Web bengali.cri.cn   
নিয়ান হুও-সংক্রান্ত অর্থনীতি
  2017-01-18 15:23:34  cri



চীনে এমন একটি কথা আছে, তুং চি'র পর শুরু হয় বসন্ত উত্সব। তুং চি চীনের ২৪টি সৌর পর্যায়ের মধ্যে অন্যতম। সারা বছরের মধ্যে সবচেয়ে ছোট দিন এটি।

আপনি কি জানেন, বসন্ত উত্সব চীনের বৃহত্তম ও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি উত্সব। এ উত্সব চলে টানা এক মাস। বসন্ত উত্সবের জন্য অনেক প্রস্তুতি নেয় চীনের মানুষ। অবশ্য কেনাকাটাও করে। বসন্ত উত্সবের সময় পণ্য বিক্রয়কে বলা হয় 'নিয়ান হুও'। নিয়ান মানে বসন্ত উত্সব আর হুও মানে পণ্য।

চলতি বছরের বসন্ত উত্সব জানুয়ারির শেষ নাগাদ শুরু হবে। তাই নতুন বছরের শুরু থেকেই চীনের মানুষ বসন্ত উত্সবের জন্য নানা প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করে। নিয়ান হুও কেনাকাটার গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। আজকের অনুষ্ঠানে আমরা নিয়ান হুও-সংক্রান্ত অর্থনীতি নিয়ে আলোচনা করব। এর মাধ্যমে নিয়ান হুও বাজার এবং ভোগ্য পণ্যে কী কী পরিবর্তন হচ্ছে তা তুলে ধরব এবং কীভাবে নিয়ান হুও কেনাকাটা চীনা অর্থনীতির চালিকাশক্তিতে পরিণত হয়েছে তা বোঝানোর চেষ্টা করব।

হ্যুপেই প্রদেশের সি ইয়ান শহরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে নিয়ান হু উত্সব অর্থাত্ তৃতীয় ছিনপা আঞ্চলিক বৈশিষ্ট্যপূর্ণ কৃষিপণ্য প্রদর্শনী। চার দিনে কৃষিপণ্য বিক্রয়ের পরিমাণ ২ কোটি ৯০ লাখ ইউয়ান। প্রদর্শনীর একজন জানান, তাদের বিক্রয়ের পরিমাণ সাধারণ দিনের চেয়ে তিন গুণ বেশি।

নতুন বছর শুরুর পর আন্টি ছাং ইতোমধ্যে তিনবার নিয়ান হুও কেনাকাটা করেছেন। তিনি বলেন, গত শতাব্দীর ৭০ দশকে চীনে পরিকল্পিত অর্থনৈতিক ব্যবস্থা ছিল। যে জিনিস কেনার প্রয়োজন তা বিশেষ টিকিটের মাধ্যমে কিনতে হত। বসন্ত উত্সবের খাবার কেনার জন্য দিন-রাত লাইন দিয়ে থাকতে হত।

নিয়ান হুও কেনাকাটার এ ঐতিহ্য প্রায় হাজার বছরের। প্রতিটি যুগে, প্রতি দশকে নিয়ান হুও'র বিষয়বস্তু পরিবর্তন হয়। চীনে এক সময় নিয়ান হুও ছিল প্রচুর খাবার ও নতুন পোশাক।

তবে এখন নিয়ান হুও শুধু আমাদের নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য নয়। অন্যান্য আয়োজনও এর সঙ্গে জড়িত। আন্টি ছাংয়ের মেয়ে বসন্ত উত্সবের সময় পারিবারিক ভ্রমণ প্যাকেজ নিয়ান হুও হিসেবে কিনেছেন। তার মেয়ে বলেন, বসন্ত উত্সবে যেখানে আমার পরিবার আছে সেখানে আমার বাড়ি।

থিয়ান চিন সামাজিক বিজ্ঞান একাডেমির বিশেষজ্ঞ ওয়াং লাই হুয়া মনে করেন, নিয়ান হুও কেনাকাটার সঙ্গে চীনের মানুষের বিশেষ আবেগ জড়িত। বিভিন্ন মানুষ বিভিন্ন রকমের নিয়ান হুও কিনে। এসবের সঙ্গে তাদের আবেগ জড়িত রয়েছে।

আগে ঐতিহ্যিক 'শ্যাডো প্লে'র প্রচলন ছিল, পাশাপাশি চলত নিয়ান হুও কেনাকাটা। এরপর দোকান ও সুপার মার্কেটে যাওয়ার চল শুরু হয়। এখন ইন্টারনেটের যুগে অনলাইনে কেনাকাটা বেশ জমে উঠেছে। নিয়ান হুও কেনাকাটা মজবুত চীনা অর্থনীতির একটি চালিকাশক্তি।

চীনা বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে দেশব্যাপী নিয়ান হু উত্সব শুরু হয় ২০১০ সালে। গত বছরের নভেম্বরে ৭ম নিয়ান হুও উত্সব চীনের ১০০টিরও বেশি শহরে অনুষ্ঠিত হয়, বড় ও মাঝারি আকারের খুচরা বিক্রেতা, ঐতিহ্যিক চীনা কোম্পানি, হোটেল ও রেস্টুরেন্টসহ ৬০ হাজারের বেশি সংস্থা এতে অংশ নেয়।

তা ছাড়া, ২০১৬ সাল থেকে চীনের বিখ্যাত ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম আলিবাবা, চিনতুং, সুনিংও অনলাইনে নিয়ান হু উত্সবের উপহার দেওয়া শরু করে।

নিয়ান হুও কেনাকাটা চীনা ভোক্তাদের একটি অপরিহার্য বিষয়। প্রতি বছরের শেষ দু'মাসে কেনাকাটার বাজারে চীনা ভোক্তাদের উপস্থিতি লক্ষ্যনীয়ভাবে বেড়ে যায়। নিয়ান হুও কেনাকাটা অর্থনীতির উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

নিয়ান হুও বাজারের কিছু ঐতিহ্য বিলীন হতে হতে এখন আবার ফিরে এসেছে। সাংস্কৃতিক নিয়ান হুও মানুষের আধ্যাত্মিক চাহিদারও খোরাক জোগাচ্ছে।

.....

শ্যাডো প্লে চীনের একটি ঐতিহ্যবাহী অনুষ্ঠান। এজন্য চামড়া কেটে বা ধাতব পাত দিয়ে নানা চরিত্র তৈরি করা হয়। তারপর একটি পর্দার পেছনে কাঠির সঙ্গে বেঁধে এ চরিত্রগুলো নাড়ানো হয়। তারও পেছন থেকে আলো এসে পড়ে এবং পর্দায় পড়ে চরিত্রগুলোর ছায়া। সঙ্গে চলে হালকা মিউজিকের সঙ্গে ঘটনার বর্ণনা। এরকম নাটক চীনের গ্রামাঞ্চলে এখনও চালু আছে। এবার সান সি প্রদেশের নিয়ান হুও বাজারে মানুষ শুধু কেনাকাটাই করেনি তারা ঐতিহ্যবাহী এই শ্যাডো প্লে উপভোগও করেছে।

সি ছুয়ান প্রদেশের নিয়ান হুও উত্সবের জন্য তিনটি শহর যৌথ বাজারের ব্যবস্থা করে। ছেং তুং, কুই ইয়াং ও ছং ছিং-এ তিন জায়গার পণ্য এক বাজারে পাওয়া যায়। তা ছাড়া, ইন্টারনেটের কল্যাণে আমরা চীনের অন্য শহরের নিয়ান হুও বাজার থেকে কেনাকাটা করতে পারি।

নিয়ান হুও বাজারের পরিবর্তন থেকে আমরা বুঝতে পারি চীনা অর্থনীতির উন্নয়ন, দেখি চীনা ভোক্তাদের চাহিদার পরিবর্তন এবং পণ্য ও সরবরাহকারীদের বৈচিত্র্য!(শিশির)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040