Web bengali.cri.cn   
সুর ও বাণী: 'নৌকার গান'
  2016-08-04 16:30:03  cri


প্রিয় শ্রোতাবন্ধুরা, আপনারা চীন আন্তর্জাতিক বেতারের বাংলা অনুষ্ঠান শুনছেন। আমি আনন্দি বেইজিং থেকে আপনাদের সঙ্গে আছি 'সুর ও বাণী' আসর নিয়ে। আজ আপনাদের শোনাবো পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চলের নৌকার গান।

বন্ধুরা, এখন আপনারা শুনছেন তাইওয়ানের গায়িকা ছি ইয়ুর গাওয়া 'নৌকার গান'। এ গানটি 'পা লিয়াং চিন ধনী হয়ে স্বদেশে ফিরে যায়' নামক চীনা চলচ্চিত্রের থিম সং। লো দা ইয়ো এ গানের কথা লিখেছেন এবং সুর করেছেন। গীতিকার লিখেছেন: 'সময় পানির মতো, প্রেম নৌকার মতো। সুর পানির ওপর ভেসে চলে। প্রবাসীরা সবসময় স্বদেশকে মিস করেন। জাহাজে করে স্বদেশে ফিরে যাওয়া তাদের অনেকের স্বপ্ন। তবে তারা জানেন না, স্বদেশে যেতে চাইলে সমুদ্র আর জাহাজ বেশি প্রয়োজন, নাকি নিয়তির সুদৃষ্টি!" আসলে লো দা ইয়ো প্রাচ্যের সুরে চীনাদের মনের কথা বলেছেন।

বন্ধুরা, গত শতাব্দীর একটা সময় পূর্ব-দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর গান তাইওয়ানে জনপ্রিয় ছিল। কিছু গান এখনও মানুষের মুখে মুখে। এ গানগুলোর মধ্যে তেং লি চুনের কণ্ঠে ইন্দোনেশিয়ার 'নৌকার গান' বেশ সুন্দর। গানে বলা হয়েছে: 'আমার নৌকা বাতাসের সাথে ধায়; নিয়ে যায় চিন্তার রাজ্যে। প্রেমিক আমার, আমি তোমার সঙ্গে দেখা করতে চাই; তোমাকে মনের কথা বলতে চাই। আমি না-আসা পর্যন্ত তুমি ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করো।"

বন্ধুরা, উসুলি নদী হচ্ছে চীনের হেইলোংচিয়াং নদীর শাখা এবং চীন ও রাশিয়ার মধ্যে একটি গুরুত্বপুর্ণ সীমান্ত নদী। এ নদীর দৈর্ঘ্য ৮৮০ কিলোমিটার। উসুলি নদীর অববাহিকার প্রায় ১ লাখ ৯০ হাজার বর্গকিলোমিটার জমিতে হান, মান, মঙ্গোলীয়, হেচেন, দাওর ও এলুনছুনসহ বিভিন্ন জাতির লোক বসবাস করেন। ১৯৮০ সালে ইউনেস্কো হেচেন জাতির লোকসংগীত 'উসুলি নৌকার গান'-কে এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের বিশেষ সংগীত হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। এ গান আমাদের পরিচয় করিয়ে দেয় হেচেন জাতির সংস্কৃতির সাথে। এ গানটি হেচেন জাতির প্রতীকস্বরূপ। গত শতাব্দীর ষাটের দশকে কণ্ঠশিল্পী কুও সোং এ গান গেয়ে সারা চীনে সুনাম অর্জন করেন। বন্ধুরা, এখন শুনুন পাচিইয়ান নামক ব্যান্ডের গাওয়া 'উসুলি নৌকার গান'।

বন্ধুরা, 'নৌকার গান' নিয়ে আলোচনার সময় 'বার্কারোলে'-র কথা আসবে অনিবার্যভাবে। বার্কারোলে হচ্ছে ইতালির ভেনিসের 'গণ্ডোলা' নামক নৌকার মাঝিদের গানের নাম। ভেনিসে গেলে আপনি অনেক গণ্ডোলা নদীতে দেখবেন। বিভিন্ন দেশের পর্যটকরা গণ্ডোলায় বসে মাঝিদের গান শুনে আরাম পান। শুনুন 'বার্কারোলে'।

বন্ধুরা, 'ছুয়ান গোং হাও জি' অর্থাত্ 'মাঝিদের গান' হচ্ছে চীনের হান জাতির সুদীর্ঘ ইতিহাসের অংশ। নৌকা বাওয়ার সময় মাঝিরা গান গায়; আর নৌকার নড়াচড়ার ফলে তাদের কণ্ঠেরও ওঠানামা হয়। আবার নদীর পানি শান্ত হলে মাঝির গানের সুরও হয় নরম ও আবেগপূর্ণ। মাঝির গানে জীবনের প্রতি শ্রমিকদের ভালোবাসা ও প্রত্যাশা প্রতিফলিত হয়। বন্ধুরা, এ বার শুনুন লি শোয়াং চিয়াংয়ের গাওয়া 'মাঝির গান'।

চীনে নৌকাসম্পর্কিত আরও কিছু গান আছে। চীনা মেয়েরা নৌকায় বসে নদীর প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখে গান গায়। তাদের কণ্ঠ যেমন মিষ্টি, গানও তেমন শ্রুতিমধুর।

বন্ধুরা, এখন শুনছেন চেন জুই ফেনের গাওয়া 'সুন্দর মেয়ের নৌকার গান'। তিনি গেয়েছেন: 'বলো না, মেয়েটি কত সুন্দর! দেখ, এ নদীর প্রাকৃতিক দৃশ্য কত মনোরম! আকাশে দেখি সোনালী ড্রাগন আকৃতির মেঘ। নদীর স্রোত বয়ে চলে; আমার ভালো লাগাও পানির সাথে মিশে দূরে যায়। আমি নৌকায় বসে শত পাখির গান শুনতে পাই।'

বন্ধুরা, রুশ সুরকার চেকোভস্কির 'জুন মাসের নৌকার গান' আপনারা কখনও শুনেছেন? প্রতিবছরের জুন মাস হচ্ছে রাশিয়ার সবচেয়ে ভালো সময়। এ সময় আবহাওয়া খুব ভালো থাকে। চারদিকে তখন সবুজ গাছ ও ঘাস। বনফুলের সুগন্ধ ছড়িয়ে পড়ে সবখানে। এমনি এক সময়ে চেকোভস্কি টাটকা বাতাসে শ্বাস নিতে নিতে গানের সুরটি করেন। বন্ধুরা, শুনুন 'জুন মাসের নৌকার গান'।

বন্ধুরা, আজকের 'সুর ও বাণী' আসরে আপনাদের বিভিন্ন অঞ্চলের নৌকার গান শুনিয়েছি। অনুষ্ঠানের একেবারে শেষ প্রান্তে চলে এসেছি আমরা। তবে যাবার আগে শোনাবো কণ্ঠশিল্পী উ ইয়ান জে'র কণ্ঠে 'ছুয়ান চিয়ান নদীর নৌকার গান'।

প্রিয় বন্ধুরা, 'সুর ও বাণী' আসর আজকের মতো এখানেই শেষ করছি। সবাই ভালো থাকুন। আবার কথা হবে। (ইয়ু/আলিম)

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040