Web bengali.cri.cn   
হ্যালো চায়না: ৩৭. চীনা রাশিবর্ষ
  2016-08-26 14:39:25  cri

চীনা চান্দ্রপঞ্জিকা অনুসারে, প্রতিটি বছর একটি প্রাণীর নামানুসারে চিহ্নিত করা হয়। প্রতি বারো বছর পর পর ১২টি প্রাণীর নাম সম্পর্কিত বছরগুলো চক্রাকারে ফিরে আসে। এই ১২টি প্রাণী হলো ইঁদুর, গরু, বাঘ, খরগোস, ড্রাগন, সাপ, ঘোড়া, ছাগল, বানর, মোরগ,কুকুর ও শুকর। আপনি যদি ১৯৮৫ সালে জন্মগ্রহণ করেন, সেটা ছিলোবাঘ বর্ষ। অর্থাৎ আপনার চীনা রাশিবর্ষ হলো বাঘ।প্রতি ১২ বছর পরপর বাঘ বর্ষ ফিরে আসে। চীনারা মনে করে, ১২ বছর পর এ রাশি বর্ষ ফিরে আসাটা কল্যাণকর নয়। এ সময় ওই ব্যক্তির জীবনে নানা ধরনের বিপদ-আপদ হতে পারে। তাই এ রকম ঝামেলা এড়ানোর জন্য চীনারা লাল রংয়ের কাপড় পরে থাকে।

এই বারোটি চীনা রাশিবর্ষ কিভাবে নির্বাচিত হয় সেইসম্পর্কে একটি কাহিনী প্রচলিত রয়েছে।বেশিরভাগ মানুষই ইঁদুর পছন্দ করে না। তাহলে ইঁদুর বর্ষ কেনো সবার আগে আসলো। কেন বিড়াল আসলো না‌! কাহিনীর ব্যাখ্যাটি এ রকম।

আকাশের রাজা সব প্রাণীর মধ্যে ঘোষণা করে দিলেন যে, রাশিবর্ষ চিহ্নিত করার জন্য বারোটি প্রাণী নির্বাচন করা দরকার। এজন্য একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হলো। সমস্ত প্রাণী এ ঘোষণা শুনে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য প্রস্তুতি নেয়। গরু খুবই পরিশ্রমী বলে দেরি না করে সবার আগে রওয়ানা হয়। স্বাভাবিকভাবেই তার প্রথম হওয়ার কথা। কিন্তু, ইঁদুর ছিল অনেক চালাক। সে গোপনে গরুর পিঠে উঠে বসে থাকে। ধীরে ধীরে সে গরুর মাথায় এসে দাঁড়ায়। অবশেষে গরু প্রতিযোগিতার শেষমুহূর্তে পৌঁছার সঙ্গে সঙ্গেই ইঁদুর হঠাৎ গরুর মাথা থেকে লাফ দিয়ে আগে দাঁড়িয়ে যায় এবং প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়। গরু দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে। কিন্তু বিড়াল কোথায়? আগে ইঁদুর ও বিড়াল ভাল বন্ধু ছিল। প্রতিযোগিতা শুরুর আগে তারা দুজনে ঘুমিয়ে ছিল। তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, প্রতিযোগিতার সময় হলে ঘুম থেকে যে আগে জেগে উঠবে, সে অন্যজনকে ওঠার জন্য ডাক দিবে। কিন্তু, ইঁদুর আগে জেগে উঠলেও বিড়ালকে ডাক দেয়নি। বিড়াল ঘুম থেকে জেগে উঠে দেখতে পায় বারোটি প্রাণী আগে চলে গেছে এবং আকাশের রাজা ১২টি প্রাণীকে চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত করেছে। তাই বিড়াল এই ১২টি প্রাণীর মধ্যে নেই। এরপর থেকে ইঁদুর ও বিড়ালের মধ্যে চরম শত্রুতার সম্পর্ক তৈরি হয়।

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040