Web bengali.cri.cn   
সুর ও বাণী: তোমাকে মিস করি
  2017-02-17 19:11:11  cri


প্রিয় শ্রোতাবন্ধুরা, আপনারা চীন আন্তর্জাতিক বেতারের বাংলা অনুষ্ঠান শুনছেন। আমি আনন্দী বেইজিং থেকে আপনাদের আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। ১৪ ফেব্রুয়ারি হলো পশ্চিমা বিশ্বের ভালোবাসা দিবস, অর্থাত্ ভ্যালেন্টাইন্স ডে। এদিন প্রেম, রোমান্স, ফুল, চকলেট ও শুভেচ্ছা কার্ড বিতরণের এক বিশেষ দিন। তাই, আজকের সুর ও বাণী আসরে আপনাদের কয়েকটি প্রেমের গান শোনাবো।

ছাই চিয়ান ইয়া

প্রথমে শুনুন 'যখন আমি তোমাকে মিস করি' নামের গান। গেয়েছেন ছাই চিয়ান ইয়া। গানে বলা হয়েছে, 'সেদিন একা সূর্যাস্তের আলোয় হাঁটছিলাম। এ সময় দুই প্রেমিককে দেখে অতীতের কথা মনে পড়ে যায়। হঠাত্ চোখ দিয়ে বৃষ্টির মতো পানি পড়ে। সে মুহূর্তে যেনো আমি অতীতে ফিরে যাই। কমপক্ষে দশ বছর আমি কাঁদিনি। কমপক্ষে দশটি গান আমাকে সান্ত্বনা দিয়েছে। কিন্তু এখন আমি তোমার অভাবে কাঁদছি!'

'যখন আমি তোমাকে মিস করি' গানের কথা লিখেছেন এবং সুর করেছেন ওয়াং ফেং। তিনি নিজেই এ গান গেয়ে অনেক শ্রোতার মন জয় করেছেন। সংগীত এক ধরনের বিস্ময়কর ওষুধ। মনের ভিতরের ক্ষত মুছে দেয় সংগীত। সংগীতের আয়নার মনের কথা প্রতিফলিত হয়। সংগীত ঠাণ্ডা পানির মতো আপনাকে শান্ত করে দেয়। 'যখন আমি তোমাকে মিস করি' এ গানের কথার মতো, দশ বছর পরে হলেও, আমরা বয়স্ক হলেও, হঠাত্ একদিন মনের স্পর্শকাতর অংশ জেগে উঠবে। তখন আমরা কোথাও লুকাতে পারবো না। বন্ধুরা, এবার শুনুন ওয়াং ফেংয়ের কণ্ঠে এ গানটি।

রিচার্ড ক্লায়দেমান

বন্ধুরা, আবেগপূর্ণ এক প্রেমের গান শোনার পর আপনাদের হালকা রোমান্টিক পিয়ানোর সুর শোনাতে চাই। রিচার্ড ক্লায়দেমান একজন ফরাসি পিয়ানো বাদক। ৫ বছর বয়স থেকে তিনি পিয়ানো বাজানো শেখেন। ১৯৯২ সালে তিনি চীনে প্রথম পিয়ানো পরিবেশন করেন। তারপর তার পিয়ানো চীনে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। তার পিয়ানো সুরগুলো হালকা তালের, যে কোনো সময় শোনা যায়। শ্রোতাদের মনে কোন চাপ পড়ে না। তার সুরে রোমান্টিক ও প্রেমের ভাব ভরপুর। এখন শুনুন রিচার্ড ক্লায়দেমানের বাজানো 'প্রেমের স্মরণ' নামে সুর।

বন্ধুরা, গত সপ্তাহে ওয়েবসাইটে আমি একটি ছোট কার্টুন ছবি দেখি। দু'জন প্রেমিক ঝগড়া করেছে। কয়েকদিন ধরে পরস্পরের সঙ্গে কোন যোগাযোগ ছিল না। একদিন মেয়েটি ছেলেকে এসএমএস পাঠায়, 'তুমি কেমন আছো?' ছেলেটি উত্তর দেয়, 'ভালো, তুমি?' মেয়েটি বলে, 'হঠাত্ তোমাকে খুব মিস করছি।' ছেলেটি বলে, 'আমিও তোমাকে মিস করি, কিন্তু হঠাত্ নয়।' এ কথা শুনে মেয়েটি ছেলেকে সম্পূর্ণ ক্ষমা করে দেয়। তাদের বিয়ে হয়। বন্ধুরা, এখন শুনুন 'হঠাত্ তোমাকে খুব মিস করি' নামের গান।

গু জুই জি

গানে বলা হয়েছে, 'আমি বন্ধুদের হঠাত্ যত্ন নেওয়াকে ভয় করি। আমি হঠাত্ তোমার কোনো সংবাদ জানতে ভয় করি। যদি কাউকে মনে পড়ার আওয়াজ হয়, আশা করি, সেটা কান্নার শব্দ নয়। হঠাত্ আমি তোমাকে খুব মিস করি। তুমি কোথায়? আমরা সবচেয়ে সুন্দর গানের মতো ছিলাম, এখন কেন দুটি বেদনাদায়ক চলচ্চিত্রে পরিণত হয়েছে। কেন নিজের সুখী জীবনের ভিন্ন দিকে চলে গেছি আমরা। হঠাত্ তোমাকে খুব মিস করি। তুমি কোথায়?'

চীনারা সাধারণত মনের কথা মুখে বলে না। বর্তমান যুগে যুবক যুবতীরা হয়তো অনেক পরিবর্তিত হয়েছে। কিন্তু আমাদের বাবা-মা বা আরো বয়স্ক লোকেরা, আত্মীয়স্বজনের কাছেও ভালোবাসার কথা সহজে প্রকাশ করে না। অনেক চীনা পরিবারে বাবা-মা সন্তানকে যতোই ভালোবাসুক, তা মুখে কখনো সরাসরি বলে না। চীনের টেলিভিশন এমন অনুষ্ঠান প্রচার করেছে, বিভিন্ন অঞ্চলের বিভিন্ন বয়সের সন্তানকে ডাকে টেলিফোনে বাবা-মাকে 'আমি আপনাকে ভালোবাসি' বলার পরীক্ষা নিয়েছে। টেলিফোন লাইনের অন্য পাশে বাবা বা মা সন্তানের কথা শুনে প্রথমে অবাক হয়, তারপর হয়তো ভাবেন, আজকে কী হয়েছে? কোনো ঘটনা ঘটেছে? না সন্তান কষ্ট পেয়েছে? কেউ কেউ এ কথা শোনার সঙ্গে সঙ্গে কান্না করা শুরু করেন। এমনও হয়, ছেলে বা মেয়ে অনেক চেষ্টা করেও 'আব্বা, আমি আপনাকে ভালোবাসি।' এ কথা বলতে পারেনি। কারণ সে কখনো এ কথা বলেনি। তাই তার বলতে লজ্জা লাগে।

লি ওয়ান

বন্ধুরা, এখন আপনারা শুনছেন 'তোমাকে মিস করি ৩৬৫ দিন' নামের গান, এ গানের অর্থ হলো পুরো বছরের প্রতি দিন তোমাকে মিস করি। এ গানটি ২০০৭ সালে 'চীনের আধুনিক সংগীতের শত বছরের ক্লাসিক গান' হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে।

এক বুড়ো দম্পতি বিয়ের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করে বাসায় ফিরে যায়। রাতে ঘুমানোর আগে তারা কফি ও ঘরে তৈরি পাউরুটি খান। স্বামী পাউরুটি নিয়ে তার শেষ অংশ কেটে স্ত্রীকে দিয়েছেন। তার স্ত্রী সে পাউরুটি হাতে নিয়ে অনেকক্ষণ দেখার পর হঠাত্‌ চিত্কার করে ওঠে, 'পঞ্চাশ বছর হয়ে গেছে, তুমি সবসময় পাউরুটির শেষ অংশ আমাকে দাও কেন। কেন, মাঝের অংশ আমাকে দাও না! একবার হলেও তো ভালো হতো।' তার স্বামী এ কথা শুনে ধাক্কা খায়। অনেকক্ষণ পর চুপচাপ বসে থেকে ফিস ফিস করে বলেন, 'কিন্তু, এই শেষ অংশ আমার সবচেয়ে প্রিয়, তাই সবসময় তোমাকেই দিই।'

বন্ধুরা, এই ছোট গল্প শুনে আপনার কি মনে হয়? স্বামী সারা জীবন তার স্ত্রীকে ভালোবেসেছেন এবং নিজের প্রিয় জিনিস স্ত্রীকে দিয়েছেন। তিনি মনে করছেন, স্ত্রীর জন্য তিনি ভালো কাজ করছেন। কিন্তু তিনি বুঝতে পারেননি, তার এ প্রেম মুখে না বলা পর্যন্ত স্ত্রী তা বুঝতে পারেননি। দু'জনের ভুল বোঝাবোঝি এতো বছর ধরে রয়েছে! প্রেম, শুধু মনের ব্যাপার নয়, এর বিভিন্ন কৌশলও আছে। আপনার আত্মীয়, আপনার প্রেমিককে তা মুখে বলাটা জরুরি।

বন্ধুরা, এখন শুনুন 'প্রেম, কীভাবে বলা যায়' নামের গান। গেয়েছেন চাও ছুয়ান।

বন্ধুরা, আপনারা চীন আন্তর্জাতিক বেতারের বাংলা অনুষ্ঠান শুনছেন। আজকের সুর ও বাণী আসরে কয়েকটি প্রেমের গান শুনিয়েছি। যদি আপনি কাউকে ভালোবাসা জানাতে চান, কিন্তু কোনো কারণে তা বলার সাহস না পান, তাহলে গানই হতে পারে আপনার প্রেম প্রকাশের মাধ্যম। আর বর্তমান বিশ্বে এতো বেশি গান রয়েছে, কোনো আবেগ আর লুকিয়ে রাখার সুযোগ নেই।

প্রিয় বন্ধুরা, এতক্ষণ সুর ও বাণী আসর শুনলেন। আজকের মতো এখানেই বিদায় নিচ্ছি। অনুষ্ঠানটি শোনার জন্য ধন্যবাদ। ভালো থাকুন। সবার সুন্দর পেমময় জীবন প্রত্যাশা করছি। চাই চিয়ান।

(ইয়ু/তৌহিদ)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040