Web bengali.cri.cn   
সুর ও বাণী : ২০১৬ সালের সিনেমার গান
  2017-01-01 18:13:58  cri


প্রিয় শ্রোতাবন্ধুরা, আপনারা চীন আন্তর্জাতিক বেতারের বাংলা অনুষ্ঠান শুনছেন। আমি আনন্দী বেইজিং থেকে আপনাদের আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। আমাদের জীবন থেকে অআরো একটি বছর চলে গেলো। ২০১৬ সাল শেষ হয়ে গেল। এ বছরের কী কী স্মৃতি রয়েছে আপনার? এ বছর আপনি কোন চীনা সিনেমা দেখেছেন? আজকের 'সুর ও বাণী' আসরে ২০১৬ সালে মুক্তি পাওয়া আমার প্রিয় কয়েকটি সিনেমার গান শোনাবো আপনাদের।

বন্ধুরা, এখন আপনারা শুনছেন 'লিউ দে শুই' নামে সিনেমার থিম সং 'আমি তোমাকে চাই'। এ সিনেমাটি আমি দেখি নি। তবে এ গানটি আমি অনেকবার শুনেছি। এ গানের কথা ও সুর আমাকে মুগ্ধ করেছে। এ গানে বলা হয়েছে, 'আমি চাই, তুমি আমার পাশে থাকবে। এ রাতে আমি চাঁদ দেখে তোমাকে মিস করি। তুমি কোথায়? আমার প্রিয়তমা, তুমি কোন দিকে তাকিয়ে আছো? আমি গান গাইতে গাইতে তোমাকে মিস করি।'

২০১৬ সালের জুলাইয়ে 'বড় মাছ হাই থাং' নামে একটি সিনেমা মুক্তি পাওয়ার পর দর্শক দৃষ্টি আকর্ষণ করে। এ সিনেমায় ছুন  নামে এক কিশোরী 'খুন' নামে এক ছেলের প্রাণ রক্ষা করে। তাকে সহায়তা করে 'ছিউ' নামে দেবতা। নিয়তির সঙ্গে সংগ্রাম করার গল্প এ সিনেমায় তুলে ধরা হয়েছে। গায়ক চৌ শেন  এ সিনেমার থিম সংটি গেয়েছেন। তার কণ্ঠ মেয়েদের মতো। তার পরিষ্কার কণ্ঠস্বরে চরিত্র ছুন, খুন ও ছিউয়ের আবেগ প্রতিফলিত হয়েছে। এ গানের সুরে চীনের ঐতিহ্যবাহী সংগীতের ভাব রয়েছে। গানটি শেষ হলেও মনে হয় যেন গানের সুরটি কানে ভাসছে। এ গানে বলা হয়েছে, 'আকাশের সীমানায় সমুদ্রের কোণায় বড় মাছ স্বপ্নের মধ্যে উড়ে বেড়ায়। সে তোমার ঘুমন্ত মুখ দেখে। তোমার হাত ধরে একসাথে বৃষ্টি ও বাতাস দেখে। আমার চোখের পানির প্রতিটি ফোটা তোমার জন্য পড়ে। আমি ভয়ে আছি যদি কোন একদিন তুমি আমাকে ছেড়ে চলে যাও!"

'কোংফু পান্ডা' নামের সিনেমাটির তিন পর্ব তৈরি হয়েছে এখন পর্যন্ত। ২০১৬ সালের জানুয়ারি মাসে চীন এবং উত্তর আমেরিকায় 'কোংফু পান্ডা'র তৃতীয় পর্ব মুক্তি পায়। দু'মাস পর এ সিনেমা বৃটেন ও অস্ট্রেলিয়ায় মুক্তি পায়। এ পর্বের সিনেমায় দেখা যায়, পান্ডা আপাও তার আপন বাবার সঙ্গে মিলিত হয়েছে। সে তার বাবার সঙ্গে জন্মস্থানে ফিরে গেছে। তবে অল্প দিন পর তাদের গ্রামে দুষ্ট শক্তির আক্রমণ হয়। আপাও নিজের মনের ভয়কে জয় করে অল্প দিনের মধ্যে পান্ডা পল্লীর গ্রামবাসীদের কোংফু শিখিয়েছে এবং শত্রু র সঙ্গে সংগ্রাম করেছে। পান্ডা দল চূড়ান্ত বিজয় অর্জন করেছে। তাইওয়ানের শিল্পী চৌ চিয়ে লুন এবং তার ছাত্র পাই ওয়েই জুন  এ সিনেমার গান তৈরি করেন। গানের নাম 'ট্রাই' । শুনুন গানটি।

বন্ধুরা, চীনা ভাষা কেবল চীনে প্রচলিত তা নয়। বরং সিঙ্গাপুর এবং মালয়েশিয়াও অনেক চীনারা বসবাস করেন। সেখানেও বেশ কিছু কণ্ঠশিল্পী চীনা গান গেয়ে সুনাম অর্জন করেছেন। সুন ইয়ান জি সিঙ্গাপুরের একজন বিখ্যাত কণ্ঠশিল্পী।

২০১৬ সালের মে মাসে 'আবার দেখা হবে, আর দেখা হবে না' নামে একটি সিনেমা মুক্তি পায়। এ সিনেমায় বিভিন্ন অঞ্চলের তিনটি প্রেমের গল্প, আত্মীয়স্বজনের গল্প এবং বন্ধুদের গল্প তুলে ধরা হয়েছে। এ সিনেমার থিম সং 'আছে, কিন্তু দেখা হবে না' গেয়েছেন সুন ইয়ান জি। এ গানের কথা তাকে মুগ্ধ করেছে। কারণ গানটিতে বাস্তব জীবনের অনেক ব্যথার কথা প্রকাশিত হয়েছে।

সম্প্রতি আমি ইন্টারনেটে 'অদ্বিতীয় প্রেমপত্র' নামে একটি সিনেমা দেখেছি। এ সিনেমা ২০১৬ সালের এপ্রিল মাসে চীনের মূলভূখণ্ডে মুক্তি পায়। সে সময় ৭৯ কোটি ইউয়ান টিকিট বিক্রি হয়েছে। এ সিনেমা চীনা ভাষায় রোমান্টিক সিনেমার টিকিট বিক্রির নতুন রেকর্ড সৃষ্টি করে। এ সিনেমায় ম্যাকাওয়ের এক মেয়ের চিঠির মাধ্যমে লস অ্যাঞ্জেলেসে অবস্থানকারী একজন রিয়েল এস্টেট ব্রোকারের প্রেমে পড়ে। সে গল্পই উপস্থাপন করা হয়েছে এ সিনেমায়। এ সিনেমায় দেখানো ৮০ বছর বয়সী এক দম্পতির প্রেম খুব মর্মস্পর্শী। স্বামী মারা যাওয়ার পর তার স্ত্রী তার হাড়-ছাই নিয়ে নিজ দেশে ফিরে যান। তিনি বলেন, 'প্রেমিক যেখানে আছে, সে স্থানই বাসা। প্রেমিক না থাকলেও আমাদের বাড়ি আমার মনে রয়েছে।'

বন্ধুরা, এখন আপনারা শুনছেন 'অদ্বিতীয় প্রেমপত্র' সিনেমার একটি গান। গানের নাম 'তোমার সঙ্গে দেখা করার জন্য অপেক্ষা করি'। গেয়েছেন লি চিয়ান। এ গানে বলা হয়েছে, 'গভীর রাতে দূর থেকে গাড়ির আলো দেখা যাচ্ছে। এ এক সাধারণ রাতের দৃশ্য। আমি আবার আমাদের প্রথম মিলিত হবার স্থানে ফিরে এসেছি। আমি জানি, ভিড়ের মধ্যে তুমিও আমাকে খুঁজছো। তুমি আমার জন্য অপেক্ষা করছো। আমাদের মিলিত হবার পর একা হলেও কোথায় যেতে ভয় লাগবে না। '

বন্ধুরা, প্রতি বছর চীনের সিনেমা বাজারে বেশ কিছু হলিউডের ছবিও আসে। এ সিনেমাগুলো সাধারণত খুব ভালো বাজার পায়। ২০১৬ সালের ৪ মার্চ ডিজনির কার্টুন ছবি 'ক্রেজি প্রাণী সিটি' উত্তর আমেরিকা ও চীনে একই দিনে মুক্তি পায়। এ ছবিতে সকল প্রাণীর একসাথে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের গল্প বলা হয়েছে। খরগোশ জুডি পরিশ্রমের মাধ্যমে ছোটবেলার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করেছে। এ প্রাণী শহরের পুলিশ হয়েছে। এ ছবিটি মার্কিন সিনেমা সোসাইটির ২০১৬ সালের সেরা দশটি সিনেমার একটি নির্বাচিত হয়েছে। কলম্বিয়ার বিখ্যাত গায়িকা শাখিরা এ ছবির থিম সং 'ট্রাই এভরি থিং' গেয়েছেন। শুনুন এ গানটি।

বন্ধুরা, চীনের মহাপ্রাচীর কেবল বিশ্ব বিখ্যাত স্থাপত্য বিস্ময় নয়, প্রাচীনকাল থেকে এ পর্যন্ত মহাপ্রাচীর নিয়ে অনেক কাহিনী সৃষ্টি হয়েছে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে নানা টেলিভিশন নাটক ও সিনেমাও হয়েছে। গত ১৫ ডিসেম্বর চীনের বিখ্যাত পরিচালক চাং ই মোর পরিচালিত নতুন চলচ্চিত্র 'মহাপ্রাচীর' চীনে মুক্তি পেয়েছে।

এ ছবিতে চীনের সোং রাজবংশের আমলে ইউরোপীয় ভাড়াটে সৈনিক উইলিয়াম গাগেরিন মহাপ্রাচীরে বন্দী হন। এ সময় ভয়ঙ্কর দৈত্য থাও টিয়ে মহাপ্রাচীর আক্রমণ করতে আসে। তিনি চীনা বীরদের সঙ্গে যৌথভাবে দৈত্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেন। শেষ পর্যন্ত বিজয়ী হন। এ সিনেমার থিম সং গেয়েছেন ওয়াং লি হোং এবং থান ওয়েই ওয়েই। এ গান থাং রাজবংশের কবি ওয়াং ছাং লিংয়ের কবিতা দিয়ে শুরু। গানটি মহাকাব্যের মতো শক্তিশালী ও মনস্পর্শী।

বন্ধুরা, 'সুর ও বাণী' আসর আজ এ পর্যন্তই। অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার আগে আমার নতুন বছরের শুভ কামনা গ্রহণ করুন। আশা করি, নতুন বছরে আপনাদের জীবনে সুখ ও শান্তি থাকবে। সুন্দর স্বপ্নগুলো বাস্তবায়িত হবে। আমিও আরো বেশি বেশি সুন্দর সংগীত আপনাদের শোনাবো। ভালো থাকুন সবাই। আবার কথা হবে। শুভ নববর্ষ। (ইয়ু/মান্না)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040