।

নুডলস রান্নার পদ্ধতি সহজ ও দ্রুত। খেতেও বেশ মজা এবং সহজে হজম হয়। চীনের খাদ্য সংস্কৃতিতে নুডলসের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। যেমন, জন্মদিনে প্রায় সবাই এক বাটি নুডলস খায় এবং দীর্ঘায়ু কামনা করে। এখানে প্রশ্ন উঠতে পারে, জন্মদিনের সঙ্গে নুডলসের সম্পর্ক কি ?

কথিত আছে, চীনের হান রাজবংশের হান উ সম্রাট ছিলেন খুব অন্ধবিশ্বাসী। একদিন তার মন্ত্রীদের সঙ্গে মানুষের আয়ু নিয়ে আলোচনার সময় তিনি বললেন, যে মানুষের মুখ যত লম্বা, সে তত দীর্ঘায়ু হবে। এ সময় তোং ফাং শৌ নামক একজন বুদ্ধিমান মন্ত্রী এ কথা শুনে হা হা করে হেসে ওঠেন। সবাই অবাক হয়ে তার হাসির কারণ জিজ্ঞেস করলেন। তখন তোং ফাং শৌ বলেন, চীনে একজনের আয়ু ছিল ৮০০ বছর, তাহলে তার মুখ কত লম্বা হতো! দীর্ঘায়ুর জন্য শুধু মুখ লম্বা হতে পারে না। তবে হ্যাঁ, আরো একটি ব্যাপার আছে। আর সেটি হলো, মুখের আরেকটি নাম মিয়ান, মুখ লম্বা মানে মিয়ান লম্বা। সে সময় থেকেই লম্বা মিয়ান থিয়াও বা নুডলস খাওয়ার মাধ্যমে দীর্ঘায়ু কামনা করা শুরু হয়।

সেই থেকে ধীরে ধীরে জন্মদিনে নুডলস খাওয়া এবং দীর্ঘায়ু কামনার রীতি তৈরি হয়। এ অভ্যাসটি এখনও চালু রয়েছে।

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040