Web bengali.cri.cn   
একুশে পদক প্রদান করেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী
  2017-02-22 15:07:02  cri


২০১৭ সালের একুশে পদক প্রদান করেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ভাষা-শিল্প-সাহিত্য, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে দেশের ১৭ জন গুণী ব্যক্তিকে ২০১৭ সালের একুশে পদক প্রদান করেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

২০ ফেব্রুয়ারি সোমবার সকালে রাজধানী ঢাকার ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে পদকপ্রাপ্তদের হাতে এই পদক ও সম্মাননাপত্র তুলে দেন।

প্রত্যেককে পুরস্কার হিসেবে একটি করে স্বর্ণ পদক, একটি সম্মাননা পত্র ও ২ লাখ টাকা প্রদান করা হয়।

একুশে পদক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, যেসব গুণী ব্যক্তিত্ব এখনও আড়ালে আছেন, তাদেরকে খুঁজে বের করে রাষ্ট্রীয়ভাবে সম্মানিত করা হবে। দেশ-জাতির জন্য তাদের অবদানের স্বীকৃতি দিয়ে আমরা কৃতার্থ হবো।

অনুষ্ঠানের সভাপতি সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেন, কিভাবে বুঝবো একটি সমাজ, একটি জাতি কতটা উন্নত ও সভ্য। কেবল অবকাঠামোগত উন্নয়ন,সংস্কৃতির উন্নয়ন নয়- একটি জাতিকে বিচারের সবচেয়ে বড় মাপকাঠি হলো একটি জাতি গুণী মানুষদের কতটা মূল্যায়ন করে। মানুষ যত আলোকিত হবে, অন্ধকারের পথ তত সংকুচিত হবে।

পদক প্রদান অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী পরিষদের মন্ত্রীবর্গ, পুরষ্কার প্রাপ্ত গুনীজন, সংসদ সদস্যবৃন্দ, শিল্প-সাহিত্যসহ সমাজের বিভিন্ন অঙ্গনের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।

৮টি ক্যাটাগরীতে ২০১৭ সালে একুশে পদকপ্রাপ্ত বিশিষ্ট নাগরিকেরা হলেন-

ভাষা আন্দোলন (১): ভাষাসৈনিক অধ্যাপক শরিফা খাতুন,

শিল্পকলা (৮): সুষমা দাস, জুলহাস উদ্দিন আহমেদ, ওস্তাদ আজিজুল ইসলাম ও রহমতউল্লাহ আল মাহমুদ সেলিম (সংগীত), তানভীর মোকাম্মেল (চলচ্চিত্র), সৈয়দ আব্দুল্লাহ খালিদ (ভাস্কর্যে), সারা যাকের (নাটক), শামীম আরা নীপা (নৃত্য)।

সাংবাদিকতা (২): আবুল মোমেন ও স্বদেশ রায়।

গবেষণা (১): সৈয়দ আকরম হোসেন।

শিক্ষা (১): অধ্যাপক ইমেরিটাস আলমগীর মোহাম্মদ সিরাজুদ্দীন।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি (১): ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী।

সমাজসেবা (১): অধ্যাপক মাহমুদ হাসান। এবং

ভাষা ও সাহিত্য (২): কবি ওমর আলী ও সুকুমার বড়ুয়া (মরণোত্তর)।

একুশে পদক ২০১৭ প্রদান শেষে শিল্পকলায় সংগীত এবং নৃত্যে পদকপ্রাপ্ত দুজন বিশিষ্ট গুণী ব্যক্তির সাথে কথা বলে আমি তাদের অনুভূতি জানার চেষ্টা করেছি। চলুন এখন তা শুনা যাক..............

(১) রহমতউল্লাহ আল মাহমুদ সেলিম (সংগীত)

(২) শামীম আরা নীপা (নৃত্য)

একুশে পদক বাংলাদেশের একটি জাতীয় এবং সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার। বাংলাদেশের বিশিষ্ট ভাষাসৈনিক, ভাষাবিদ, সাহিত্যিক, শিল্পী, শিক্ষাবিদ, গবেষক, সাংবাদিক,অর্থনীতিবিদ, দারিদ্র্য বিমোচনে অবদানকারী, সামাজিক ব্যক্তিত্ব ও প্রতিষ্ঠানকে জাতীয় পর্যায়ে অনন্য অবদানের স্বীকৃতি প্রদানের উদ্দেশ্যে ১৯৭৬ সাল থেকে একুশে পদক প্রদান করা হচ্ছে। ভাষা আন্দোলনের শহীদদের স্মরণে ১৯৭৬ সালে এই পদকের প্রচলন করা হয়।

২০১৬ সাল পর্যন্ত মোট ৪১৯ জন গুণী ব্যক্তি এবং ৪টি প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। এ বছর মোট ১৭ জন গুণী ব্যক্তি এবং ১ টি প্রতিষ্ঠানকে এ সম্মাননায় ভূষিত করা হয়।

প্রত্যেক পদকপ্রাপ্তকে একটি পদক, একটি সম্মাননা সনদ, একটি রেপ্লিকা এবং পুরস্কারের অর্থমূল্য প্রদান করা হয়ে থাকে। একুশে পদকে ১৮ ক্যারেটের সোনা দিয়ে তৈরি ৩৫ গ্রাম ওজনের একটি মেডেল প্রদান করা হয়; যার ডিজাইন করেছেন নিতুন কুণ্ডু। প্রাথমিকভাবে পুরস্কারের অর্থমূল্য ২৫,০০০ টাকা দেয়া হলেও; বর্তমানে এটি ২ লক্ষ টাকায় উন্নীত করা হয়েছে।

দিদারুল ইকবাল

চীন আন্তর্জাতিক বেতার (সিআরআই)

বাংলাদেশ।

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040