Web bengali.cri.cn   
চীনের জনসংখ্যা নীতি প্রণয়নের পাশাপাশি সাধারণ পরিসেবার মানও উন্নীত হচ্ছেঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মঈনুল ইসলাম
  2017-03-15 15:08:47  cri
১৫ মার্চ: চীন একটি জনবহুল্য দেশ। জনসংখ্যার ওপরে সব সময় গুরুত্ব দিয়ে আসছে চীন সরকার। চীনের পরিবার পরিকল্পনা ইতিহাসে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। কিন্তু এখনো প্রবীণ জনসংখ্যা বাড়ানোর সমস্যা দেখা দিয়েছে। গত দুই বছরে চীনে চালু হয়েছে 'দুই বাচ্চার' নীতি। এবারের দুই অধিবেশনেও এ নীতি নিয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে।

সম্প্রতি এক সাক্ষাত্কারে বাংলাদেশের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পপুলেশন সায়েন্সেস বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মঈনুল ইসলাম এ মন্তব্য করেছেন।

চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কমিটির সুত্রে জানা গেছে, চীনে জনসংখ্যার কাঠামো এখন বড় চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হচ্ছে। কিভাবে 'দুই বাচ্চা' নীতি প্রণয়ন করা যায় তাকে বিভিন্ন দিক থেকে সামাঞ্জস্য ব্যবস্থা নিতে হয়। যেমন, ব্যক্তিগত শুল্ক আরোপের সময়, পরিবার হিসেবে শুল্ক দেওয়ার পরীক্ষা চালু করা যায়। পরিবারের সদস্য সংখ্যা বিবেচনা করে শুল্কের হার নির্ধারণ করা।

তাছাড়া, সাধারণ পরিসেবার মান উন্নীত করতে হবে। যেমন কর্মরত গর্ভবর্তী নারীদের চাকরি অধিকার সুনিশ্চিত করতে হবে, শিক্ষা ব্যবস্থা ও সম্পদ সুবিন্যাস করে সম্পূর্ণ করে তুলতে হবে এবং প্রবীন নাগরিকদের যত্ন নেওয়ার সুব্যবস্থাও নিতে হবে।

চীনের মত বাংলাদেশও একটি জনবহুল দেশ। দু'দেশের মধ্যে জনসংখ্যা ক্ষেত্রে সহযোগিতার অনেক সম্ভাবনা রয়েছে। গত বছরে চীনে একটি সেমিনারে অংশগ্রহণের সময়, চিনের জনসংখ্যা ও উন্নয়ন কেন্দ্রের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেছি, তারা এখন জনসংখ্যার ওপরে তত্ত্ববধানের একটি সোফ্টওয়েয়ার নিয়ে গবেষণা করছে। আশা করি এ ক্ষেত্রে চীনের উচ্চ মানের প্রযুক্তি বাংলাদেশে কাজে লাগাতে পারে।

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040