Web bengali.cri.cn   
সুর ও বাণী : মেঘ ও বৃষ্টি
  2016-11-30 18:30:22  cri


এখন বেইজিংয়ে শীতকাল। সাধারণত শীতকালে বৃষ্টি হয় না। কিন্তু এ বছর বেইজিংয়ে শীতকালেও ঝিরিঝিরি বৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টি পড়লে তাপমাত্রা আরো কমে যায়। বৃষ্টির কারণে রাস্তায় লোকজন কম থাকে। চীনারা বৃষ্টির সময় চলাফেরা করতে পছন্দ করে না। বৃষ্টি শুরু হলে আমরা ছাতা মাথায় দৌঁড়ে বাসায় চলে যাই। যদি কেউ ছাতা আনতে ভুলে যায় তাহলে সাবওয়ে বা কোনো দোকানপাটে দাঁড়িয়ে বৃষ্টি কমার জন্য অপেক্ষা করে। তবে বৃষ্টির দিন বাসায় থাকতে বেশ ভালো লাগে। আকাশ কিছুটা অন্ধকার, দিনের বেলা এমন পরিবেশ ঘুমানোর জন্য চমত্কার। মোটা লেপ গায়ে দিয়ে গভীর ঘুমে ডুবে স্বপ্ন দেখতে সে কী আরাম!

বন্ধুরা, এখন আপনারা শুনছেন হংকংয়ের বিখ্যাত তোং সিয়াও বাদক থান পাও শুওয়ের বাজানো 'ইয়ুন মেনের রাতের বৃষ্টি' নামে একটি সুর। তিনি এ সুর সৃষ্টির স্মৃতি স্মরণ করে জানান, এক দিন রাতে তিনি কুয়াংতোং প্রদেশের উত্তরাঞ্চলের ইয়ুন মেন মন্দিরে ছিলেন। সেই ঠান্ডা রাতে বজ্রধ্বনির সঙ্গে সঙ্গে ভারি বৃষ্টি হচ্ছিলো। বাইরে তাকিয়ে বোঝা যায় না, পাহাড় কোথায়? মন্দির কোথায়? লোকজন কোথায়? এ সময় তিনি জানালার সামনে দাঁড়িয়ে বাঁশি বাজান। বাঁশি বাজতে বাজতে বৃষ্টিও কমে আসে। বৃষ্টি পড়ার শব্দ ছন্দের মতো মনে হয়। তিনি বাঁশির সুর দিয়ে মনের ভিতর লুকিয়ে রাখা কিছু গল্প বর্ণনা করেন। শুনুন এ হৃদয়গ্রাহী সুরটি।

প্রিয় শ্রোতা, বৃষ্টি হলে শহরবাসীরা সাধারণত ছাতা ব্যবহার করেন। দক্ষিণ চীনে কাগজ দিয়ে তৈরি এক ধরণের বিশেষ ছাতা পাওয়া যায়। চীনা ভাষার এর নাম 'ইয়ো জি সান'। এ ছাতা চীনের হান জাতির ঐতিহ্যবাহী বৃষ্টি ও রোদ প্রতিরোধক যন্ত্র। এর ব্যবহারের ইতিহাস এক হাজার বছরের বেশি। কাগজি ছাতা বিশ্বে সর্বপ্রথম আবিষ্কৃত ছাতা। পুরোপুরি হাতের কাজের তৈরি। বাঁশের সরু লাঠি দিয়ে ছাতার কাঠামো তৈরি হয়। কাগজের ওপর প্রাকৃতিক পানিরোধক তেল মাখানো থাকে।

চীনের হাক্কাবাসীর মেয়েদের বিয়ের সময় সাধারণত যৌতুক হিসেবে দু'টি কাগজি ছাতা দিতে হয়। কারণ মনে করা হয় প্রথম ছাতা খোলার মানে নতুন দম্পতির সফল জীবনের জন্য শুভকামনা করা। আবার কোনো পরিবারে পুত্রের বয়স ১৬ বছর হলে বাবা-মাও তাকে একটি কাগজি ছাতা উপহার দেন। এর মাধ্যমে পুত্র ভবিষ্যতে পুরো পরিবারকে সহযোগীতা-সমর্থন করবে বলে প্রত্যাশা করা হয়।

থাং রাজবংশ থেকে যথাক্রমে চীনের কাগজি ছাতা তৈরির প্রযুক্তি জাপান, কোরিয়া, ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ড ও লাওসসহ এশিয়ার বিভিন্ন দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়ে। স্থানীয় সংস্কৃতির সঙ্গে মিশে নানা ধরনের আকার ও নাম সৃষ্টি হয়। আচ্ছা, বন্ধুরা, এবার শুনুন 'কাগজি ছাতা' নামে একটি গান। গেয়েছেন কণ্ঠশিল্পী লি কো এবং ছু লান লান।

প্রিয় বন্ধুরা, চীনের হুনান প্রদেশের সুন্দর একটি নাম রয়েছে। 'সিয়াও শিয়াং'। 'সিয়াও' হচ্ছে হুনানের সিয়াওসুই নদী। 'শিয়াং' হচ্ছে এ প্রদেশের আরেকটি বড় নদী শিয়াংচিয়াং। এ দু'টি নদীর নাম যোগ করে 'সিয়াও শিয়াং' বলা হয়। সময়ের সাথে সাথে এ অর্থ সৌন্দর্যের প্রতীকে পরিণত হয়েছে।

শ্রোতাবন্ধুরা, এখন আপনারা শুনছেন গায়ক হু ইয়ান বিনের গাওয়া 'সিয়াও শিয়াংয়ের বৃষ্টি' নামের গানটি। গানের সুর শুনে মনে হয় আমরা যেন গ্রামের নীল পাথরের সরু পথে হাঁটছি। মুগ্ধ চোখে দু'পাশের প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখছি। এ গানে গায়কের কণ্ঠে হালকা বেদনার ভাব লক্ষ্য করা যায়। এমন গান শুনে আপনার কার কথা মনে পড়ে?

বৃষ্টির কথা বললে মেঘের কথা চলে আসে। মেঘ নিয়েও অনেক সুন্দর সুন্দর গান আছে। এ গানগুলোর মধ্যে 'যদি মেঘ জানে' নামে গানটি আমার ভীষণ প্রিয়। গায়িকা শু রু ইয়ুন এ গানের জন্য ১৯৯৭ সালে শ্রেষ্ঠ চীনা গানের পুরস্কার পেয়েছেন। গানটিতে প্রেমে পড়া এক মেয়ের মনের কথা বলা হয়েছে।

আসলে বৃষ্টি হোক, ঘন মেঘ হোক, যদি মনে রোদ থাকে, তাহলে যে কোনো সময় আমরা উষ্ণতা অনুভব করতে পারি। বন্ধুরা, এবার শুনুন 'আকাশে মেঘের তৈরি বৃষ্টি রয়েছে' নামের গানটি।

এ গানে বলা হয়েছে, 'আকাশে একখন্ড মেঘ রয়েছে। মেঘের মনে বৃষ্টি ভরা। প্রতিটি বৃষ্টির ফোঁটা আসলে তুমি। মেঘ বাতাসের মনে আঘাত দিয়েছে। বাতাস জানে না, কোথায় যেতে পারে। সে যেতে যেতে ফুল ঝরেছে। বৃষ্টি যেতে যেতে তোমার ফেরার অপেক্ষা করে।'

বন্ধুরা, আপনারা চীন আন্তর্জাতিক বেতারের সুর ও বাণী আসর শুনছেন। আজকে প্রচারিত কয়েকটি গান কিছুটা বেদনাদায়ক ছিল। তাই অনুষ্ঠান শেষে একটি হালকা সুরের গান শোনাবো। গানের নাম 'মেঘ খুলেছে'। গেয়েছেন লোং মেই জি।

'দরজা-জানালা খুলে দেই। দূরে তাকিয়ে নীল সমুদ্র দেখি। এ মুহুর্তে চারদিকজুড়ে উজ্জ্বল সূর্যের আলো রয়েছে। আকাশে সাদা মেঘ ভাসছে। গাছে গাছে ফুল ফুটেছে। আমার নীল আকাশ, আমার বাড়ি। ছোট্ট পাখি আবার ফিরে এসেছে নীড়ে। চলো, উড়ে চলো, এখন প্রেমের সময়।'

প্রিয় বন্ধুরা, সুর ও বাণী আসর আজকের মতো শেষ করছি। এতোক্ষণ অনুষ্ঠান শোনার জন্য ধন্যবাদ। ভালো থাকুন সবাই। আবারো কথা হবে। (ইয়ু/মান্না)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040